flcikr

ঢাকা-নারায়ণগঞ্জের পর ঝুকিপূর্ণ শরিয়তপুর

১১ দিন ধরে লকডাউনে শরীয়তপুর।এই নিষেধাজ্ঞা মানছেন বা ক’জন। তারমধ্যে গোপনে ঢাকা ও নারায়নগঞ্জ থেকে যাতায়াত করছেন অনেকেই।

এ মাসের শুরুতে করোনার হটস্পট ঢাকা ও নারায়নগঞ্জ থেকে প্রায় দুইশ’ মানুষ শরীয়তপুরে প্রবেশের পর আতঙ্কিত হয়ে পড়েন স্থানীয়রা। ১৫ই এপ্রিল শরীয়তপুরে লকডাউন ঘোষণা করার পরও সড়ক ও নদীপথে জেলায় প্রবেশ করেন অনেকে।

লকডাউনের বিধি নিষেধ অমান্য করে হাট-বাজার আর চায়ের দোকানেও চলছে আড্ডা। এতে জেলায় করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ছে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের বলেন, যারা এখনো রাতের আধাঁরে অন্য জেলা থেকে আসছে তাদের হোম কোয়ারেন্টিন আমরা নিশ্চিত করছি। এছাড়া তাদের নমুনা সংগ্রহ করে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আমরা পাঠাচ্ছি।

শরীয়তপুর পুলিশ সুপার এস এম আশরাফুজ্জামান বলেন, হাটবাজারে যারা অযথা জনসমাগম করছে সেখানে যখন পুলিশ যায় তখন কিন্তু সবাই চলে যায়। আবার পুলিশ চলে গেলে আবার তারা চলে আসে। আমরা অনুরোধ করছি, সবাইকে সামাজিক দায়িত্ব মেনে চলতে এতে দেশ সমাজ পরিবার সবাই নিরাপদে থাকবে।

শরীয়তপুরে এরইমধ্যে করোনা রোগীর চিকিৎসায় পাঁচটি হাসপাতাল প্রস্তুত করা হয়েছে। তবে সাধারণ মানুষ সচেতন না হলে করোনা মোকাবিলা অসম্ভব বলে মনে করেন জেলা সিভিল সার্জন এস এম আব্দুল্লাহ আল-মুরাদ। তিনি বলেন, আমরা যেহেতু এখনো মানুষকে ঘরে রাখতে পারছি না তাই ঢাকা এবং নারায়ণগঞ্জ থেকে যারা এসেছেন তারাই আমাদের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ। তাদেরকে হোম কোয়ারেন্টিনের রাখতে পারলেই আমরা নিরাপদে থাকতে পারবো।

Check Also

আদালতে আত্মসমর্পন করেছেন প্রদীপের স্ত্রী চুমকি

জার্নাল ডেস্ক : মেজর সিনহা হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি প্রদীপ কুমার দাশের দুর্নীতির সহযোগী হিসেবে …

২০২৩ সালের জুনের মধ্যে ঢাকা-কক্সবাজার রুটে ট্রেন চলবে

জার্নাল ডেস্ক :  রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন জানিয়েছেন, ২০২৩ সালের জুন মাসের মধ্যে ঢাকা-কক্সবাজার রুটে …