দগড়ের দুর্গম জনপদে জ্ঞানের আলো ছড়ায় আল-আমিন একাডেমী

0

আব্দুর রশিদ  (বান্দরবান  প্রতিনিধি)

রামু উপজেলার ইদগড় ইউনিয়নের দুর্গম জনপদ পুর্ব হাচনা কাটায় অবস্থিত আল-আমিন একাডেমী।  শিক্ষা দীক্ষায় পিছিয়ে রয়েছে এই জনপদের শিশুকিশোর কিশোরীরা। অবহেলিত জনপদের লোকজনের শিশুদের কথা চিন্তা করে ২০১৫ সালে স্থানীয়দের পরামর্শ নিয়ে মাওলানা জাফর আলম আল-আমিন একাডেমী প্রতিষ্ঠা করেন।

প্রতিষ্ঠানটির সার্বিক সহযোগিতা করছেন তারই পুত্র মোঃ ইউছুপ। চারজন শিক্ষক ও বর্তমানে ২০৭ জন ছাত্র ছাত্রী রয়েছে উক্ত প্রতিষ্ঠানে এবং ৪র্থ শ্রেনী পর্যন্ত নিয়মিত পাঠদান চলছে।

আল-আমিন একাডেমীতে রয়েছে বাংলা শিক্ষার পাশাপাশি ধর্মীয় শিক্ষা, নুরানী, হেফজ বিভাগ সহ প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা ও কোরআন ছহি শুদ্ধ ভাবে পড়া।

গতকাল এই প্রতিবেদক সরজমিনে গিয়ে আল-আমিন একাডেমীর পরিচালকের দায়িত্ব থাকা মাওলানা নুরুল আলমের সাথে কথা বলে আরো জানা যায় দুর্গম জনপদের ঝরে পড়া শিশুদের নিয়ে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন বিগত ৩বছর যাবৎ এবং অভিভাবকদের অনেক বুঝিয়ে শিশুদের প্রতিষ্ঠান মুখি করেছেন। তাছাড়া গরিব মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের জন্য বিনা মূল্যে পড়াশুনা ও খাতা কলমের ব্যবস্থা রয়েছেন বলেও তিনি জানান।

বর্তমানে ৪র্থ শ্রেনী পর্যন্ত চালু রয়েছে। আগামীতে অষ্টম শ্রেনী পর্যন্ত চালু করার চিন্তা করে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি আরো বলেন, রামু উপজেলা শিক্ষা অফিস থেকে ছাত্র-ছাত্রীদের বিনা মুল্যে বই গুলু পেয়েছেন। অন্যান্য ভাবে আর কোন সহযোগিতা পাই নাই।

সবকিছু স্থানীয়দের সহযোগিতায় কোন রকম চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে স্থানীয় চেয়ারম্যান ফিরুজ আহমদ ভুট্টু, মাদ্রাসাটি পরিদর্শনের পর কিছু আর্থিক সহযোগিতা দেওয়ার জন্য অশ্বস্থ করেছেন বলে ও জানান।

পরিচালনা কমিটির সদস্য সাবেক ইউপি সদস্য নুরুল আমিন বলেন, বর্তমানে প্রতিষ্টানটিতে অনেক সমস্যা রয়েছে, যেমন বিশুদ্ব পানীয় জলের ব্যবস্থা, বসার স্থান, পর্যাপ্ত পরিমান টয়লেট, বাথরুম, খেলাধুলার জন্য মাঠ, ভবন, রাস্তাঘাট সহ অনেক কিছু এখনো অপরিপূর্ণ।

তাছাড়া শুকনো মৌসুম কোন রকম কাটলেও বর্ষা মৌসুম শুরু হলে রাস্তাঘাট সংস্কার না থাকায় চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় ছাত্র ছাত্রীদের।

সব মিলিয়ে প্রতিষ্টানটিতে নানা সমস্যায় জর্জরিত ও অবহেলিত অবস্থা লক্ষ করা যায়। তবে প্রতিষ্ঠানটিতে শত কষ্ট করে ও শিক্ষকেরা নিয়মিত পাঠদান দিয়ে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দুর্গম জনপদের ঝরে পড়া রুধ সহ এলাকাও আলোকিত করছেন।

এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান ফিরুজ আহমদ ভুট্টু বলেন, প্রতিষ্ঠানটি হওয়াতে এলাকায় আলোকিত হয়েছে। অসহায় লোকজনের ছেলে মেয়েদের পড়া লেখার সু-ব্যবস্থা হয়েছে তিনি ও আগামীতে সহযোগিতা করবেন বলে জানান।

আল আমিন একাডেমীর পরিচালনা কমিটির সদস্যরা সরকারের সহযোগীতার পাশাপাশি বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহবান জানান।

 

 

নিলা চাকমা/এসএমএইচ/,  মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ১০ বৈশাখ ১৪২৬,

Share.

Comments are closed.