বাংলাদেশি শিশুকে নিয়ে দেহব্যবসা: ভারতীয়র ২০ বছরের কারাদণ্ড

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক :

দুই বাংলাদেশি শিশুকে ভারতে নিয়ে দেহব্যবসায় নামানোর দায়ে এক ভারতীয় নাগরিককে ২০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির আদালত। সেই সঙ্গে করা হয়েছে ৫০ হাজার রুপি জরিমানা। একই সঙ্গে ওই দুই শিশুকে আগামী এক মাসের মধ্যে তাদের পরিবারের কাছে ফেরত পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক। মঙ্গলবার পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার কান্দি মহিকুমা আদালতের বিচারক সন্দীপ কুমার মান্না এই রায় দেন।

সাজাপ্রাপ্ত ভারতীয় ব্যাক্তির নাম সাবু শেখ। জানা গেছে, ২০১৬ সালের ১৪ আগস্ট মুর্শিদাবাদ জেলার সালার থানার চুনশহর গ্রামে সাবু শেখের বাড়ি থেকে সাইদা খাতুন নামে এক বাংলাদেশি শিশুকে উদ্ধার করে সালার থানার পুলিশ। সেই সঙ্গে গ্রেপ্তার করা হয় বাড়ির মালিক সাবু শেখকে। পরে কাকলী খাতুন নামে অপর এক বাংলাদেশি নাবালিকাকে উদ্ধার করা হয় পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া জেলার মায়াপুরের একটি হোটেল থেকে।

উদ্ধার হওয়া দুই শিশু জানায়, তাদের জোর করে দেহ ব্যবসা করাতো সাবু শেখ।

পুলিশ সূত্রে জানায়, সাইদা খাতুনের বাড়ি খুলনা জেলায়। আর কাকলী খাতুনের বাড়ি দিনাজপুর জেলায়। ২০১৬ সালে সাবু শেখ ও তার সহযোগী মনি শেখ বাংলাদেশ থেকে ওই দুই শিশুকে কলকাতায়  কাজের প্রলোভন দিয়ে চোরাপথে ভারতে নিয়ে আসে। তারপর থেকে তাদেরকে দিয়ে দেহ ব্যাবসা চালাতো। এরই মধ্যে সাইদা সুযোগ বুঝে ভারতীয় পুলিশের কাছে অভিযোগ জানায়। অভিযোগ পাওয়ার পরেই ভারতীয় পুলিশ ওই দুই বাংলাদেশি নাবালিকাকে উদ্ধার করে এবং সাবু শেখ সহ নারীপাচার চক্রের মোট ১০ জনকে গ্রেপ্তার করে। এই মামলায় মোট বারো জনের সাক্ষ্য গ্রহন করে আদালত। মঙ্গলবার আদালত তার রায়ে সাবু শেখকে দোষী সাব্যস্ত করে ২০ বছরের  সাজা ও ৫০ হাজার রুপি জরিমানা ধার্য করে। তবে সুনির্দিষ্ট প্রমাণের অভাবে ওই চক্রের বাকি নয়জনকে বেকসুর খালাস দেয় আদালত।

সাব্বির// এসএমএইচ//৩রা আগস্ট, ২০১৮ ইং ১৯শে শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Check Also

বিপদ জয় করে বিজয়ের দেশে ফিরে আসা

জার্নাল ডেস্ক : জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশ নেওয়া বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর জাহাজ ‘বিজয়’  সাক্ষাৎ বিপদ …

‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি’

জার্নাল ডেস্ক ‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি ‘।    এভাবেই নিজের হতাশার কথা  জানিয়েছেন বসনিয়ায় আটকে …