ঈদের আমেজ বাড়ায় মসলা, জেনে নিন দাম

0

অনলাইন ডেস্ক

বিভিন্ন খাবারের স্বাদ ভিন্ন থেকে ভিন্নতর হওয়ার কারণ মসলা। তাই ঈদের উৎসবের আনন্দকে বাড়াতে খাবারের টেবিলে যেমন থাকে নানা পদের খাবার তেমনি তাতে লুকিয়ে থাকে নানা রকম মসলার সংমিশ্রণ। কোরবানি ঈদ আর রোজার ঈদ যেটাই হোক কেন মসলার প্রয়োজন আবশ্যক। তবে কোরবানি ঈদে সবচেয়ে বেশি দরকার হরেক রকম মশলা।

এদিকে দরজায় কড়া নাড়ছে কোরবানি ঈদ। বাজার থেকে আরম্ভ করে পশুর হাটে কোরবানির পশু কেনা সবই চলছে নিজস্ব গতিতে। আর কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে ভিড় বাড়ছে মসলার বাজারে।

এসব মসলা পাইকারি বাজার থেকে খুচরা বাজার সব স্থানেই সহজলভ্য। তবে ঈদ আসলে দামটা একটু বেড়ে যায়।

জেনে নিন মসলার দরদাম:

রাজধানীর কাঁঠালবাগান বাজার, চকবাজার, কারওয়ান বাজার, ঠাটারি বাজার, টঙ্গী বাজার ও অনলাইন মসলা বাজারের দামের ভিত্তিতে:- পেঁয়াজ ৪০ টাকা থেকে ৫০ টাকার মধ্যে ওঠা নামা করছে দাম। রসুন ১৮০ টাকা থেকে ২০০ টাকা। আদা ১৬০ টাকা ১৮০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। জিরা সাড়ে ৪০০ টাকা থেকে ৫০০টাকা। হলুদ গুঁড়া হলুদ ৪২০ থেকে ৫০০ টাকা কেজি করে বিক্রি হচ্ছে। মরিচ হলুদের মতো মরিচও ৪২০ থেকে ৫০০টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে। জিরা ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা কেজি (মানভেদে)। তেজপাতা ২৫০টাকা থেকে ৩০০ টাকা প্রতি কেজি। লবঙ্গ প্রতি কেজি ৮৫০ টাকা থেকে ১ হাজার টাকা। দারচিনি ৩৮০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা বিক্রি হচ্ছে কেজিতে। এলাচ ১৪০০ টাকা থেকে ১৬০০ টাকা কেজি। মেথি ২৫০টাকা থেকে ৩০০ টাকা কেজি। গোল মরিচ (কালো) ৬০০ থেকে ৮০০ টাকা কেজি।গোল মরিচ (সাদা) ১০০০ টাকা থেকে ১২০০টাকা। সরিষা ৯০টাকা থেকে ১৩০ টাকা প্রতি কেজি। কালোজিরা ২৮০ টাকা থেকে ৩৫০ টাকা। কাবাবচিনি তিন হাজার টাকা থেকে সাড়ে চার হাজার পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি। স্টার অ্যানিস ১ হাজার টাকা থেকে ১৩০০ টাকা প্রতি কেজি। জয়ফল ১ হাজার টাকা থেকে ১২০০ টাকা পর্যন্ত। জয়ত্রি ১৬০০ টাকা থেকে ২০০০ টাকা। পাঁচফোড়ণ প্রতি কেজি ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকা পর্যন্ত।

এই মসলার সবগুলো চাইলে অনলাইনেও কিনতে পারবেন। সুপারশপগুলোতে আদা- রসুন ও পেঁয়াজ পেস্টও পাবেন। বিভিন্ন কোম্পানি বাজারজাত করছে মিক্সড মসলা। কাবাব, মেজবানি বা কালা ভুনার মতো মিক্সও পাবেন অনলাইন শপগুলোতে বা সুপারশপগুলোতে। নিজের প্রয়োজনমতো মসলা জোগাড় করে নিন।

সাব্বির=১০ই আগস্ট, ২০১৯ ইং ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Share.

Comments are closed.