অর্থ কষ্টের সম্মুখিন হওয়ার লক্ষণগুলো

0

লাইফস্টাইল ডেস্ক :

কথায় বলে অসুস্থতা হোক কী আনন্দ, জীবনকে নাড়িয়ে দেওয়া যে কোনও ঘটনা ঘটার আগে হাজারো লক্ষণ প্রকাশ পায়, আর তা যদি ঠিক ঠিক ভাবে বুঝে নিতে পারেন তাহলে আসন্ন বিপদ থেকে যে অনেকাংশেই রক্ষা পাওয়া সম্ভব হয়, সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। তাই তো আজ এই পবন্ধে অর্থনৈতিক সমস্যার সম্মুখিন হওয়ার আগে কী কী লক্ষণ প্রকাশ পেয়ে থাকে সে বিষয়ের উপর আলোকপাত করার চষ্টা করা হবে… জ্যোতিষশাস্ত্র অনুসারে অর্থ কষ্টের সম্মুখিন হওয়ার আগে সাধারণত যে যে লক্ষণগুলি প্রকাশ পেয়ে থাকে, সেগুলো হল…

১. পানি এবং বিদ্যুৎ: বারে বারে কি ইলেকট্রিকাল লাইন এবং পানির পাইপ রিপিয়ার করার প্রয়োজন পরেছে? তাহলে বন্ধু সাবধান হওয়ার সময় এসে গেছে।

২. স্ত্রীর সঙ্গে কথায় কথায় ঝগড়া: এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যকার সম্পর্ক যদি একেবারে ঠিক না যায়। সেই সঙ্গে কথায় কথায় ঝগড়া-ঝাটি বাড়তে থাকে, তাহলে বুঝতে হবে অর্থনৈতিক খারাপ সময় আসতে চলেছে। এক্ষেত্রে স্বামী বা স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে নিজেদের মধ্যকার সমস্যা মিটিয়ে ফেলার চেষ্টা করুন। না হলে একদিকে পারিবারির সমস্যা, অন্যদিকে অর্থ কষ্ট, এই দুইয়ের চাপে কিন্তু জীবন দুর্বিসহ হয়ে উঠতে সময় লাগবে না।

৩. সুযোগ হাত ছাড়া হতে থাকবে: হাতে আসতে আসতে একেবারে শেষ মুহূর্তে যদি একের পর এক সুযোগ হারাতে থাকেন, তাহলে সময় নষ্ট না করে নিজের অর্থনৈতিক অবস্থার দিকে নজর ফেরাতে শুরু করুন। কারণ এমনটা তখনই হয়, যখন মারাত্মক অর্থ কষ্ট আসার সম্ভাবনা বাড়ে।

৪. অ্যাংজাইটি অ্যাটাক: তেমন কোনও কারণ ছাড়াই কি অ্যাংজাইটি অ্যাটাকের মতো সমস্যা মাথা চাড়া দিয়ে উঠছে? সেই সঙ্গে নানা কারণে শরীরও কেমন যেন ভেঙে যাচ্ছে? তাহলে বন্ধু সাবধান হন! কারণ বিশেষজ্ঞদের মতে তেমন কোনও কারণ ছাড়াই শরীর ভেঙে যাওয়া, সেই সঙ্গে নানা ধরনের ছোট-বড় রোগ মাথা চাড়া দিয়ে ওঠার অর্থ হল মারাত্মক অর্থনৈতিক সমস্যা আসতে চলেছে। আর এমন পরিস্থিতিতে নিজেকে একটু গুছিয়ে না নিলে কিন্তু বেজায় বিপদ!

৫. স্যালাইভার উৎপাদন বেড়ে যাবে: জ্যোতিষশাস্ত্রের উপর লেখা একাধিক বইয়ে এমনটা উল্লেখ পাওয়া যায়, যে কোনও ধরনের অর্থ কষ্টের সম্মুখিন হওয়ার আগে নাকি মুখগহ্বরে স্যালাইভা উৎপাদন বেড়ে যায়। প্রসঙ্গত, অর্থনৈতিক সমস্যার সঙ্গে স্যালাইভার উৎপাদন বাড়া-কমার কী সম্পর্ক তা যদিও এখনও পর্যন্ত জেনে ওঠা সম্ভব হয়নি।

৬. পোষ্যের মৃত্যু: হঠাৎ করেই যদি পোষা কুকুর বা বিড়ালটা মারা যায়, তাহলে সাবধান! কারণ শাস্ত্র মতে এমনটা হওয়ার অর্থ হল খারাপ কিছু ঘটতে চলেছে বাড়িতে। আর সেই খারাপ কিছু অর্থনৈতিক সমস্যাও হতে পারে, আবার হতে পারে অন্য কিছু! তবে যা কিছুই হোক না কেন, এই সময় একটু সাবধানে থাকবেন। দেখে-শুনে রাস্তা পার করতেও ভুলবেন না। কারণ কোন দিক যে বিপদ আসবে, তা কিন্তু আমরা আগে থেকে জেনে উঠতে পারি না।

৭. ছাদ থেকে পানি পড়া: শুনতে অবাক লাগলেও এক কথা ঠিক যে ছাদ থেকে পানি পড়া একেবারেই শুভ ঘটনা নয়। তাই এমনটা যদি হয়ে থাকে, তাহলে নিজের ব্যাঙ্ক ব্যালেন্স দিকে নজর ফেরানোর সময় মনে হয় এসে গেছে বন্ধুরা। কারণ এমনটা হলে নানাবিধ অর্থনৈতিক সমস্যা মাথা চাড়া দিয়ে ওঠার আশঙ্কা বাড়ে। তাই বিপদ আসার আগে যদি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করে নিতে না পারেন, তাহলে কিন্তু বেজায় কষ্ট সইতে হবে।

৮. তর্জনীতে আঁচিল: হঠাৎ করেই যদি তর্জনীতে আঁচিল প্রকাশ পেতে শুরু করে তাহলে অর্থ সঞ্চয়ের দিকে নজর দিতে হবে। কারণ বিশেষজ্ঞদের মতে এমনটা হওয়ার অর্থ হল খুব শীঘ্র কোনও টাকা-পয়সা সংক্রান্ত সমস্যা আপনার জীবনে প্রবেশ করতে চলেছে।

৯. সোনার গয়না হারিয়ে ফেলা: হঠাৎ করেই কি কানে থাকা সোনার দুলটা খুঁজে পাচ্ছেন না? তাহলে টাকা-পয়সা নিয়ে একটু সাবধান হতে হবে। কারণ সোনার কোনও গয়না হারিয়ে ফেলার সঙ্গে অর্থ কষ্টের যোগ নাকি বেজায় নিবিড়।

সাব্বির// এসএমএইচ//১২ই মার্চ, ২০১৮ ইং ২৮শে ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

Share.

Comments are closed.