এবার দুশ্চিন্তা ভালো কলেজে ভর্তি নিয়ে

নিজস্ব প্রতিবেদক :

এসএসসি ও সমমানের উত্তীর্ণের পর ভালো মানের কলেজে ভর্তির চিন্তা চেপে বসেছে ছাত্রছাত্রীদের ওপর। ভালো ফলাফলের পরও পছন্দের কলেজে ভর্তি হওয়ার ব্যাপারে নিশ্চিত হতে পারছেন না শিক্ষার্থীরা। গত কয়েক বছরের মতো এ বছরও মাধ্যমিকে ফলাফলের ওপর ভিত্তি করেই কলেজ বরাদ্দ দেওয়া হবে ভর্তিচ্ছুদের। একাদশে ভর্তির জন্য পর্যাপ্ত আসন থাকলেও ভালো মানের কলেজে ভর্তির সুযোগ পাওয়া নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি অভিভাবকরাও। ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য অনলাইনে আবেদন করা যাবে আগামী ১৩ মে থেকে। আবেদন চলবে ২৪ মে পর্যন্ত। এ বছর এসএসসি ও সমমানে মোট ১৫ লাখ ৭৬ হাজার ১০৪ জন ছাত্রছাত্রী পাস করেছে। আর জিপিএ ৫ পেয়েছে এক লাখ ১০ হাজার ৬২৯ জন। ৪ থেকে শুরু করে ৫ এর নিচে জিপিএ পেয়েছে চার লাখ ৯৩ হাজার ৬১৭ জন। পর্যাপ্ত ভর্তিযোগ্য আসন থাকলেও এই ভালো ফল করা শিক্ষার্থীরা সবাই ভালো মানের কলেজে ভর্তির সুযোগ না পাওয়ার শঙ্কায় রয়েছেন। আন্তশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাবকমিটির সভাপতি অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক গতকাল বলেন, উচ্চমাধ্যমিকে (কলেজ, মাদ্রাসা ও ভোকেশনাল) এ বছর ভর্তিযোগ্য আসন রয়েছে ১৯ লাখের ওপরে। এসএসসি ও সমমান পাস করা শিক্ষার্থীদের চেয়ে সে হিসেবে কয়েক লাখ বেশি আসন রয়েছে। তাই কোনো ছাত্রছাত্রীকে ভর্তি নিয়ে ভোগান্তিতে পড়তে হবে না। সব শিক্ষার্থী পছন্দের কলেজে ভর্তি হতে পারবেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, একটি কলেজে ২০০ আসন থাকলে যদি এক হাজার জন ভর্তি হতে চায়, সেটি তো সম্ভব হবে না। তাই পছন্দের কলেজে সবাই ভর্তি হতে পারবে না। তবে ভালো মানের কলেজে ভর্তির ক্ষেত্রে ভালো ফলাফলধারী শিক্ষার্থীদের কোনো বেগ পেতে হবে না বলে জানান তিনি। শিগগিরই ভর্তি নীতিমালা শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও শিক্ষা বোর্ডগুলোর ওয়েবসাইটে দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি। গত ৩০ এপ্রিল একাদশে ভর্তি কমিটির বৈঠক থেকে জানা যায়, এ বছর শতভাগ মেধার ভিত্তিতে উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণিতে ছাত্রছাত্রী ভর্তি করা হবে। তবে কোটাধারীরা মেধায় ভর্তির সুযোগ না পেলে মূল আসনের বাইরে সংশ্লিষ্ট কলেজ নির্ধারিত কোটায় ভর্তি করতে পারবে। বিগত দিনে ১১ শতাংশ কোটা সংরক্ষণ থাকায় অনেক কলেজে আসন শূন্য থাকতে দেখা গেছে। এ কারণে এ বছর কোটা বাদ দিয়ে মেধার ভিত্তিতে ভর্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ভর্তিচ্ছুরা তিন দফায় পছন্দের কলেজে আবেদনের সুযোগ পাবেন। সর্বোচ্চ ১০টি ও সর্বনিম্ন পাঁচটি কলেজের জন্য প্রতিবারই www.xiclassadmission.gov.bd ওয়েবসাইটে আবেদন করতে হবে আগ্রহীদের। এ ছাড়া টেলিটক মোবাইল অপারেটর থেকেও আবেদন করা যাবে। অনলাইনে আবেদনের জন্য ১৫০ টাকা এবং মোবাইলে আবেদনে প্রতিটি কলেজের জন্য ১২০ টাকা ফি দিতে হবে।

প্রতিবারই শিক্ষার্থীদের বোর্ড নির্ধারিত ফি দিয়ে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। আগে একবার আবেদন ফি দিয়ে তিনবার কলেজ পছন্দ করতে পারত। এই সুযোগের কারণে অনেকেই বিষয়টি অবজ্ঞা করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিশ্চয়ন করত না। এতে মেধাবীরা বঞ্চিত হতো। কলেজে ভর্তি কার্যক্রম ২৭ জুন থেকে শুরু হয়ে ৩০ জুন শেষ হবে। ১ জুলাই থেকে ক্লাস শুরু হবে। গত বছরের মতো এবারও শিক্ষার্থীরা কলেজ নিশ্চয়ন করতে ১৮৫ টাকা নিবন্ধন ফি জমা দিতে হবে।

জানা গেছে, ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় এ শিক্ষাবর্ষে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তিতে পাঁচ হাজার টাকা, আংশিক এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানে নয় হাজার টাকা (বাংলা মাধ্যম) ও ১০ হাজার টাকা (ইংরেজি মাধ্যম) ভর্তি ফি নিধারণ করা হয়েছে। উন্নয়ন ফি তিন হাজার টাকার বেশি কোনো প্রতিষ্ঠান নিতে পারবে না। এ ছাড়াও মফস্বল ও পৌর এলাকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তিতে এক হাজার টাকা, জেলা সদরে দুই হাজার টাকা, ঢাকা ছাড়া অন্যান্য মেট্রোপলিটন এলাকায় তিন হাজার টাকা ভর্তি ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। সরকারি কলেজে সরকার নির্ধারিত প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী ভর্তি ফি নিতে হবে

সাইফুল//এসএমএইচ//৮ই মে, ২০১৮ ইং ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Check Also

বিপদ জয় করে বিজয়ের দেশে ফিরে আসা

জার্নাল ডেস্ক : জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশ নেওয়া বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর জাহাজ ‘বিজয়’  সাক্ষাৎ বিপদ …

‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি’

জার্নাল ডেস্ক ‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি ‘।    এভাবেই নিজের হতাশার কথা  জানিয়েছেন বসনিয়ায় আটকে …