জোড়া সেঞ্চুরির পরও ইনিংস হার বাংলাদেশের

0

ক্রীড়া ডেস্ক :

স্কোরবোর্ডে শূন্য, আটের পরে এবং এক, একের আগে ১৪৯ ও ১৪৬ সংখ্যা দুটি জ্বলজ্বল করছে। হুট করে তাকালেও চোখ আটকে যায় ওই সংখ্যা দুটিতে। সৌম্য সরকার এবং মাহমুদুল্লাহ কি দারুণ দুই ইনিংসই না খেলেছেন। নিউজিল্যান্ডের রাভেল এবং টম ল্যাথামের পাল্টা যেন। কিন্তু একটু দেরি হয়ে গেলো। সঙ্গে অন্য ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতা জল ঢেলে দিলো তাদের লড়াইয়ে। তাই দুই সেঞ্চুরিয়ান সৌম্য-মাহমুদুল্লাহ ইনিংস ও ৫২ রানে হারা দলের সদস্য।

বাংলাদেশ কিউইদের বিপক্ষে দ্বিতীয় ইনিংসে তুলেছে ৪২৯ রান। এর মধ্যে টপ ও লোয়ার অর্ডারের সাত ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকে এসেছে মাত্র ১৭ রান। অন্য চার ব্যাটসম্যান তুলেছেন বাকি রান। এর মধ্যে তামিম ৭৪ রান করে আউট হন। অন্য ওপেনার সাদমান করেন ৩৭ রান।

দলের হয়ে দারুণ এক সেঞ্চুরি করেন সৌম্য সরকার। ছবি: ক্রিকবাজ

বাংলাদেশের সামনে ইনিংস হার ও চতুর্থ দিনেই হারের চোখরাঙানি কালই ছিল। এপারে সূর্যদয়ের আগেই হেরে বসে কিনা সেই চিন্তাও ছিল। মাহমুদুল্লাহ-সৌম্যর দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে সেই ধারণা ভুল প্রমাণ হয়।হ্যামিল্টন টেস্টের চতুর্থ দিনেও যদি অন্য ব্যাটসম্যানরা আরেকটু ভালো করতে পারতো তবে ইনিংস হার এড়াতে পারত দল। সৌম্য-মাহমুদউল্লাহর ২৩৫ রানের দুর্দান্ত জুটি সেই আশার পালে জোর হাওয়া দিয়েছিল।

এর আগে নিউজিল্যান্ড ৬ উইকেটে ৭১৫ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে। দ্বিতীয় ইনিংসে ৪ উইকেটে ১৭৪ রানে তৃতীয় দিন শেষ করে বাংলাদেশ। ইনিংস হার এড়াতে তখনো ৩০৭ রান দরকার বাংলাদেশের। কিন্তু মাহমুদউল্লাহ ও সৌম্যও জাগানো সম্ভাবনাটা মূলত ১৬ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে শেষ হয়ে যায়।

ইনিংস ব্যবধানে হলেও ভদ্রস্ত হার বাংলাদেশের। সেটা সৌম্যর সঙ্গে মাহমুদুল্লাহ জুটি ও সেঞ্চুরি সম্ভব করেছে। ছবি: ক্রিকবাজ

দলের হয়ে পাঁচ ছক্কা ও ২১ চারে ১৭১ বলে ১৪৯ রান করা সৌম্য বোল্টের বলে বোল্ড হন। দেড়শ’ রানের আক্ষেপ নিয়ে ফেরেন তিনি।  তার আগে ৯৪ বলে সেঞ্চুরি তুলে তামিমের টেস্টে দেশের হয়ে দ্রুততম সেঞ্চুরির রেকর্ডে ভাগ বসান। পরে মাহমুদউল্লাহ ২২৯ বলে তিন ছক্কা ও ২১ চারে ১৪৬ রান করে নবম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন। তিনিও দেড়শ’র আক্ষেপ সঙ্গে করে ফেরেন।

বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংসে ১০ উইকেটের সব কটিই নিয়েছেন তিন কিউই পেসার। বোল্ট ১২৩ রান দিয়ে নিয়েছেন ৫ উইকেট, সাউদি নিয়েছিল তিনটি ও  ওয়াগনার দুটি উইকেট নিয়েছেন। প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেট নেন ওয়াগনার। সাউদি দেন তিন উইকেট।

নিলা চাকমা/এসএমএইচ/    রবিবার, ১৮ ফাল্গুন ১৪২৫, ০৩ মার্চ ২০১৯

Share.

About Author

Comments are closed.