ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ : গতিপথ পরিবর্তন করে উত্তর- উত্তর পূর্ব দিকে অগ্রসর হবে

জার্নাল ডেস্ক :

পশ্চিম মধ্য বঙ্গপোসাগরে অবস্থিত ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ আরও কিছুটা উত্তর উত্তর পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে এখন পশ্চিম মধ্যো বঙ্গপোসাগর তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে।

শুক্রবার রাত ১০ টা ৩৫ মিনিটে মংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ৮৭৩ কিলোমিটার দক্ষিণ দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থান করছিলো।
এটি আপাতত আরও কিছুটা জোরদার হয়ে উত্তর দিকে অগ্রসর হতে পারে, এবং আজ শনিবার ( ৪ নভেম্বর) দুপুরের পর থেকে গতিপথ পরিবর্তন করে উত্তর উত্তর পূর্ব দিকে অগ্রসর হতে পারে।

ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৪৪ কিলোমিটার এর ভেতরে বাতাসের একটানা গড় গতিবেগ ঘন্টায় ৬৫ কিলোমিটার যা দমকা ও ঝড়ো হাওয়া আকারে ৮৫ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। সাগর ঐ স্থানে অনেক উত্তাল রয়েছে। দেশের সকল সমুদ্র বন্দরকে এই মুহুর্তে ২ নাম্বার দূরবর্তী সতর্ক সংকেত এর আওতায় রেখেছেন।

পূর্বাভাস : সাগরে তেমন উপযুক্ত পরিবেশ না থাকার দরুন এটি তেমন শক্তি বাড়াতে পারবে না, এবং ৪ ই ডিসেম্বর দুপুরের পর থেকে এটি তার শক্তি হারাতে শুরু করবে।

এটি দুপুরে ভারতের দক্ষিণ উড়িষ্যা উপকূল ঘেষে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ হয়ে আগামী ৫ ই ডিসেম্বর রাতে নিম্নচাপ আকারে সাতক্ষীরা সীমান্ত এলাকা দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারে। তখন বাতাসের গতিবেগ থাকতে পারে ঘন্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার এর ভেতরে।

এদিকে এই ঘূর্ণিঝড় এর প্রভাবে ইতিমধ্যে দেশের আকাশে মেঘের আনাগোনা শুরু হয়ে গেছে, যা সময়ের সাথে সাথে বৃদ্ধি পাবে। দুপুরের পর থেকে দেশের দক্ষিণ পশ্চিম অঞ্চল দিয়ে বৃষ্টিপাত শুরু হতে পারে যা সময়ের সাথে সাথে দেশের অনেক এলাকায় বিস্তারলাভ করতে পারে।

এটি বাংলাদেশ উপকূল অতিক্রমের সময় খুলনা ও বরিশাল বিভাগের উপকূলীয় নিচু এলাকা স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৪ থেকে ৬ ফুট বেশি জোয়ারের পানি দ্বারা আক্রান্ত হতে পারে।

ভারিবৃষ্টি এর সতর্কতা! আজ দুপুরের পর থেকে আগামী ৬ ই ডিসেম্বর বিকেল এর ভেতরে, দীঘা, ২৪ পরগনা, কলকাতা, সাতক্ষীরা, খুলনা, পিরোজপুর, ঝিনাইদহ যশোর, চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, নড়াইল, ফরিদপুর, মাগুরা, গোপালগঞ্জ, মাদারীপুর, শরিয়তপুর, মুন্সীগঞ্জ, বরিশাল, চাঁদপুর, ঢাকা, কুমিল্লা, ফেনী, মানিকগঞ্জ, গাজীপুর, বাগেরহাট ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকায় ভারি থেকে অতি ভারিবর্ষন ১০০ থেকে ১৫০ মিলিমিটার ( একটানা) হতে পারে ও একই সাথে, রাজবাড়ী, হুগলী, বারাসত, কুষ্টিয়া, রাজশাহী, নাটোর, বগুড়া, পাবনা, কিশোরগঞ্জ, বরগুনা, ঝালকাঠি, নোয়াখালী, চট্টগ্রাম, খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি, ভোলা, পটুয়াখালী, সিলেট, নরসিংদী, সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার, সিরাজগঞ্জ, টাঙ্গাইল, ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকায় মাঝারি থেকে ভারি বর্ষন ৫০ থেকে ১০০ মিলিমিটার হতে পারে।

রংপুর বিভাগের দু এক স্থানে সামান্য বৃষ্টি হলেও হতে পারে।ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ সরাসরি ঘূর্ণিঝড় হিসেবে বাংলাদেশে আঘাত করবে না, এটি দুর্বল হয়ে নিম্নচাপ আকারে বাংলাদেশে আঘাত করতে পারে, সুতরাং আতঙ্কিত হবার দরকার নেই, তবে ঝড়ে ক্ষতি না হলেও ভারি বৃষ্টির দরুন দেশের অনেক এলাকায় ফসলের ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে।

আগামী ৭ ই ডিসেম্বর হতে দেশের পশ্চিম অঞ্চলের আবহাওয়া স্বাভাবিক হতে শুরু করবে, এবং আগামী ৮ ই ডিসেম্বর দুপুরের পর সারাদেশের আবহাওয়া সম্পুর্ণভাবে স্বাভাবিক হয়ে আসবে ।

বিডিজা৩৬৫

Check Also

কেন্দ্রীয় ব্যাংক ছোট-বড় সব ঋণে ডিসেম্বর পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৭৫% মরাটরিয়াম সুবিধা দিয়েছে

জার্নাল ডেস্ক : বৃহৎ শিল্প, এসএমই, কৃষি ঋণসহ সকল ধরনের ছোট বড় ঋণে পরিশোধিত ঋণের …

অ্যাকাউন্টের তথ্য সুরক্ষায় হোয়াটসঅ্যাপের নতুন ফিচার

তথ্য ও প্রযুক্ত ডেস্ক অ্যাকাউন্টে থাকা ব্যক্তিগত তথ্য, ঠিকানাসহ অন্যান্য বিষয় কে বা কারা দেখতে …