প্রধানমন্ত্রীর অপেক্ষায় পদ্মাপাড়ের মানুষেরা

শরীয়তপুর প্রতিনিধি 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল রোববার পদ্মা সেতুর জাজিরা পয়েন্টে সেতুর ৬০ ভাগ কাজের অগ্রগতির ফলক উন্মোচন, কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন ও পদ্মা সেতুর রেল লাইন সংযোগ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করতে পদ্মা পাড়ে আসছেন।

এছাড়া মুন্সিগঞ্জে সুধী সমাবেশ এবং বিকেলে মাদারীপুরে আওয়ামী লীগের জনসভায় যোগদান করবেন।

ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষ্যে নিরাপত্তাসহ সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে সামনে রেখে পাদ্মার দু’পাড়ে মানুষের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা গেছে। পদ্মা পাড়ের মানুষ তাদের বাপ-দাদার ভিটে-মাটি হারালেও পদ্মা সেতু নির্মাণ হওয়ায় তাদের মধ্যে আনন্দ বিরাজ করছে।

এ সেতুর কাজ শেষ হলে দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষের ঢাকাসহ সারা দেশের সাথে যোগাযোগ স্থাপনের মাধ্যমে অর্থনৈতিক ব্যাপক উন্নতি সাধন হবে।

সৃষ্টি হবে মানুষের নতুন নতুন কর্মসংস্থানের, খুলে যাবে মানুষের ভাগ্যের চাকা।

নাওডোবা এলাকার মোসলেম মাদবর বলেন, আমরা বাপ দাদার ভিটে মাটি হারালেও পদ্মা সেতুর কাজের অগ্রগতি ও প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করে আনন্দিত। পদ্মা সেতুর কাজ শত বাধা বিপত্তি পেরিয়েও বাস্তবায়ন করায় আমরা দক্ষিণাঞ্চলের মানুষ শেখ হাসিনার কাছে কৃতজ্ঞ।

শরীয়তপুর জেলা প্রশাসন ও প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে পাঠানো কর্মসূচির মাধ্যমে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার বেলা ১১টায় মুন্সিগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে সেতুর নাম ফলক উন্মোচন, এন-আট ঢাকা মাওয়া মহা সড়কের, পাঁচচর-ভাঙ্গা অংশের মহা সড়কের উদ্বোধন, পদ্মা রেল সংযোগ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন এবং পদ্মা বহুমূখী সেতু প্রকল্পের অগ্রগতি পরিদর্শন করবেন।

এর পর মুন্সীগঞ্জের মাওয়া টোল প্লাজা সংলগ্ন গোলচত্ত্বরে সুধী সমাবেশে যোগদান করবেন। মুন্সীগঞ্জের সমাবেশ শেষে শিবচরের কাঁঠালবাড়ি ফেরিঘাট হয়ে শরীয়তপুর অংশের সার্ভিস এরিয়া-২ এ দুপুরে পৌনে ১টায় আগমন করবেন। পৌনে তিনটায় সেতুর নাম ফলক উন্মোচন, পাঁচচর-ভাঙ্গা অংশের মহাসড়কের উদ্বোধন, পদ্মা রেল সংযোগ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন এবং পদ্মা বহুমূখী সেতু প্রকল্পের অগ্রগতি পরিদর্শন করবেন।

এর পর বিকেল ৩টায় মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার কাঁঠালবাড়ি ফেরিঘাট সংলগ্ন এলাকায় এক জনসভায় যোগ দিবেন।

বিকেল ৪টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হেলিকপ্টার যোগে ঢাকার উদ্দ্যেশে যাত্রা করবেন।

জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ১৩ অক্টোবর আসার কথা থাকলেও দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে তারিখ পরিবর্তন করে আগামী ১৪ অক্টোবর করা হয়েছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে সার্বিক নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। শরীয়তপুরবাসীসহ আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষ্যে অধির আগ্রহে অপেক্ষায় আছি।

সাব্বির// এসএমএইচ//১৩ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং ২৮শে আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Check Also

বিপদ জয় করে বিজয়ের দেশে ফিরে আসা

জার্নাল ডেস্ক : জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশ নেওয়া বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর জাহাজ ‘বিজয়’  সাক্ষাৎ বিপদ …

‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি’

জার্নাল ডেস্ক ‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি ‘।    এভাবেই নিজের হতাশার কথা  জানিয়েছেন বসনিয়ায় আটকে …