দুর্দান্ত খেলেও হেরে গেল বাংলাদেশ

ক্রীড়া ডেস্ক :

টান টান উত্তেজনার ম্যাচে শেষ ওভারে গিয়ে মাত্র ৪ রানে বাংলাদেশকে হারিয়ে জিতল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দুর্দান্ত খেললেও শেষ সময় এসে হেরে গেল বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল।মাউন্ট মঙ্গানুইয়ের বে ওভালে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে মাত্র ১৪০ রানে আটকে ফেলে জয়ের দারুণ সম্ভাবনা তৈরি করেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু ব্যাটারদের ব্যর্থতায় ৪৯.৩ ওভারে বাংলাদেশ অলআউট হয়ে গেছে ১৩৬ রানে। ফলে ৪ রানে জয় পেয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

জয়ের জন্য বাংলাদেশ দলের শেষ ৫ ওভারে প্রয়োজন ছিল ১৯ রানের। এ সময় জাহানারাকে (৮) আউট করে দেন টেইলর।

এরপর ফারিহাকে নিয়ে এগিয়ে যান নাহিদা। শেষ ২ ওভারে প্রয়োজন ১১ রানের। ৪৯তম ওভারে ৫ রান নিলে জয়ের জন্য শেষ ৬ বলে প্রয়োজন মাত্র ৬ রানের। কিন্তু নাহিদাকে আর সঙ্গ দিতে পারেননি ফারিহা। ৩ বল বাকি থাকতে আউট হয়ে যান তিনি। ফলে জয় হলো হাতছাড়া।

ম্যাচের শুরুতে টস জিতে আগে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতি। শুরুতেই ক্যারিবীয় ব্যাটারদের চাপে রাখেন জাহানারা-ফাহিমারা। ৯ উইকেটে ১৪০ রানের বেশি করতে পারেনি ক্যারিবীয়রা।

বাংলাদেশের পক্ষে বল হাতে ডানহাতি সালমা ও বাঁহাতি নাহিদা নিজেদের প্রথম ছয় ওভারে তিনটি করে মেইডেন তুলে নেন, রান খরচ করেন সমান ১২ এবং উইকেটও নেন সমান ২টি করে। জাহানারা, রুমানা ও রিতু মনি নেন একটি করে উইকেট।

বাংলাদেশ দলের ব্যাটিং শুরুর পর ১০ ওভারে মাত্র ১৫ রান দিয়ে ৪ উইকেট শিকার করেছেন ম্যাথিউজ। অন্যদিকে ২৯ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিয়েছেন ফ্লেচার। তবে ম্যাচ জয়ের নায়ক বলা যায় টেইলরকে। ১০ ওভারে ২৯ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিলেও শেষ ওভারে তার চেষ্টায় হেরে গেছে বাংলাদেশ।

ব্যাট হাতে নেমে শুরুতেই শূন্য রানে ফেরেন ওপেনার শামিমা সুলতানা। ম্যাথিউসের বলে এলবিডব্লিউ হন তিনি। এরপর অপর ওপেনার শারমিন, টপঅর্ডার ব্যাটার ফারজানা ও অধিনায়ক নিগার সুলতানার যথাক্রমে ১৭, ২৩ ও ২৫ রানের সুবাদে কোনোমতে বিপদ কাটিয়ে ওঠে টাইগ্রেসরা।

কিন্তু ম্যাথিউস ও ফ্লেচার এ তিনজনকে ফিরিয়ে দিলে ফের চাপে পড়ে বাংলাদেশ। ফ্লেচারের দুর্দান্ত এক ওভারে শূন্য হাতে ফেরেন রোমানা আহমেত ও রিতু মনি। এরপর দলকে একাই টেনে নিয়ে যেতে থাকেন সালমা খাতুন। তবে টেইলরের বলে আউট হওয়ার আগে তার ইনিংস থামে ৪০ বলে ২৩ রান করে।

সালমার আউটের পর বাংলাদেশের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৮ উইকেট হারিয়ে ১১১ রান। জয়ের জন্য প্রয়োজন পড়ে ৩৯ বলে ৩০ রানের। কিন্তু সে লক্ষ্যে পৌঁছানো সম্ভব হয়নি।

অন্যদিকে, ম্যাচ শুরুর পর ইনিংসের নবম ওভারে প্রথম আঘাত হানেন ডানহাতি পেসার জাহানারা আলম। তার বলে কট বিহাইন্ড হওয়ার আগে ১৭ রান করে অলরাউন্ডার দেয়ান্দ্র ডটিন। বাংলাদেশি বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে পাওয়ার প্লের ১০ ওভারে ১ উইকেটে মাত্র ৩৪ রান করতে পারে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এছাড়াও দারুণ বোলিং করেন বাঁহাতি পেসার ফারিহা তৃষ্ণা, নাহিদা ও সালমা।

পরবর্তী ৩০ ওভারে ক্যারিবীয় ব্যাটারদের হাত খুলে খেলতেই দেননি স্পিনার সালমা খাতুন, রুমানা আহমেদ, নাহিদা আক্তার ও ফাহিমা খাতুন। এই ৩০ ওভারে মাত্র ৫৩ রানে আরও ৬ উইকেট হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ফলে ৪০ ওভারে স্কোর দাঁড়ায় ৭ উইকেটে ৮৭ রান।

ক্যারিবীয় ইনিংসের ৩৬ ওভার শেষে সংগ্রহ ছিল ৭ উইকেটে ৭২ রান। সেখান থেকে শেষ ১৪ ওভারে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে ৬৮ রান করে তারা। যা দলকে এনে দেয় ১৪০ রান।

 

Check Also

৯২ বার পেছাল সাগর-রুনি হত্যার তদন্ত প্রতিবেদন

জার্নাল ডেস্ক সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের তারিখ ৯২ বারের মতো পেছানো …

অর্থ আত্মসাতের মামলা: জ্যাকুলিনের জামিন

বিনোদন ডেস্ক সুকেশ চন্দ্রশেখরের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতার কারণে অর্থ আত্মসাতের মামলার অভিযোগ পত্রে নাম উঠেছিল বলিউড …