বাংলাদেশ ক্রিকেট শিবিরে শুধুই দুঃসংবাদ!

0

ক্রীড়া ডেস্ক :

ইনজুরির সাথে লড়াই করছেন দেশসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। বাঁ-হাতের কনিষ্ঠা আঙুলে পুরোনো ইনজুরির জায়গায় সংক্রমণ হওয়ায় উন্নত চিকিৎসা নিতে তিনি গেছেন অস্ট্রেলিয়ায়।

সর্বশেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে ডাক্তার গ্রেগ হয়ের অধীনে চিকিৎসা নিচ্ছেন সাকিব। জানা গেছে, সাকিবের হাতের অবস্থা আগের থেকে এখন বেশ ভালো। কিন্তু পুরোপুরি সেরে উঠতে তার আরো সময় লাগবে।

তবে কি জিম্বাবুয়ে ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলবেন না সাকিব? এমন প্রশ্ন এখন দেশের সকল ক্রিকেট প্রেমীদের মনে।

জানা গেছে, এই বছর আর মাঠে ফিরতে পারবেন না সাকিব। তবে স্বস্তির খবর হল-যদি সাকিবের হাতে পুনরায় কোনো সমস্যা দেখা না দেয় তাহলে পুনর্বাসন প্রক্রিয়া শেষে তিন মাস পর মাঠে ফিরতে পারবেন তিনি।

তার মানে সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী জানুয়ারিতে অনুষ্ঠেয় বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) মাধ্যমে মাঠে ফিরতে পারবেন তিনি।

তবে সংক্রমণ পুরোপুরি সেরে ওঠার পর চিকিৎসকরা যদি মনে করেন সাকিবের হাতে অস্ত্রোপচার প্রয়োজন তাহলে ২০১৯ সালে ইংল্যান্ড ও ওয়েলসে অনুষ্ঠেয় আইসিসি বিশ্বকাপেও সাকিবের খেলা নিয়ে অনিশ্চয়তা থাকবে।

গত জানুয়ারিতে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল ম্যাচে ফিল্ডিং করার সময় বাম হাতের কনিষ্ঠা আঙুলে চোট পেয়ে মাঠ ছেড়েছিলেন সাকিব আল হাসান। এরপর বেশ কিছুদিন তিনি ছিলেন মাঠের বাইরে। ইনজুরি কাটিয়ে তিনি মাঠে ফেরেন গত মার্চে। খেলেন নিদাহাস ট্রফিতে। এরপর অংশ নেন ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল)। তারপর আফগানিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজে তিনি অংশ নেন।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ চলাকালে সাকিবের হাতে পুনরায় সমস্যা দেখা দেয়। ওয়েস্ট ইন্ডিজ-যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে দেশে ফিরে সাকিব আল হাসান জানিয়েছিলেন, এশিয়া কাপের আগেই তিনি অস্ত্রোপচার করাতে চান। কিন্তু পরবর্তীতে তিনি এশিয়া কাপে অংশ নেয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

এশিয়া কাপে খেলতে গিয়ে সাকিবের হাতের অবস্থা আরো খারাপ হওয়ায় টুর্নামেন্টের মাঝপথেই তিনি দেশে ফিরে আসেন। দেশে ফিরে টাইগার অলরাউন্ডার ভর্তি হন রাজধানীর অ্যাপোলো হাসাপাতালে। চিকিৎসকরা তার হাত থেকে পুঁজ বের করেন। এরপর তিনি চলে যান অস্ট্রেলিয়ায়।

শুধু যে ইনজুরিতে সাকিব আল হাসান আছেন তেমন কিন্তু নয়, রয়েছেন তামিম ইকবালও। জিম্বাবুয়ে সিরিজে তাকেও হয়তো দেখা যাবে না। তবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তামিম খেললেও সেটি হয়তো ওয়ানডে সিরিজ শেষে টেস্টে দেখা যেতে পারে।

এদিকে পাঁজরে ব্যথা নিয়ে এশিয়া কাপ মাতিয়েছেন মুশফিকুর রহিম। জিম্বাবুয়ে সিরিজ সামনে রেখে তিনি ইতোমধ্যে অনুশীলন শুরু করে দিয়েছেন। মাশরাফি বিন মুর্তজারও রয়েছে ইনজুরি। তবে নতুন কোনো সমস্যা দেখা না দিলে এশিয়া কাপে তিনি খেলবেন। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদেরও পিঠে ব্যথা। তবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাঠে নামতে প্রস্তুত তিনি।

টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। জিম্বাবুয়ে ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিনি না থাকায় টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে অধিনায়কের দায়িত্ব দেয়া হতে পারে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে। এর আগেও সাকিব না থাকায় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হোম সিরিজে ও নিদাহাস ট্রফিতে অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেছিলেন রিয়াদ। এবারও দায়িত্ব দেয়া হলে তা পালন করতে প্রস্তুত এই টাইগার অলরাউন্ডার।

সাব্বির// এসএমএইচ//১১ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং ২৬শে আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Share.

Comments are closed.