গুহায় কেমন আছে ছেলেরা

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক :

গুনে গুনে ১৫ দিন। ছেলের শোকে চোখের পাতা এক করতে পারেনি বাবা-মা। সকাল থেকে শুরু করে রাত- সবসময় কেটেছে গুহার মুখে।
পূজা-মানত আর উদ্ধারকারীদের মুখের দিকে তাকিয়ে। অথচ উদ্ধারের পর ছেলেদের একনজর চোখের দেখাও দেখতে পেলেন না মা-বাবারা! উদ্ধারের সময়ও গুহার কাছে থাকতে দেয়নি তাদের। আর এতেই ছেলেদের শারীরিক অবস্থা নিয়ে সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে পরিবারের।
ছেলের মুক্তিতে তারা খুশি কিন্তু সংশয় সুস্থতা নিয়ে। কারণ কর্তৃপক্ষ বলেছে, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কিশোরদের মা-বাবার সঙ্গে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দেখা করতে দেয়া হবে না। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, সম্ভব হলে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তাদের মেডিকেল চেকআপ সম্পন্ন হওয়ার পর পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাতের সুযোগ পাবে।
এজন্য উদ্ধার হওয়ার পরও মা-বাবা চরম উৎকণ্ঠায় রয়েছেন। এক অজানা ভয়ে খচখচ করছে মন, সুস্থ আছে তো? বেঁচে আছে তো ছেলেগুলো? আটকা পড়া ১৪ বছরের নুট্টাওউট টাকুমসনের দাদি ওয়ানকায়েই পাখুম্মা ছেলেদের উদ্ধারে পুরোপুরি খুশি হতে পারছেন না। তার দৃঢ়বিশ্বাস, ছেলেরা বেঁচে আছে ঠিকই কিন্তু সুস্থ নেই। সিএএনএন।

সাব্বির// এসএমএইচ//৯ই জুলাই, ২০১৮ ইং ২৫শে আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Check Also

বিপদ জয় করে বিজয়ের দেশে ফিরে আসা

জার্নাল ডেস্ক : জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশ নেওয়া বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর জাহাজ ‘বিজয়’  সাক্ষাৎ বিপদ …

‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি’

জার্নাল ডেস্ক ‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি ‘।    এভাবেই নিজের হতাশার কথা  জানিয়েছেন বসনিয়ায় আটকে …