খালেদার মামলা আর দুদকের অনুসন্ধান এক সূত্রে গাঁথা: তাবিথ

নিজস্ব প্রতিবেদক :

 মঙ্গলবার জিজ্ঞাসাবাদ শেষে  তিনি বলেন, সরকারের রাজনৈতিক নির্দেশনায় বিএনপির নেতাকর্মীদের দুর্বল করতে খালেদা জিয়ার মামলা আর দুদকের অনুসন্ধান এক সূত্রে গাঁথা।

তাবিথ আউয়াল দাবি করছেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে লক্ষ্য রেখে তাকে এবং দলের অন্য সাত নেতাকে হয়রানি করছে দুদক।

তিনি বলেন: আমাদেরকে হয়রানির মানে হচ্ছে আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার হয়রানি। মূলত তাকে লক্ষ্য করে আমাদের এভাবে হয়রানি করা হচ্ছে। বাংলাদেশে বর্তমানে যে রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিরাজ করছে, আমি মনে করি সকল অ্যাকশনেই (কাজে) সরকারের একটা প্রভাব রয়েছে।

দুদক কী জানতে চেয়েছে, জানতে চাইলে তাবিথ বলেন: দুদকের সাথে সুষ্ঠু কথাবার্তা হয়েছে, এখন অনুসন্ধান হচ্ছে তাই সেভাবে কিছু বলতে চাচ্ছি না। তবে আশা করি সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে সত্যটা বেরিয়ে আসবে।

দুদকের এই উদ্যোগের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য রয়েছে দাবি করে এই বিএনপি নেতা বলেন: আমি মনে করি এগুলো আমাদের সর্বোচ্চ পর্যন্ত সরকারের পক্ষ থেকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে করা হচ্ছে।

দুদকের এই অনুসন্ধান ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে কোনো প্রভাব ফেলবে কিনা এমন প্রশ্নও ছিল তাবিথের কাছে। তিনি বলেন: ওই নির্বাচনটি বর্তমানে স্টে (স্থগিত) আছে। আইনিভাবে আমি এখনও প্রার্থী। আশা করছি এই বিষয়টির প্রভাব সেখানে পড়বে না।

এপ্রিলের শুরুতে একটি অনলাইন পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের সূত্র ধরে বিএনপি নেতা খন্দকার মোশাররফ হোসেন, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, মির্জা আব্বাস, আবদুল আউয়াল মিন্টু, এম মোর্শেদ খান, হাবিব উন নবী খান সোহেল, তাবিথ আউয়ালের বিরুদ্ধে অনুসন্ধান শুরুর সিদ্ধান্ত নেয় দুদক। মোর্শেদ খানের ছেলে খান ফয়সাল মোর্শেদ খানের বিরুদ্ধেও চলছে এই অনুসন্ধান।

একটি গোয়েন্দা সংস্থার বরাত দিয়ে ওই পত্রিকার খবরে বলা হয়, মার্চ মাসে বিএনপির এই আট নেতা ১২৫ কোটি টাকা লেনদেন করেছেন। আর এই লেনদেনকে সন্দেহজনক হিসেবে দেখছে গোয়েন্দা সংস্থাটি।

এই খবর প্রকাশের পর ২ এপ্রিল দুদকের উপপরিচালক সামছুল আলমকে এই বিষয়ে অনুসন্ধানের দায়িত্ব দেয়ার খবর এসেছে গণমাধ্যমে।

৩ এপ্রিল সংবাদ সম্মেলন করে দলের চার নেতা খন্দকার মোশাররফ হোসেন, নজরুল ইসলাম খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও আবদুল আউয়াল মিন্টু দুদকের তীব্র সমালোচনা করেন। নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘আমাদের সঙ্গে নোংরা রসিকতা করছে দুদক।’

বিএনপির এই আট নেতার মধ্যে দুদক প্রথম কথা বলল তাবিথ আউয়ালের সঙ্গে। তবে এই জিজ্ঞাসাবাদের বিষয়ে দুদকের পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিকভাবে কিছু জানানো হয়নি।

সাইফুল //এসএমএইচ//৮ই মে, ২০১৮ ইং ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Check Also

বিপদ জয় করে বিজয়ের দেশে ফিরে আসা

জার্নাল ডেস্ক : জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশ নেওয়া বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর জাহাজ ‘বিজয়’  সাক্ষাৎ বিপদ …

‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি’

জার্নাল ডেস্ক ‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি ‘।    এভাবেই নিজের হতাশার কথা  জানিয়েছেন বসনিয়ায় আটকে …