চট্টগ্রামে মাদ্রাসা ছাত্রকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ

0

চট্টগ্রাম ব্যুরো :

চট্টগ্রাম নগরীর হালিশহরের একটি মাদ্রাসায় নির্যাতন করে শাহরিয়ার আলম (১৪) নামের এক কিশোরকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। রবিবার (৯ সেপ্টেম্বর) গভীর রাতে নগরীর হালিশহর থানার নয়াবাজার এলাকার নাহাদাতুল উম্মে মাদ্রাসায় এই ঘটনা ঘটেছে। শাহরিয়ার ওই মাদ্রাসার হেফজখানার শিক্ষার্থী ও নগরীর এনায়েতবাজার এলাকার শাহীন আলমের ছেলে।
হালিশহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজুর রহমান বলেন, মাদ্রাসা কতৃর্পক্ষ আমাদের জানিয়েছে, ছেলেটি তাদের হোস্টেলের একটি কক্ষে ভেন্টিলেটরের সঙ্গে লুঙ্গি বেঁধে সেটির সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। কিন্তু ছেলেটির মা-বাবা বলেছেন, তাকে হোস্টেলের ভেতর নির্যাতন করে মেরে ফেলা হয়েছে। যেহেতু হত্যার অভিযোগ উঠেছে, লাশ ময়নাতদন্ত করা হবে। হত্যা মামলা দায়ের করা হচ্ছে।
শাহরিয়ারের মা শারমিন আক্তার বলেন, ‘রবিবার রাত সাড়ে এগারটার দিকে নাহাদাতুল উম্মে মাদ্রাসার মনির হুজুর আমাকে মোবাইলে ফোন করে বলেন, আমার ছেলে অসুস্থ। পরে এ খবরে আমরা বাসা থেকে মাদ্রাসার হোস্টেলে যাই। সেখানে গিয়ে দেখি আমার ছেলেকে পিটিয়ে আঘাত করে শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করেছে। পরে ছেলেকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসার চমেক হাসপাতালে নিয়ে যাই।
এ বিষয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়িতে দায়িত্বরত এএসআই আলাউদ্দিন তালুকদার জানান, রবিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে শাহরিয়ারকে হাসপাতালে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। তার গলায় জখমের চিহ্ন আছে।
তিনি আরো বলেন, মাদ্রাসার লোকজনই তাকে হাসপাতালে এনেছিল। তারা বলেছে, শাহরিয়ার আত্মহত্যা করেছে।

সাব্বির// এসএমএইচ//১০ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং ২৬শে ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Share.

Comments are closed.