বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালির আত্মজাগরণের শক্তি

0

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি :     

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র প্রফেসর নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু বলেন, বঙ্গবন্ধু বাঙালির আত্মজাগরণের শক্তি। ইতিহাস থেকে তাঁকে যারা মুছে ফেলতে চেয়েছিলো তারাই ইতিহাসের আস্থাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে। গতকাল ১০ জানুয়ারি বুধবার সকালে জাতির জনক  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলার উদ্যোগে নগরীর পাথরঘাটা ইকবাল রোডস্থ পিপি স্কোয়ার মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি একথা বলেন। তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু বিশ্ব জননায়ক। তিনি শোষিতের মুক্তি সংগ্রামের আদর্শিক প্রতীক। শান্তি ও প্রগতির অগ্রযাত্রায় তাঁর আহ্বান আমাদেরকে পথ দেখায়। তিনি এমনই একজন মহামানব বাঙালি জাতিসত্তাকে বিশ্বে উপস্থাপিত করে মাথা উঁচু করে দাড়াবার ঠাঁই দিয়েছেন। বিশেষ অতিথির ভাষণে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ২৭নং দক্ষিণ আগ্রাবাদ ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলহাজ্ব এইচ এম সোহেল বলেন, বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের মাথা উঁচু করে দাঁড়াবার প্রধান অবলম্বন। ১৯৭১ সালের আগে বাঙালির তিন হাজার বছরের ইতিহাসে আমরা স্বাধীন ছিলাম না। বাঙালির স্বাধীনতা এই প্রাপ্তির প্রদীপ শিখা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। বাংলার জনপথ কখনো হতদরিদ্র ছিলো না। বারবার ঐপনিবেশিক লুন্ঠন্নের শিকার হয়েছে। বাংলার সম্পদ লুট করে পাশ্চত্য সমৃদ্ধ হয়েছে। এই লুন্ঠনের বিরুদ্ধে প্রথম প্রতিবাদ শেখ মুজিবুর রহমান। বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ, এই পবিত্র মাটিতে তিনি চির সবুজের মাঝে লালবৃত্ত। তিনি আমাদের প্রতিদিনের সুর্য্যােদয়ের হাসি। ৯নং পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক চসিক কাউন্সিলর জহুরুল আলম জসিম বলেন বলেন স্বাধীনতার ৪৬ বছরেও বাংলাদেশ শঙ্কামুক্ত নই। নানা ধরনের চক্রান্তের জাল বুনা হচ্ছে। মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে পাকিস্তানি সেনার শিবিরের মেহমান ও সেবাদাসী কুখ্যাত ঘসেটি বেগম এইসব চক্রান্তের মূল হুথা। তাকে বিচারের মুখোমুখি করে জাতিকে পাপমুক্ত করতে হবে। আওয়ামী লীগ নেতা ও চসিক মেয়রের একান্ত সচিব রায়হান ইউসুফ বলেন ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন হলেও নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতার যে আগুন জ্বালানো হয়েছে এতে বুঝা যাচ্ছে যারা নির্বাচন বানচাল করতে চেয়েছে তারা এখনও পিছু হটে নি। এরা বাংলাদেশ চাই না। গণতন্ত্রও তাদের কাছে কাম্য নই। এদেশকে ভালোবাসে না বলেই এদেশের মানুষ ও সম্পদের উপর তাদের কোন মমতা নেই। তাই আমাদেরকে বিভক্তির সব সীমা রেখা উভয়ে মুছে ফেলে সুদৃঢ় ঐক্যের ভিত্তিতে এই অপশক্তিকে নির্মূল করতে হবে। তা না হলে বাঙালি জাতিসত্তার অস্থিত্ব বিপন্ন হবে। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলার সভাপতি অনুপ বিশ্বাস‘র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক খোরশেদ আলম এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের দিবসের আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন নগর যুবলীগের সদস্য সুমন দেবনাথ, লিটন রায় চৌধুরী, আকবর শাহ থানা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আবু সুফিয়ান, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা জসিম উদ্দিন মিঠুন, স্বাক্ষর দাশ, জামালখান ওয়ার্ড মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শাহনারা বেগম, বলুয়ার দিঘী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক রিংকু ভট্টাচার্য্য, সংস্কৃতিকর্মী মাসুদ উদ্দিন হামেদ নেওয়াজ, কবি সজল দাশ, দিলীপ সেন গুপ্ত, দেবু বড়–য়া, শ্রাবণী দে প্রমুখ। আলোচনা সভা শেষে স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের দিবস উপলক্ষে আয়োজিত বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত করে শিশু কিশোর চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার বিজয়ী শিশু কিশোরদের ক্রেষ্ট ও সনদপত্র বিতরণ করা হয়।

কাওছার আক্তার মুক্তা// এসএমএইচ// বুধবার ১০ জানুয়ারি ২০১৮। ২৭ পৌষ ১৪২৪

Share.

Comments are closed.