পাকিস্তানের পক্ষে পোস্ট দিয়ে ধরা খেলেন নারী

0

অনলাইন ডেস্ক

পাকিস্তানের পক্ষে পোস্ট দেয়ার ঘটনায় ভারতের আসাম রাজ্যের গবেষক রেহানা সুলতানার বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। যদিও রাজ্যের গৌহাটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই নারী গবেষক সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টটি করেছিলেন ২০১৭ সালে। পরে তিনি সেটা মুছেও দিয়েছিলেন। কিন্তু দু’বছর আগের সেই পোস্টের জেরেই বিপদে পড়েছেন ওই নারী।

দু’বছর আগে ডিলিট করা ওই পোস্টের জেরে সম্প্রতি মামলা দায়ের হওয়ায় বিস্ময়ে হতবাক ওই গবেষক। রেহানার দাবি, আসামের নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) সংক্রান্ত কাজকর্মের সঙ্গে যুক্ত থাকার কারণেই তার বিরুদ্ধে প্রতিহিংসামূলক আচরণ করছে পুলিশ।

২০১৭ সালে রেহানা ওই পোস্টটি দিয়েছিলেন। তার দাবি, তিনি পাকিস্তানকে সমর্থন করে কিছু লেখেননি। বরং ক্রিকেটপ্রেমী হিসেবে ভরতের পরাজয়ে হতাশ হয়েই তিনি ওই পোস্ট করেছিলেন। এখন তার সেই ডিলিট করা পোস্ট নিয়ে মামলা হয়েছে এবং এর ভুল ব্যাখ্যা করছে আসামের পুলিশ ও প্রশাসন।

ওই পোস্টে গবেষক রেহানা লিখেছিলেন, ‘পাকিস্তানের জয়কে উদযাপন করতে আজ গোমাংস খেলাম। আমি কী খাব, সেটা নির্ভর করে আমার কী খেতে ভালো লাগে, তার উপর। কিন্তু গোমাংসের কথা শুনে বিতর্ক তৈরি করবেন না।’

রেহানার বলছেন, ‘২০১৭ সালের জুন মাসে ভারত-পাকিস্তানের একটি ম্যাচ হয়েছিল। ওই ম্যাচে বিরাট কোহালি কোনও রান করতে পারেননি এবং ম্যাচটা পাকিস্তান জিতেছিল। ভারতীয় ক্রিকেটের একজন ফ্যান হয়ে হারের হতাশা থেকেই ওই পোস্ট করেছিলাম।’

এখন গৌহাটির পুলিশ বলছে, স্থানীয় একটি খবরের ওয়েবাসাইটে সম্প্রতি ওই পোস্ট নিয়ে একটি খবর প্রকাশিত হয়। তাতে বলা হয়েছিল, সম্প্রতি ইদ-উল-আজহা উপলক্ষে রেহনা ওই পোস্ট করেছেন। সেই খবরের সূত্র ধরেই রেহনার বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

কাকতালীয় ভাবে আসামে এনআরসি-র বিরুদ্ধে একটি কবিতা শেয়ার করেছিলেন রেহনা। সেই ঘটনায় যে নয়জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছিল, তাতে রেহনার নামও ছিল।

সেই সূত্র ধরেই রেহনা বলেন, প্রকৃত ভারতীয়রা যাতে নাগরিকপঞ্জিতে অন্তর্ভুক্ত হতে পারেন, তার জন্য তিনি কাজ করেন। শুনানিতে তাদের সাহায্যও করেন তিনি। সেই কাজে তার মনোবল নষ্ট করতেই দু বছর আগের ঘটনায় তার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

সাব্বির=১৬ই আগস্ট, ২০১৯ ইং ১লা ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

 
Share.

Comments are closed.