ডিমের সেঞ্চুরি, দাম চড়া কাঁচা মরিচের

0

নিজস্ব প্রতিবেদক :

রাজধানীর পাইকারি ও খুচরা উভয় বাজারে ডিমের দাম রোজার মাসের তুলনায় ডজনে (১২টি) ৪০ টাকা বেড়েছে। রোজায় ৭০ টাকার নিচে বিক্রি হওয়া ডিমের ডজন এখন ১০০ টাকা ছাড়িয়েছে। এদিকে কয়েক সপ্তাহ যাবত বেড়েছে কাঁচা মরিচের দাম। বিভিন্ন বাজারে কাঁচামরিচ প্রতিকেজি বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকার ওপরে।
শুক্রবার রাজধানীর কারওয়ানবাজার, হাতিরপুল, নিউমার্কেটসহ বিভিন্ন বাজার ঘুরে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।
ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, রোজায় ডিমের ডজন বিক্রি হয় ৬৫-৭০ টাকায়। তবে ঈদের পর ডিমের দাম কয়েক দফা বেড়েছে। আর শেষ সপ্তাহে ডজনে ডিমের দাম বেড়েছে ৫-৭ টাকা। এতে এক ডজন ডিমের দাম বেড়ে এখন বিক্রি হচ্ছে ৯৫-১০০ টাকায়। খুচরা দোকানে ডিমের দাম আরও বেশি।
ডিম ব্যবসায়ী মো. সাবু বলেন, রোজায় ডিম যে দামে কিনে আনতাম এখন তার দ্বিগুণ হয়েছে। ডিমের দাম এতটাই বেড়েছে যে, এক ডজন ডিম ৯৫ টাকার নিচে বিক্রি করার উপায় নেই। অথচ ঈদের পরও কিছুদিন ডিমের ডজন ৭০ টাকায় বিক্রি করেছি।
এদিকে খুচরা পর্যায়ে মুদি দোকানে ডিমের দাম বেড়ে প্রতিপিস বিক্রি হচ্ছে ১০ টাকায়। ব্যবসায়ী শামছু বলেন, এখন আমাদের একপিস ডিম কিনতেই খরচ পড়ছে ৮ টাকা। সুতরাং ১০ টাকার নিচে একপিস ডিম বিক্রি করা সম্ভব হচ্ছে না।
এদিকে গত সপ্তাহের মতো শুক্রবারও ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, আড়তে মরিচের সরবরাহ কম, যে কারণে দাম চাড়াই রয়েছে। গত সপ্তাহে ১৪০-১৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া কাঁচামরিচের দাম একই রয়েছে। আর এক পোয়ার (২৫০ গ্রাম) হিসাবে মরিচ বিক্রি হচ্ছে ৪০-৪৫ টাকায়।
মরিচের এমন দামের বিষয়ে ব্যবসায়ী মো. জব্বার বলেন, বাজারে এখন মরিচের অভাব নেই। তবে দাম একটু বেশি। অবশ্য এখন মরিচের ঝাল বেশি। কারণ এখনকার সব মরিচই বাত্তি (পরিপক্ব)।

সাব্বির// এসএমএইচ// ২২শে জুলাই, ২০১৮ ইং ৭ই শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Share.

Comments are closed.