নিজের ঘরে নিজেই পরবাসী বিধবা গৃহবধু, দ্বারে দ্বারে ঘুরে ও বিচার পাচ্ছে না

জার্নাল ডেস্ক :

চট্টগ্রাম নগরীর আলকরণ ওয়ার্ডে ভাসুর কর্তৃক নির্যাতনের অভিযোগ করেছেন এক গৃহবধু। এ বিষয়ে তিনি সিএমপি কমিশনার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। সিএমপি কমিশনার বিষয়টি দেখার জন্য সদরঘাট থানাকে দায়িত্ব দিলেও পুলিশ বিষয়টি নিয়ে গড়িমসি করছে।
আলকরণ ৩ নম্বর লেইনের বাসিন্দা ছেনোয়ারা বেগমের অভিযোগ তার স্বামীর বড় ভাই স্থানীয় যুবদল নেতা মো. ইদ্রিছ প্রতারণা করে তার সম্পত্তির ভাগ কেড়ে নিয়েছেন।

এ নিয়ে তিনি সিএমপি কমিশনার বরাবর একটি অভিযোগও দাখিল করেছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ছেনুয়ারার স্বামী মো. ইলিয়াছরা মোট ৪ ভাই।

ইলিয়াছ ছিলেন সবার ছোট। তিনি সৌদিতে থাকাকালীন সেজ ভাই মো. ইদ্রিছের কাছে টাকা পাঠিয়ে আলকরণ ৩ নম্বর লেইনে একটি পাঁচতলা ভবন নির্মাণ করেন। নিচের তলা ভাড়া দিয়ে বাকি ৪ তলায় ৪ ভাই থাকার কথা ছিল। কিন্তু ২০১৫ সালের ৩০ আগস্ট সৌদিতে এক সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান ইলিয়াছ। এরপর থেকেই ইদ্রিছের চোখ পড়ে ইলিয়াছের ঘরের উপর। ইলিয়াছের স্ত্রী ছেনুয়ারার অসহায়ত্বের সুযোগ নিয়ে ভবনের দ্বিতীয় তলার দুই ইউনিটের মধ্যে একটি ঘর ইদ্রিছ জোরপূর্বক দখল করে ভাড়া দিয়ে দেন। বিষয়টি নিয়ে সামাজিকভাবে অনেক সালিশ বৈঠক হলেও ছেনোয়ারা এখনো তার ভাগের ঘর বুঝে পাননি। উল্টো এসবের প্রতিবাদ করতে গেলে ইদ্রিছ ও তার স্ত্রী মিলে ছেনোয়ারাকে মারধর করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইদ্রিছের মেঝ ভাই রহমত আলীও বিষয়টি সত্য বলে জানান। তিনি বলেন, ওয়ারিশ সূত্রে দুই তলার ফ্ল্যাট দুটি আমার ছোট ভাইয়ের বউ ছেনোয়ারা পাবে। কিন্তু ইদ্রিছ জোর করে একটি ফ্ল্যাট দখল করে ভাড়া দিয়ে দিয়েছে। ফলে অর্থকষ্টে অনাহারে কাটছে ছেনোয়ারা ও তার সন্তানের জীবন।

এদিকে, শুধু ঘরই নয় নমীনি হওয়ার সুবাদে ইলিয়াছের একাউন্টে থাকা ২ লাখ ৪০ হাজার টাকাও ইদ্রিছ আত্মসাত করে নিয়েছেন বলে জানান ছেনোয়ারা। স্বামীর মৃত্যুর পর এ টাকা দাবি করলে উল্টো তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার হুমকি দেন ও মারধর করেন ইদ্রিছ।

ছেনোয়ারা বেগম  বলেন, আমি আমার স্বামীর অংশ বুঝে নিতে চাইলে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে আমার ভাসুর ইদ্রিছ ও তার স্ত্রী। একপর্যায়ে তারা আমাকে মারধর করে এবং ঘর থেকে বের করে দেওয়ার হুমকি দেয়। আমি এখন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। আমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও প্রশাসনের নিকট বিয়টি সুরাহা করে দেয়ার আবেদন জানাচ্ছি।
এদিকে, বিষয়টি নিয়ে ইদ্রিছের বক্তব্য নিতে গেলে তাকে বাসায় পাওয়া যায়নি। পরে তার নাম্বারে ফোন করলে তার সম্বন্ধি পরিচয় দিয়ে মাসুদ নামের এক যুবক ফোন ধরেন এবং নিজেকে নগর যুবলীগের নেতা দাবি করেন এবং সংবাদ প্রচার না করার হুমকি দেন।
বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে স্থানীয় ৩১ নং আলকরণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আবদুস সালাম মাসুম বলেন, এ বিষয়ে একটি সালিশ হয়েছিল তবে কোন পক্ষই সমঝোতায় না আসায় বিষয়টি ঝুলে আছে। তবে যেহেতু ওই মহিলা বিধবা এবং তার একটি ছোট ছেলে আছে তাই আমার দিক থেকে যতটুকু সহযোগিতা করার আমি করবো।
এদিকে, পুলিশ কমিশনার বরাবর ছেনোয়ারা অভিযোগ দেয়ার পর সিএমপি কমিশনার সেটি দক্ষিণের উপ-কমিশনার বরাবর পাঠান। তিনি সদরঘাট থানার ওসিকে নির্দেশ দেন বিষয়টি দেখার জন্য।
তবে সদরঘাট থানার ওসি মো. সাখাওয়াৎ হোসেন  বলেন, দেওয়ানি বিষয়ে আসলে পুলিশের কিছু করার নেই। উভয়পক্ষ যদি সমঝোতায় না আসে সেক্ষেত্রে আদালতেই এটির নিষ্পত্তি হবে।

Check Also

চালের বাজার মনিটরিংয়ের নির্দেশ ডিসিদের

জার্নাল ডেস্ক : চালের বাজার স্থিতিশীল রাখতে জেলা প্রশাসকদের বাজার মনিটরিংয়ের নির্দেশ দিয়েছে সরকার। রোববার …

আগামী মাস থেকে লোডশেডিং থাকবে না, তেলের দামও সমন্বয় হবে’

জার্নাল ডেস্ক : বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, আগামী মাস থেকে …