এক রাতে বন্দুক যুদ্ধে খুন তিন

0

রাজধানীর মোহাম্মদপুর, নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা ও কুমিল্লা সদরে কথিত বন্দুকযুদ্ধে তিন ব্যক্তি নিহত হয়েছেন বলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার ভোরে মোহাম্মদপুরের বছিলা গার্ডেন সিটি এলাকায় সেভেন স্টার বাহিনীর সঙ্গে ওই কথিত বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে বলে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) সদর দপ্তর থেকে পাঠানো এক খুদে বার্তায় দাবি করা হয়েছে।

অন্যদিকে নারায়ণগঞ্জের জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, আজ ভোররাতে ফতুল্লার দাপা বালুর মাঠ এলাকায় কথিত বন্দুকযুদ্ধে আরেক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন।

এ ছাড়া কুমিল্লার রাজাপাড়া এলাকায় ভোররাত ৩টার দিকে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক ‘মাদক ব্যবসায়ী’ নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে সদর দক্ষিণ মডেল থানা পুলিশ।

ঢাকায় নিজস্ব সংবাদদাতা র‍্যাবের খুদে বার্তার বরাত দিয়ে জানান, মোহাম্মদপুরের বছিলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ব্যক্তির নাম তানভীর আহম্মেদ অনিক (৩৬)। তিনি স্থানীয় সেভেন স্টার নামক ‘শীর্ষ সন্ত্রাসী বাহিনী’র প্রধান।

খুদে বার্তায় আরো দাবি করা হয়, ওই ‘বন্দুকযুদ্ধে’ র‍্যাবের দুই সদস্য আহত হন। ঘটনাস্থল থেকে দেশি পিস্তল, বিদেশি রিভলভার ও গুলিসহ ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে মোহাম্মদপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সাহিদুল ইসলাম বলেন, ‘আজ ভোর পৌনে ৪টার দিকে র‍্যাব-২-এর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় ওই ব্যক্তি মারা যান। তাঁর মরদেহ বর্তমানে শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল মর্গে রাখা আছে। সুরতহাল প্রতিবেদনে নিহতের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ছয়টি গুলির চিহ্ন পাওয়া গেছে।’

অন্যদিকে নারায়ণগঞ্জ থেকে নাফিজ আশরাফ জানান, সেখানে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ব্যক্তির নাম লিপু। ডিবি পুলিশ তাঁকে ডাকাত দলের সদস্য বলে দাবি করেছে। তিনি ফতুল্লার পিলকুনি এলাকার বাসিন্দা। তাঁর বিরুদ্ধে মাদক, ডাকাতিসহ ১৫টি মামলা রয়েছে।

আজ সকালে ডিবি পুলিশের পরিদর্শক এনামুল হক দাবি করেন, বুধবার লিপুকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাঁর দেওয়া তথ্যানুযায়ী, আজ ভোররাতে মাদক ও অস্ত্র উদ্ধারে অভিযান চালায় পুলিশের একটি দল। দাপা বালুর মাঠ এলাকায় পৌঁছলে লিপুর সহযোগীরা তাঁকে ছিনিয়ে নিতে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। গোলাগুলির একপর্যায়ে লিপুর সহযোগীরা পালিয়ে যায়।

‘এ সময় লিপুকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় লিপুকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন,’ যোগ করেন পরিদর্শক।

এদিকে কুমিল্লা থেকে জালাল উদ্দিন পুলিশের বরাত দিয়ে জানান, সেখানে নিহত ব্যক্তির নাম তোফায়েল (২৩)। আজ ভোররাতের দিকে রাজাপাড়ার দক্ষিণ চৌমুহনী মোড়ে ওই ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে।

সদর দক্ষিণ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন অর রশিদ দাবি করেন, আজ ভোররাতের দিকে দক্ষিণ চৌমুহনী মোড়ে মাদক উদ্ধারে অভিযান পরিচালনা করে পুলিশ। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ী তোফায়েল ও তাঁর সহযোগীরা পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এ সময় পুলিশের চার সদস্য আহত হন। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে গুলি ছোড়ে। এতে একপর্যায়ে তোফায়েল গুলিবিব্ধ হন।

পরে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিৎসক তোফায়েলকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত ব্যক্তি পুলিশের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী বলে জানান ওসি। তাঁর বিরুদ্ধে থানায় ছয়টির অধিক মামলা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

Share.

Comments are closed.