এখনই জেরুজালেমে সরছে না ব্রাজিলের দূতাবাস

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ব্রাজিলের নতুন প্রেসিডেন্ট জেইর বোলসোনারো ইসরায়েল সফর করেছেন। উগ্রবাদী ও কট্টর ইসরায়েলপন্থী জেইরকে অনেকেই বলেন ‘ব্রাজিলের ট্রাম্প’।

ট্রাম্পের অনুসরণ করে জেইর চলতি বছরের প্রথম দিকে বলেছিলেন, ব্রাজিলও আল-কুদস বা বায়তুল মুকাদ্দাসকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিতে তার দূতাবাস তেলআবিব থেকে আল-কুদসে সরিয়ে নেবে। মার্কিন সরকার গত বছরের ১৮ মে মার্কিন দূতাবাসকে তেলআবিব থেকে আল-কুদসে সরিয়ে আনে।

ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট তার দেশে ফিলিস্তিনের দূতাবাসও বন্ধ করবেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছিল। জেইর গত গ্রীষ্মে বলেছিলেন, ফিলিস্তিন কী একটি দেশ যে এখানে তার দূতাবাস থাকতে হবে?

কিন্তু জেইর যতটা গর্জেছেন ততটা বর্ষণ করতে পারেননি। রোববার ইসরায়েল সফরে এসে তিনি আল-কুদস বা বায়তুল মুকাদ্দাসে ব্রাজিলের একটি বাণিজ্য-দপ্তর খুলেছেন এবং পুরো দূতাবাস স্থানান্তরের বিষয়টি স্থগিত রেখেছেন। যদিও ইসরায়েলি সংবাদ মাধ্যমগুলো বলছে, ওই বাণিজ্য-দপ্তর ব্রাজিলের দূতাবাসেরই অংশ। জেইর ইসরায়েল সফরের আগ মুহূর্তে বলেছিলেন, দূতাবাস স্থানান্তরের বিষয়টি এখনও বিবেচনাধীন। উল্লেখ্য, প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর এটাই ছিল জেইরের প্রথম রাষ্ট্রীয় সফর।

সম্প্রতি ট্রাম্প সিরিয়ার গোলান মালভূমির ওপর ইসরায়েলের দখলদারিত্বকে বৈধ বলে স্বীকৃতি দিয়ে বিশ্বব্যাপী ব্যাপক ধিক্কার ও নিন্দা কুড়িয়েছেন। তাই জেইরও বিশ্বব্যাপী ধিক্কার ও নিন্দা এবং অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক বিবেচনা মাথায় রেখে ইসরায়েলের ব্যাপারে ট্রাম্পের অনুসরণের ক্ষেত্রে ধীরে চলার নীতি গ্রহণ করেছেন বলেই মনে করা হচ্ছে।

ট্রাম্পের অতি-ইসরায়েল-বান্ধব পদক্ষেপগুলোকে অনেকেই আগুন নিয়ে খেলার শামিল বলে মনে করছেন। ব্রাজিলের ভাইস প্রেসিডেন্ট হ্যামিল্টন মুরায়ো গত ফেব্রুয়ারি মাসে বলেছিলেন, তার দেশের দূতাবাস আল-কুদসে স্থানান্তরের চিন্তাটি অনুপযুক্ত ও খারাপ ধারণা এবং এর ফলে আরব বিশ্বে ব্রাজিলের মাংস রপ্তানির ওপর আঘাত আসবে। আরব বিশ্বে মাংস রপ্তানি করে ব্রাজিল বছরে প্রায় ৫ হাজার কোটি ডলার আয় করে।

 

নিলা চাকমা/এসএমএইচ/, মঙ্গলবার, ০২ এপ্রিল ২০১৯, ১৯ চৈত্র ১৪২৫

Share.

Comments are closed.