নওগাঁয় জমে উঠেছে ঈদের বাজার

ফারমান আলী,নওগাঁ প্রতিনিধি:

আর কয়েকদিন পর ঈদ-উল ফিতরের ঈদ। মুসলমানদের সবচেছে বড় ধর্মীয় উৎসব। এ উৎসবকে ঘিরে নওগাঁয় এবার আগেভাগেই ঈদের কেনাকাটা জমে উঠেছে। ফুটপাত থেকে শুরু করে বহুতল শপিং কমপ্লেক্স সব জায়গাতেই শিশু ও নারী-পুরুষের পদচারণায় সরগম হয়ে উঠেছে বিপণিবিতানগুলো। ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য ঈদবাজার উপলক্ষে ব্যবসায়ীরা বিপণিবিতানগুলো আলোকসজ্জা করেছেন। ঈদ যত ঘনিয়ে আসছে ক্রেতার ভীড়ও তত বাড়ছে। তবে ভারতীয় সিরিয়াল ‘ভজ গোবিন্দ’ নাটকের পোশাক ডালি গাউন ও স্কার্ট হিট নওগাঁর বাজারে দখলে আছে ।

শহরের দেওয়ান বাজার, শুভপ্লাজা, গীতাঞ্জলী শপিং কমপ্লেক্স, বসাক শপিং কমপ্লেক্স, ঠাকুর ম্যানসন, পোরশা মার্কেট, মাজেদা সুপার মার্কেট, ক্রিসেন্ট মার্কেট, বিসমিল্লাহ টাওয়ার, শাহজাহান গার্মেন্টস, মদিনা মার্কেটসহ বড় বড় দোকানগুলোর মধ্যে আসমানি বিগবাজার, শিলামণি গার্মেন্টস, জোসনার ফুল, জোসনার মেলা, টুনটুনি, আনান, বুুটিকস, বাঁকুড়া বস্ত্রালয়, পালকী বুটিকস, প্রিয়া ফ্যাশন, রংঅঙ্গন প্রায় সহ দেড়শতাধিক অভিজাত মার্কেটে করা হয়েছে আলোকসজ্জা। দোকানগুলোতে বিপুল পরিমান তৈরী পোষাকের সমাহার। বিকেলে এবং সন্ধ্যার পর এসব মার্কেটে ভীড় দেখা গেছে। কাপড়ের দোকানগুলোতে ক্রেতাদের ভীড় সবচেয়ে বেশি দেখা গেছে। বিপণিবিতানগুলোতে নারী ও শিশুদের ভীড় বেশি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার বিক্রি বেশি। রোজার শুরু থেকেই এবার মার্কেটে কেনাকাটা জমে উঠলেও দিন যত যাচ্ছে ক্রেতাদের ভীড় তত বাড়ছে। বিক্রিয় কর্মীদের এখন যেন দম ফেলানোর সময় নেই। ক্রেতাদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে শুক্রবারেও খোলা থাকছে শহরের বিপণিবিতানগুলো। এখন পর্যন্ত বেচাকেনা নিয়ে সন্তুষ্ট বিক্রেতারা।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ছোট-বড় সব বয়সী মেয়েদের জন্য বিভিন্ন ধরণের থ্রি পিস, টপস, জিপসি, ফ্লোর টাচ নামের পোশাক রয়েছে বিপণিবিতানগুলোতে। এসব পোশাক ১ হাজার থেকে শুরু করে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া তরুণীদের হাল ফ্যাশনের বিভিন্ন ধরণের গাউন, ফ্রগ ও লেহেঙ্গা চাহিদাও রয়েছে প্রচুর। ভারতীয় টিভি সিরিয়াল ‘ভজ গোবিন্দ’ নাটকের চরিত্র ডালি চৌধুরী। ওই চরিত্রের নামে দোকানগুলোতে পাওয়া যাচ্ছে ডালি গাউন ও ডালি স্কার্ট। এই গাউন ও স্কার্ট বিক্রি হচ্ছে ৩ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকায়। এছাড়া পদ্মাবত সিনেমার চরিত্র রাণী পদ্মাবতীর নামে বাজারে আসা ‘পদ্মাবতী লেহেঙ্গা’ তরুণীদের মাঝে বেশ সাঁড়া ফেলেছে। এই লেহেঙ্গা বিক্রি হচ্ছে ২ হাজার থেকে ৮ হাজার টাকায়। ছেলেদের সুতি পাজামা-পাঞ্জাবী ১ হাজার থেকে ৭ হাজার টাকায় পাওয়া যাচ্ছে।

