সাপ দেখার পর পার্কে হাঁটা বন্ধ করলেন মমতা

0

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক :

পশ্চিমবঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সবাই একজন ডাকসাইটে সাহসী নেত্রী হিসেবেই চিনে থাকেন। আর সেই মমতাই কিনা সাপ দেখার পর কলকাতার বিখ্যাত ইলিয়ট পার্কে হাঁটা বন্ধ করে দিয়েছেন।

সোমবার সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে মত বিনিময়ের সময় এ তথ্য দেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মমতা।

তিনি স্বাস্থ্য দফতরের কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাপের কামড়ের চিকিৎসা নিয়ে কথা বলছিলেন। এ সময় তিনি বলেন, ‘আগে ইলিয়ট পার্কে হাঁটতে যেতাম। এখন আর যাই না। বিশেষ করে গরম কালে বা বর্ষায়। কারণ, একদিন গিয়ে দেখি, তিনটে সাপ ফণা তুলে দাঁড়িয়ে আছে! একটা সাপ তো সাঁতার কেটে উঠছে পুকুর থেকে!’

এক সময় বাড়িতে যাওয়ার আগে মাঝেমধ্যে ইলিয়ট পার্কে হাঁটতেন মুখ্যমন্ত্রী। ব্যাডমিন্টন কোর্টও তৈরি হয়েছিল তার জন্য। কিন্তু ফনা তোলা সাপ দেখার পর পার্কে হাঁটাই বন্ধ করে দিলেন সাহসী মমতা।

তিনি বলেন,‘পুলিশ বলেছিলো ওগুলো ঢোড়া সাপ। আমি বললাম, মোটেই না। যেগুলো ফণা তুলে দাঁড়িয়ে থাকে, সেগুলো বিষধর সাপ। দু’‌টো সাপ দেখছি তেড়েই যাচ্ছে! একটা দেখি, ফণা তুলছে। কার্বলিক অ্যাসিড দিলেও এদের কিছু হবে না।’

তার কথায়, ‘সাপ শরীরের যে-কোনও জায়গায় কামড়াতে পারে। অধিকাংশ ক্ষেত্রে পায়েই কামড়ায়। এটা আমার পক্ষে ডেঞ্জারাস। আমি তো সারাক্ষণ হাওয়াই চটি পরে ঘুরে বেড়াই!’

আর এ আতঙ্ক থেকেই পার্কে ঘোরা বাদ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যের গ্রামগঞ্জে মাঠে কর্মেরত কৃষকদের নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন মমতা। তিনি বলেন, চাষিরা খালি পায়ে জমিতে কাজ করেন। মাঠে জলের মধ্যে বা ফসলের গোড়ায় সাপ লুকিয়ে থাকলে বোঝা যায় না। তাই তিনি সাপের কামড় থেকে চাষীদের বাঁচাতে তাদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারি কর্মকর্তাদের তাগিদ দেন। সাপের কামড়ের চিকিৎসা নিয়ে আরও গবেষণা দরকার বলেও মনে করেন মুখ্যমন্ত্রী।

 সাব্বির//২রা জুলাই, ২০১৯ ইং ১৮ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Share.

Comments are closed.