ইয়ার্ড থেকে পদ্মা সেতুর চতুর্থ স্প্যান জাজিরা প্রান্তে

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি:

মুন্সীগঞ্জ মাওয়া কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে পদ্মা সেতুর চতুর্থ স্প্যান জাজিরা প্রান্তে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

শনিবার (১২ মে) সকাল থেকে চতুর্থ স্প্যান নেওয়ার কাজ শুরু হয়। বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভাসমান ক্রেন ‘তিয়ান ই’তে করে এটিকে জাজিরা প্রান্তে নেওয়া হচ্ছে।

অন্যান্য স্প্যানের মতো চতুর্থ স্প্যানটিও (সুপার স্ট্রাইকার) ১৫০ মিটার দীর্ঘ। এটি বসানো হলে পদ্মাসেতুর ৬০০ মিটার দৃশ্যমান হবে। এদিকে পাঁচ নম্বর স্প্যানের কাজও এগিয়ে চলছে। কাজ শেষ হলে এটিকে জাজিরা প্রান্তে ৪১ ও ৪২ নম্বর পিলারে বসানো হবে।

পদ্মাসেতু প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম জানান, আগামী দু-একদিন পর চতুর্থ স্প্যানটি ৪০ ও ৪১ নম্বর পিলারে বসানো হতে পারে।  তবে আবহাওয়ার ওপর নির্ভর করছে বিষয়টি।

এর আগে গত ১১ মার্চ পদ্মাসেতুর তৃতীয় স্প্যান (সুপার স্ট্রাকচার) ৭-সি বসানো হয়। এর মাধ্যমে দৃশ্যমান হয় পদ্মাসেতুর ৪৫০ মিটার। স্প্যানটি ৩৯ ও ৪০ নম্বর পিলারের উপরে বসানো হয়। দ্বিতীয় স্প্যানটি বসানো হয় গত ২৮ জানুয়ারি। সেতুর ৩৮ ও ৩৯ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হয় স্প্যানটি।

২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর পদ্মাসেতুর ওপর প্রথম স্প্যানটি বসানো হয়। ৩৭ ও ৩৮ নম্বর পিলারের ওপর বসেছিল প্রথম স্প্যান।

উল্লেখ্য,পদ্মাসেতুর ৪২টি পিলারের ওপর স্প্যান বসবে ৪১টি। এর মধ্যে ৪০টি পিলার থাকবে নদীর ওপর ও বাকি দুটি নদীর তীরে। প্রায় ২৮ হাজার ৭৯৩ কোটি টাকা ব্যয়ে পদ্মাসেতুর নির্মাণ কাজ আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ হবে বলে আশা করা হচ্ছে। সেতুর মোট দৈর্ঘ্য ৬.২৫ কিলোমিটার।

Check Also

বিপদ জয় করে বিজয়ের দেশে ফিরে আসা

জার্নাল ডেস্ক : জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশ নেওয়া বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর জাহাজ ‘বিজয়’  সাক্ষাৎ বিপদ …

‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি’

জার্নাল ডেস্ক ‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি ‘।    এভাবেই নিজের হতাশার কথা  জানিয়েছেন বসনিয়ায় আটকে …