ISTANBUL, TURKEY - OCTOBER 08: A man holds a poster of Saudi journalist Jamal Khashoggi during a protest organized by members of the Turkish-Arabic Media Association at the entrance to Saudi Arabia's consulate on October 8, 2018 in Istanbul, Turkey. Fears are growing over the fate of missing journalist Jamal Khashoggi after Turkish officials said they believe he was murdered inside the Saudi consulate. Saudi consulate officials have said that missing writer and Saudi critic Jamal Khashoggi went missing after leaving the consulate, however the statement directly contradicts other sources including Turkish officials. Jamal Khashoggi a Saudi writer critical of the Kingdom and a contributor to the Washington Post was living in self-imposed exile in the U.S. (Photo by Chris McGrath/Getty Images)

খাশোগি হত্যায় আন্তর্জাতিক প্রতিক্রিয়া

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক :

সৌদি আরব সাংবাদিক জামাল খাশোগির হত্যার দায় স্বীকার করে নেয়ার ঘটনায় বিরূপ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ব্যক্তিত্ব ও সংগঠনগুলো। এক্ষেত্রে কেবল ব্যাতিক্রম মার্কিন প্রেসিডেন্ট এবং হোয়াইট হাউস। এ ঘটনায় আন্তর্জাতিক তদন্ত দাবি করেছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।

শুক্রবার প্রচারিত এক বিবৃতিতে তুরস্কে গুম হওয়া সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে সৌদি কনস্যুলেটের অভ্যন্তরে হত্যার কথা আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকার করেছে সৌদি সরকার। এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার দায়ে দুই উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাকে বরখাস্ত এবং আরো ১৮ সৌদি নাগরিককে আটক করেছে রিয়াদ।

এ ঘটনাকে ‘অনাকাঙ্খিত’ বলে বিবৃতি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। একই সঙ্গে তিনি সৌদি আরবকে যুক্তরাষ্ট্রের ‘মহান মিত্র’ হিসেবেও উল্লেখ করেছেন। এছাড়া খাশোগির হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় সৌদি সরকারের দেয়া ব্যাখাতেও সন্তোষ প্রকাশ করেছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

শনিবার খাশোগির হত্যাকাণ্ডের খবরে গভীর দুঃখ প্রকাশ করে নিরপেক্ষ ও স্বচ্ছ তদন্তের দাবি জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস। তিনি বলেছেন, সবরকম প্রভাবের ঊর্ধ্বে থেকে এই হত্যাকাণ্ডের তদন্ত করতে হবে।

পৃথক এক বিবৃতিতে খাশোগি হত্যায় জাতিসংঘের প্রতি পৃথক তদন্ত দাবি করেছে মানবাধিকার গোষ্ঠী অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। তারা এ ঘটনায় সৌদি তদন্ত নিয়ে প্রশ্ন তুলে দেশটির ওপর চাপ বাড়ানোর দাবি জানিয়েছে।

হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র সারাহ স্যান্ডার্স বলেছেন, জামাল খাশোগির গুম হওয়ার ব্যাপারে সর্বশেষ তদন্তের যে ফলাফল সৌদি আরব প্রকাশ করেছে এবং এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে যে ব্যবস্থা নিয়েছে তাতে সন্তোষ প্রকাশ করছে হোয়াইট হাউজ।

স্যান্ডার্স আরো বলেন, খাশোগির হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ওয়াশিংটন গভীর দুঃখ প্রকাশ করছে এবং তার পরিবার, বাগদত্তা ও বন্ধুদের প্রতি সমবেদন জানাচ্ছে।

তবে এঘটনায় সৌদি সরকারের ভূমিকার কড়া সমোলোচনা করেছেন মার্কিন সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম। এক টুইটার বার্তায় তিনি বলেন, প্রথমে বলা হলো খাশোগি কনস্যুলেট ত্যাগ করেছেন এবং তার নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় সৌদি আরবের কোনো হাত নেই। এখন বলা হচ্ছে, সৌদি যুবরাজের (মোহাম্মাদ বিন সালমান) অজ্ঞাতসারে কনস্যুলেটের ভেতরেই খাশোগিকে হত্যা করা হয়েছে। নতুন এই ব্যাখ্যা মেনে নেয়া কঠিন।

মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদে ক্যালিফোর্নিয়া থেকে নির্বাচিত প্রতিনিধি টেড লিউ সৌদি আরবের সর্বশেষ ঘোষণাকে ‘অর্থহীন’ আখ্যায়িত করেছেন। তিনি তুর্কি ও মার্কিন গোয়েন্দা সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, সংঘর্ষে নিহত ব্যক্তির দেহ করাত দিয়ে কেটে টুকরা টুকরা করার প্রয়োজন ছিল না।

ডেমোক্রেটিক নেতা ক্যালিফোর্নিয়ার কংগ্রেস সদস্য এডাম স্কিফ এক টুইটার বার্তায় বলেন, ‘এখন প্রশ্ন হচ্ছে কোথায় গেল খাশোগির দেহ? তিনি হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন।

সাব্বির// এসএমএইচ//২০শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং ৫ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Check Also

বিপদ জয় করে বিজয়ের দেশে ফিরে আসা

জার্নাল ডেস্ক : জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশ নেওয়া বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর জাহাজ ‘বিজয়’  সাক্ষাৎ বিপদ …

‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি’

জার্নাল ডেস্ক ‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি ‘।    এভাবেই নিজের হতাশার কথা  জানিয়েছেন বসনিয়ায় আটকে …