চবি’র পাহাড় থেকে আহত অবস্থায় উদ্ধার হওয়া মায়া হরিণটির ঠাই হল চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায়

0

চট্টগ্রাম ব্যুরো:

চট্টগ্রামের পাহাড়ে দুটি বন্য মায়া হরিণের মধ্যে লড়ায়ে গুরতর আহত একটি মায়া হরিণের অবশেষে ঠাই হয়েছে চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায়। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে আহত মায়া হরিণটিকে উদ্ধার করে অ্যাম্বুল্যান্স যোগে চট্টগ্রামের ফয়েজলেকস্থ চিড়িয়াখানায় নিয়ে আসেন চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আফতাব হোসেন। বর্তমানে এটিকে একটি খাঁচার মধ্যে রেখে নিবিড় পরিচর্যা, পর্যবেক্ষন ও চিকিৎসার মাধ্যমে শুষ্ট করে তোলার চেষ্টা করছে চিড়িখানা কতৃপক্ষ।
অধ্যাপক অফতাব হোসেন মানবকন্ঠকে বলেন, চবি’র রসায়ন বিভাগের পেছনে খালি জায়গায় পাহাড় না ভাঙ্গার জন্য দেয়ালে টেস নির্মান করা হয়েছিল। গতকাল সকালে একটি টেসের পাশে আহত অবস্থায় মায়া হরিণটি দেখা যায়। পরে হরিণটি উদ্ধার করে দেখি পেটের পাশে এবং হাঁটুতে আঘাত পেয়েছে। এরপর অ্যাম্বুল্যান্সে করে চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় নিয়ে আসি। চবি ক্যাম্পাস থেকে উদ্ধার করা আহত মায়া হরিণটিকে বর্তমানে চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।
আফতাব হোসেন বলেন, এখন মায়া হরিণের প্রজনন মৌসুম চলছে। এ সময় এলাকার দুইটি পুরুষ মায়া হরিণের মধ্যে লড়াই হয়। যেটি হেরে যায় সেটিকে এলাকাছাড়া করে বিজয়ী হরিণটি। আমরা যে হরিণটি উদ্ধার করেছি সেটি পরাজিত। তিনি বলেন এর আগেও একাধিকবার হরিণের দল বিশি^বিদ্যালয় ক্যাম্পাসের বিভিন্ন ফ্যাকাল্টির রুমে ঢুকে যেত।
চিড়িয়াখানার ভেটেরিনারি সার্জন ডা. মো. শাহাদাত হোসেন শুভ বলেন দুটি মায়া হরিণের লড়াইয়ে একটি হরিণের পেটে অপরটির শিং ঢুকে যায়। এতে হরিণটির শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ণ রয়েছে। ডা. শুভ জানান, হরিণটিকে বাঁচাতে সাধ্যমতো চেষ্টা করা হচ্ছে। ২৪ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।
এক সময় চবি ক্যাম্পাসের পেছনে পাহাড়ে গভীর জঙ্গলে প্রচুর মায়া হরিণ দেখা যেত। কিন্তু খেক শেয়াল ও শিকারিদের আক্রমণে এখানে বিচরণরত মায়া হরিণের সংখ্যা দিন দিন হ্রাস পাচ্ছে। বর্তমানে হাতেগোনা ১৪-১৫টি হরিণ চোখে পড়ে বলে জানায় চবি’র শির্ক্ষীরা। তারা জানায় মাঝে মাঝে রাতেও ক্যাম্পাস এলাকায় হরিণগুলো দেখা যায়।
এদিকে চবি’র সহকারী অধ্যাপক আফতাব হোসেন বলেন বিশ্বব্যাপী প্রাণীকুলের চরম সংকটাপন্ন অবস্থায় এ প্রজাতির হরিণটি সুস্থ হলে সিটি পুনরায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে অবমুক্ত করা হবে।

সাব্বির// এসএমএইচ//৩০শে আগস্ট, ২০১৮ ইং ১৫ই ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Share.

About Author

Comments are closed.