এসব দোকানেই পাওয়া যাচ্ছে তরুনদের নানা বর্ণের পাঞ্জাবী। এ বছর তরুনদের পাঞ্জাবী’র চাহিদায় রয়েছে শর্ট পাঞ্জাবী, সেরওয়ানী পাঞ্জাবী, সেমি লং পাঞ্জাবী, এবং লং পাঞ্জাবী। বিক্রি হচ্ছে এক হাজার টাকা থেকে পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত। এছাড়া রোজার শুরু থেকেই ছিট কাপড়ের দোকানগুলোতে ক্রেতাদের বেশ আনাগোনা। কাপড়ের ছিট কিনে সেগুলো তৈরি করতে সময় লাগে। এজন্য ক্রেতারা ঈদকে কেন্দ্র করে একটু আগেভাগেই কেনাকাটা করেছেন।

জেলার বদলগাছী থেকে ঈদের কেনাকাটা করতে গীতাঞ্জলি মার্কেটে এসেছে সোনিয়া আকতার। তিনি বলেন, ভারতীয় নাটকে ডালি চৌধুরী যে সব ডালি গাউন ও স্কার্ট পড়েছে সেগুলো এখন বাজারে ব্যাপক চলছে। সাড়ে চার হাজার টাকা দিয়ে ডালি গাউন কিনেছেন পছন্দ করে।

নওগাঁর কাপড়পট্টি শাহজাহান গার্মেন্টস স্বত্বাধিকারী শাহজাহান বলেন, দশ রমজানের পর থেকেই এবার ঈদের কেনাকেটা শুরু হয়েছে। ঈদকে কেন্দ্র করে ব্যবসা ভালই হবে বলে মনে হচ্ছে। ঈদ উপলক্ষে ক্রেতাদের হাল ফ্যাশনের কথা মাথায় রেখে দোকানে বিভিন্ন ধরণ ও দামের পোশাকের সমাহার রাখা হয়েছে।
আনন্দবাজার শপিং কমপ্লেক্সের পোশাকের দোকান শিলামনির বিক্রয়কর্মী রনি তালুকদার বলেন, ভজ গোবিন্দ নাটকের নায়িকা ডালি চৌধুরী যে সব গাউন ও স্কার্ট পড়েছে মেয়েরা ওই পোশাকগুলো বেশি কিনছে। এইবার ডালি গাউন ও স্কার্ট হিট। শুধু বড়রা না ছোটদের জন্যও এই পোশাক আছে। এছাড়া পদ্মাবতী লেহেঙ্গাও ভালো বিক্রি হচ্ছে।

নওগাঁ পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেন বলেন, ঈদ বাজারে বেঁচা-কেঁনার সুযোগে চুরি ও ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে থাকে। কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা যেন না ঘটে সে জন্যই ঈদ বাজার উপলক্ষে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, ট্রাফিক জ্যাম এড়াতে বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। চালু করা হয়েছে সিগন্যাল ও ওয়ান ওয়ে সিসটেম।এতে করে ক্রেতারা স্বচ্ছান্দে কেনা কাটা করতে পারছে।

সাব্বির// এসএমএইচ//৭ই জুন, ২০১৮ ইং ২৪শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Check Also

বিপদ জয় করে বিজয়ের দেশে ফিরে আসা

জার্নাল ডেস্ক : জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশ নেওয়া বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর জাহাজ ‘বিজয়’  সাক্ষাৎ বিপদ …

‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি’

জার্নাল ডেস্ক ‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি ‘।    এভাবেই নিজের হতাশার কথা  জানিয়েছেন বসনিয়ায় আটকে …