সেরা সাফল্য চান মিরাজ

0

স্পোর্টস ডেস্ক: 

বল হাতে যে কোনো সময় ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেয়ার কারিগর তিনি। দলের প্রয়োজনে হাসে তার ব্যাট। অল্পদিনেই টাইগার ক্রিকেটকে করেছেন আলোকিত। বিশেষ করে সাদা পোশাকে তিনি কতটা ভয়ঙ্কর হাড়েহাড়ে টের পেয়েছেন ইংলিশরা। বলছিলাম মেহেদী হাসান মিরাজের কথা। কয়েকদিন পরেই বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট সিরিজ। সেই লড়াইকে সামনে রেখে প্রস্তুত হচ্ছে টিম টাইগার্স। মিরপুরের হোম অব ক্রিকেটে আজ অনুশীলন শেষে বিসিবি লাউঞ্জে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপ করেছেন মিরাজ।

ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে খেলতে যাওয়ার কারণে বাংলাদেশ দলের সম্পূর্ণ অনুশীলনে ছিলেন না মিরাজ। আজ তার প্রথম অনুশীলন। তবে অস্ট্রেলিয়া সিরিজকে বড় সুযোগ হিসেবেই দেখছেন মিরাজ। ওজিদের বিপক্ষে সব চেষ্টা দিয়ে দলের জন্য সাফল্য বয়ে আনতে চান এই টাইগার সেনসেশন।

‘অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলাটা আমার জন্য বড় সুযোগ। খেলতে পারলে অবশ্যই ভালো লাগবে। প্রত্যাশা থাকবে ভালো কিছু করার। নিজের মাটিতে খেলা, চেষ্টা করব সর্বোচ্চটা দিয়ে সেরা সাফল্য পেতে। সাকিব-তাইজুল ভাই আছেন, দলের অন্য যারা আছেন, সবাই যার যার পজিশন থেকে ভালো কিছু করলেই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ভালো কিছু সম্ভব। আজ প্রথম অনুশীলন করেছি। বোলিং করেছি, ব্যাটিং করে আসলাম। আশা করি ১০-১২ দিনে নিজেকে তৈরি করতে পারবো।’

ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডে বিপক্ষে বল হাতে আগুণ ঝরান মেহেদী হাসান মিরাজ। দুই ম্যাচের সিরিজে ১৯ উইকেট নিয়ে রেকর্ড গড়েছিলেন। প্রথম টেস্টে ৭ উইকেট ছিল। পরের টেস্টে ঝুলিতে পুরেন ১২ উইকেট। তবে সবসময় এমন পারফরম্যান্স অসম্ভব হয়ে দাঁড়ায় জানালেন মিরাজ।

‘ইংল্যান্ডের বিপক্ষে যেটা হয়েছে সেটা সব সময় করা সম্ভব না। লাইফে এক-দুইবার হতে পারে। আবার এরকম নাও হতে পারে। ওটা অপ্রত্যাশিত। তারপরও সব মিলিয়ে চিন্তা করবো সর্বোচ্চটা দেওয়ার। দলের প্রয়োজনটা মেটানোর চেষ্টা করব। একটা-দুইটা উইকেট কিংবা ভালো সময়ে ব্রেক থ্রু এনে দিয়ে যদি কাজ করতে পারি তাহলে আমার ও দলের জন্য ভালো হবে।’

আজ থেকে মিরপুরে শুরু হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দুই টেস্টের চূড়ান্ত প্রস্তুতি। প্রথম দিন সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত চলে টাইগারদের ক্যাম্প। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ১৮ আগস্ট বাংলাদেশে পা রাখবে অস্ট্রেলিয়া দল। এরপর ২২-২৪ আগস্ট ফতুল্লা কিংবা বিকেএসপিতে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে তারা। ২৭-৩১ আগস্ট ঢাকায় প্রথম টেস্টে বাংলাদেশের মুখোমুখি হবে অস্ট্রেলিয়া। এরপর ৪-৮ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামে শুরু হবে দ্বিতীয় টেস্ট।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে নিরাপত্তা শঙ্কায় বাংলাদেশ সফর বাতিল করে অস্ট্রেলিয়া। যদিও সে সময় ওজি দলকে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ পর্যায়ের নিরাপত্তা সুবিধার প্রতিশ্রুতি দেয় বিসিবি। তারপরও অস্ট্রেলীয় ক্রিকেট দল বাংলাদেশ সফরে আসেনি। সর্বশেষ ২০১১ সালে বাংলাদেশ সফর করে অস্ট্রেলিয়া। সেবার এফটিপিতে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ থাকলেও শুধু তিনটি ওয়ানডে খেলেই দেশে ফেরত যায় স্মিথরা।

এসএমএইচ // বুধবার, ১৬ আগস্ট ২০১৭। ১ ভাদ ১৪২৪

Share.

Comments are closed.