করোনা পরিক্ষায় নেগেটিভ হলেন ওসি মহসিন

0

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ অাসায় আর দেরি না করে হোম কোয়ারান্টাইন থেকে মুক্ত হয়ে শুরু করেছেন অফিস।বলছি চট্টগ্রামের (সিএমপি)ওসি হিসেবে পরিচিত রোল মডেল কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীনের কথা।

গত ৩০শে মে করোনার মহামারীতে অাক্রান্ত হয়েছিল কোতোয়ালী থানার ওসির গাড়িচালক পুলিশ সদস্যের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। ওই সদস্যকে আইসোলেশনে পাঠানোর হয়।ঠিক ঐ সময়ে সংকট মুক্ত হওয়ার জন্য নতুনা পরীক্ষা করা হয় ওসি মহসীনের। নমুনা  দেওয়ার পাঁচ দিনের মাথায় রিপোর্ট এসেছে নেগেটিভ।

সিএমপির  কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন করোনা নেগেটিভের কথটি নিশ্চিত করেন।  এ নিয়ে করোনাকালে পর পর দুবারই রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে তার।

গাড়ি চালকের করোনা পজেটিভ হওয়ার পর থেকে টানা গত সাত দিন হোম কোয়ারান্টাইনে  ছিলেন ওসি মহসীন। শনিবার (৬ জুন) সকালে তার করোনার নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।

বিষয়টি নিশ্চিতের পর ওসি মহসীন নাগরিক নিউজ বিডিকে জানান, তিনি এখন পুরোপুরি সুস্থই আছেন এবং শারীরিক অবস্থাও ভালো অাছে। তাছাড়াও তিনি গত ২ জুন কোয়ারান্টাইনে থাকা অবস্থায় নিজের শারীরিক অবস্থা সম্পকেও নাগরিক নিউজ বিডিকে জানিয়েছেন।

যেহেতু গাড়ির চালক আক্রান্ত হয়েছে সেহুতু সর্তকতার অংশ হিসেবে পরীক্ষা করিয়েছিলেন। আর থানা কম্পাউন্ডের ভেতর ওসির বাংলোয় কোয়ারেন্টাইনে থাকা অবস্থায়  দায়িত্ব পালন করছিলেন।

বর্তমানে বাংলাদেশ পুলিশে জনবান্ধব পুলিশিংয়ের জন্য ওসি মহসীন এখন এক নামে পরিচিতি অর্জন করেছে। তার চালু করা ‘হ্যালো ওসি’ কার্যক্রম পুরো সিএমপি জুড়ে পরিচালিত হয়ে অাসছে যা এখন ছড়িয়ে পড়েছে সারা দেশে। তিনি করোনাকালে খাদ্য থেকে শুরু করে- ওষুধ, রোগী পরিবহন সহ নানা জনবান্ধব কাজ করে তার থানা এলাকার অসহায় বাসিন্দাদের পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন।

তাছাড়াও তিনি এই সময়ে প্লাজমা নিয়েও কাজ করছেন। ইতিমধ্যে কয়েকজন প্লাজমা ডোনারকে নিজ গাড়িতে করে হাসপাতালে নিয়ে গেছেন।সব সময় নিজের ব্যবহারিত গাড়ি দ্বারা সেবা দিয়ে যাচ্ছে এই দুঃখ সময়ের সুবিধা বঞ্চিত মানুষকে।তিনি করোনাকালে থানা এলাকার বাসিন্দাদের প্রতিটি কোণে গেছেন সেবা বা পাশে থাকার জন্য।এছাড়া ও স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করণের জন্য গ্রহণ করেছিলেন কঠোর ব্যবস্থা।

Share.

About Author

Comments are closed.