বেগুন-শসা-মুরগির দাম কিছুটা কমেছে

জার্নাল ডেস্ক :

যেসব সবজির দাম রোজা শুরুর আগে হঠাৎ বেড়ে গিয়েছিল, সেসব সবজি কেজিতে আগের চেয়ে ১০ থেকে ৩০ টাকা কম দামে গতকাল বিক্রি করতে দেখা যায়। রাজধানীর কারওয়ান বাজারসহ বেশ কয়েকটি বাজারে গতকাল প্রতি কেজি শসা ৫০ থেকে ৭০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। রোজা শুরুর আগে ও পরের দুই দিন মানভেদে প্রতি কেজি শসার দাম ছিল ৮০ থেকে ১০০ টাকা। আর রোজার এক সপ্তাহ আগে শসার কেজি ছিল ৪০ থেকে ৬০ টাকা। একইভাবে ডিম, মুরগি ও গরুর মাংসের দামও গত ৪ দিন আগের থেকে কিছুটা কমেছে।

এদিকে দাম বাড়ার বিষয়ে অর্থনীতিবিদরা বলছেন, রোজাকে কেন্দ্র করে নির্দিষ্ট কয়েকটি নিত্যপণ্যের দাম বাড়িয়ে কিছু ব্যবসায়ী অন্যায় সুযোগ নিয়েছেন। ক্রেতারাও তাই বলছেন।

রাজধানীর এক সবজি বিক্রেতা বলেন, প্রতিবছর রোজা এলেই পাইকারি বাজারে সবজির দাম বেড়ে যায়। এর প্রভাব পড়ে খুচরা বাজারেও। এছাড়াও খুচরা ব্যবসায়ীদের কেউ কেউ বাড়তি চাহিদার সুযোগ নিয়ে বেশি দামে বিক্রি করেন। তবে রোজা শুরুর এক-দুই দিন আগে ক্রেতারাওআগের চেয়ে বেশি পরিমাণে কেনা শুরু করেন, পরে সেই পরিমাণ কমিয়ে দিলে তখন স্বাভাবিক কারণেই বাজারে এসব পণ্যের দাম কমে যায়।

বাড়তি দামের দিক থেকে সব সবজিকে ছাড়িয়ে গিয়েছিল লেবু। মানভেদে প্রতি হালিতে ৩০ থেকে ৫০ টাকায় বিক্রি হওয়া লেবু রোজার আগে ও পরের দুই দিন বিক্রি হয়েছিল ৭০ থেকে ১০০ টাকায়। গতকাল মানভেদে মাঝারি আকারের লেবুর হালি ছিল ৪০ থেকে ৬০ টাকা। এছাড়া দেশি পেঁয়াজ কেজিতে ১০ টাকা কমে আগের ২৫ থেকে ৩০ টাকায় ফিরে গেছে।

এদিকে বেগুন, শসা ও পেঁয়াজের কোনো ঘাটতি নেই বলে জানিয়েছেন রাজধানীর কয়েকটি কাঁচাবাজারের সবজি বিক্রেতারা।

কমেছে মাংসের দামও। গতকাল গরুর মাংসের কেজি ছিল ৬৫০ থেকে ৬৮০ টাকা। রোজার শুরুর আগের দিন যা বিক্রি হয় ৬৮০ থেকে ৭০০ টাকা কেজি। পাশাপাশি ব্রয়লার মুরগি, সোনালিকা (কক) মুরগি ও ফার্মের মুরগির ডিমের দাম কমেছে। গতকাল ব্রয়লার মুরগি ১৫০-১৫৫ টাকা কেজি বিক্রি হয়েছে। রোজা শুরুর এক দিন আগে যা বিক্রি হয়েছিল ১৭০ থেকে ১৮০ টাকায়। এছাড়া ৩০০-৩২০ টাকা দরে বিক্রি হওয়া সোনালিকা মুরগি গতকাল ২৭০ থেকে ২৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করতে দেখা গেছে।

গতকাল হালিতে ১ থেকে ২ টাকা কমে ফার্মের মুরগির ডিম বিক্রি হয়েছে ৩৪ টাকায়। কমেছে চিনি, ছোলা ও বেসনের দামও। খোলা চিনির দাম কেজিতে ৪ টাকা কমে গতকাল ৮০ টাকায় বিক্রি হয়েছে কল্যাণপুরের নতুন বাজার ও কারওয়ান বাজারে। একইভাবে ছোলার দাম কেজিতে ৫ টাকা কমে এখন ৭৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ইফতারি তৈরির উপকরণ বেসন গতকাল বিক্রি হয়েছিল ১১০ টাকা কেজি। রোজার শুরুর আগে দাম ছিল ১২০ টাকা।

এদিকে, সরকার নির্ধারিত নতুন দামের ভোজ্যতেল বাজারে বিক্রি শুরু হয়েছে। তবে এখনো বেশির ভাগ দোকানে এক ও দুই লিটারের বোতলজাত সয়াবিন তেল পাওয়া যাচ্ছে না। তবে কিছু দোকানে প্যাকেটজাত (পলিথিনে) এক লিটারের সয়াবিন তেল পাওয়া যাচ্ছে ১৬০ টাকায়। সরকার নির্ধারিত দামের মধ্যে শুধু পাঁচ লিটারের বোতলজাত সয়াবিন তেল পাওয়া যাচ্ছে ৭৬০ টাকায়।

এছাড়া চায়না রসুন ১১০ টাকা ও আদা ৯০ টাকা কেজি দরে গতকাল বিক্রি হয়েছে। বিআর-২৮ চালের দাম কেজিতে ৩ টাকা কমে ৫০ টাকা হয়েছে।

Check Also

৯২ বার পেছাল সাগর-রুনি হত্যার তদন্ত প্রতিবেদন

জার্নাল ডেস্ক সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের তারিখ ৯২ বারের মতো পেছানো …

অর্থ আত্মসাতের মামলা: জ্যাকুলিনের জামিন

বিনোদন ডেস্ক সুকেশ চন্দ্রশেখরের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতার কারণে অর্থ আত্মসাতের মামলার অভিযোগ পত্রে নাম উঠেছিল বলিউড …