২০ দল দেশে সত্যিকারের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার স্বার্থে ঐক্যবদ্ধ :নজরুল ইসলাম

0

বিডি জার্নাল প্রতিবেদন:

বিএনপি নেতা ও ২০ দলের সমন্বয়কারী নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘২০ দল ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মধ্যে কোনও টানাপোড়েন নেই। ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এবং ২০ দলের সমন্বয়কারী আমি। কাউকেই বিশেষ গুরুত্ব নয়, আমরা পাশাপাশি আন্দোলন সংগ্রাম চালিয়ে যাব।’

সোমবার রাতে গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে জোটের বৈঠকের পর সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান এ কথা জানান। সর্বশেষ গত ৩১ জানুয়ারি জোটের বৈঠক হয়।

তিনি বলেন, ‘সভায় জোটনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবনতিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে এবং সুচিকিৎসার স্বার্থে অবিলম্বে তার নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছে। এই দাবিতে জোটগতভাবে এবং জোটের শরিক দলগুলো নিজ নিজ উদ্যোগে কর্মসূচি করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।’

নজরুল ইসলাম আরও বলেন, ‘আমরা মনে করি যে, দেশনেত্রীর মুক্তির সঙ্গে গণতন্ত্রের মুক্তি একাকার হয়ে গেছে। আমরা গণতন্ত্রের মুক্তি চাই। ২০ দল দেশে সত্যিকারের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার স্বার্থে ঐক্যবদ্ধ গণআন্দোলন গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।’

বৈঠক সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন বৈঠক না হওয়া এবং একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন প্রক্রিয়া নিয়ে ২০ দলের শরিক নেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। ক্ষুব্ধ শরিক নেতাদের বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বাস্তবতার নিরীখে কৌশলগত অবস্থানের কথা জানান।

আগামী দুই সপ্তাহ পর মানববন্ধন, বিক্ষোভ, কালোপতাকা প্রদর্শন, প্রতিবাদ সভার মাধ্যমে ২০ দল আন্দোলনে সক্রিয় হবে।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন জোটের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান, জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) মোস্তফা জামাল হায়দার, জামায়াতে ইসলামীর আবদুল হালিম, কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, এলডিপির রেদোয়ান আহমেদ, জমিয়তে উলামায়ে মাওলনা নুর হোসেইন কাশেমী, মাওলানা মহিউদ্দিন একরাম, খেলাফত মজলিশের আহমেদ আবদুল কাদের, এনপিপির ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, লেবার পার্টির মুস্তাফিজুর রহমান ইরান, ন্যাপ-ভাসানী আজহারুল ইসলাম, জাগপার খন্দকার লুৎফর রহমান প্রমুখ।

 

 নিলা চাকমা/এসএমএইচ/  মঙ্গলবার, ০৯ এপ্রিল ২০১৯, ২৬ চৈত্র ১৪২৫

Share.

Comments are closed.