ইসরাইলকে জেরুজালেমে তুর্কি প্রভাব ঠেকাতে বলল সৌদি

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক :

দখলকৃত পূর্ব জেরুজালেমে তুরস্কের প্রভাব বৃদ্ধির বিষয়ে ইসরাইলকে সতর্ক থাকতে বলেছে সৌদি আরব, জর্ডান ও ফিলিস্তিন।
ইসরাইলের হারেৎজ পত্রিকার উদ্ধৃতি দিয়ে আলজাজিরা জানিয়েছে, মধ্যপ্রাচ্যের দেশ তিনটি ভিন্ন ভিন্ন সময়ে ইসরাইলকে তুরস্ক সম্পর্কে হুঁশিয়ার করে।
হারেৎজের প্রতিবেদনে বলা হয়, আরব দেশ তিনটির উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা ইসরাইলকে বলেন, তুরস্ক ‘জেরুজালেমের আরব অধ্যুষিত এলাকাগুলোতে প্রভাব বিস্তার করছে’।
তারা মনে করেন, ‘জেরুজালেমের অধিকার দাবি করার জন্য’ এটা তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়িপ এরদোয়ানের একটা চাল।
সংশ্লিষ্ট ইসরাইলি সূত্র দাবি করেছে, তারা তুরস্কের প্রভাব বিস্তারের বিষয়ে অবগত আছে এবং তারা তুরস্কের বিভিন্ন পদক্ষেপ এক বছরেরও বেশি সময় ধরে পর্যবেক্ষণ করছে।
প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, জর্ডানের কর্মকর্তারা ইসরাইলের ধীর প্রতিক্রিয়া দেখানো নিয়ে মনঃক্ষুণ্ন। তারা এটাকে ‘গাড়ি চালাতে চালাতে ঘুমিয়ে পড়া’র সাথে তুলনা করছেন। ২০১৬ সালে ইসরাইলের সঙ্গে পুনারায় সুসম্পর্ক তৈরির চুক্তির পর থেকে এটা লক্ষণীয়।
ফিলিস্তিনি কর্মকর্তারাও দখলকৃত পূর্ব জেরুজালেমে তুরস্কের প্রভাব বিস্তার নিয়ে উদ্বিগ্ন রয়েছেন। আরব অধ্যুষিত এলাকাগুলোর ইসলামী সংগঠনগুলোকে অনুদান দিয়ে অথবা এরদোয়ানের একেপি পার্টির সঙ্গে ঘনিষ্ঠদের সেখানে ভ্রমণে যাওয়ার ব্যবস্থা করে দিয়ে সেখানে প্রভাব বিস্তার করছে।
ইসরাইলের প্রতিরক্ষা কর্মকর্তারা হারেৎজকে বলেন, ২০১৭ সালে এটা সবচেয়ে বেশি ছিল। তখন শত শত তুর্কি নাগরিক ওই শহরের ভেতরে ও আশেপাশের এলাকায় নিয়মিত বিচরণ করত। জেরুজালেমের আল-আকসা মসজিদে শুক্রবারের নামাজের সময় পুলিশের সাথে তাদের সংঘর্ষ ক্রমেই বেড়ে চলেছিল।
পরিচয় গোপন রাখার শর্তে পুলিশের একটি সূত্র পত্রিকাটিকে জানায়, তুর্কিরা সেখানে জমি বা বাড়ি কেনার চেষ্টা করছে এবং তাদের রাজনৈতিক ভিত্তি শক্তিশালী করছে।
তিনি আরও বলেন, ইসরাইলিরাও এতে উদ্বিগ্ন। কারণ তারা চায় না আরও একটা দেশ দখলকৃত জেরুজালেমের অধিকার দাবি করুক।
জর্ডানও তুরস্কের কর্মকাণ্ডে উদ্বিগ্ন। কারণ ইসলামের তৃতীয় সর্বোচ্চ পবিত্র স্থান জেরুজালেমের অভিভাবক তারা। তুরস্ক সেখানে প্রভাব বিস্তার করলে জেরুজালেমে জর্ডানের ভূমিকা হুমকির মধ্যে পড়তে পারে।
সৌদি আরব বিষয়টি চিন্তিত। কারণ জেরুজালেম সম্পর্কে এরদোয়ানের উচ্চাভিলাষের কারণে আরব ও মুসলিম বিশ্বে তার ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হতে পারে। এর ফলে, মানুষের মনে হতে পারে ইসরাইল ও ট্রাম্পের প্রশাসনের সামনে দাঁড়াতে পারে এমন একমাত্র নেতা এরদোয়ান যা সৌদি আরবের কাম্য নয়।

সাব্বির// এসএমএইচ//৩০শে জুন, ২০১৮ ইং ১৬ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Check Also

বিপদ জয় করে বিজয়ের দেশে ফিরে আসা

জার্নাল ডেস্ক : জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশ নেওয়া বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর জাহাজ ‘বিজয়’  সাক্ষাৎ বিপদ …

‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি’

জার্নাল ডেস্ক ‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি ‘।    এভাবেই নিজের হতাশার কথা  জানিয়েছেন বসনিয়ায় আটকে …