মুক্তিযোদ্ধা খায়ের আহমদ।

‘ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের কারণে স্বাধীনতা কলঙ্কিত হচ্ছে ’

একান্ত সাক্ষাৎকারে মুক্তিযোদ্ধা খায়ের আহমদ

জার্নাল প্রতিনিধি “

১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে সারা বাংলাদেশ ব্যাপী পাকিস্তানী সেনাবাহিনী কতৃর্ক নির্বিচারে বাঙালি হত্যার বিরুদ্ধে এদেশে সশস্ত্র প্রতিরোধ গড়ে ওঠে এবং বাঙালি সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েন। এর মধ্যে চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার হাইদগাঁও ইউনিয়নের মোহাম্মদ খায়ের আহমদও ছিলেন ৷ তাঁর পিতার নাম মৃত দেলা মিঞা। ভারতের বগাফা পাহাড়ে অস্ত্র ট্রেনিং শেষে খায়ের আহমদ দেশে ফিরেন।

দেশে ফেরার সময় ফটিকছড়ির যুগ্যাছোলা বাজারের পাশে টিলার উপর পাক বাহিনীর সাথে প্রথম সম্মুখযুদ্ধ হয়। এসময় কমান্ডার আবু ছৈয়দসহ গ্রুপের অন্যরা প্রাণে বেঁচে গেলেও আহত হয়েছেন খায়ের আহমদ গ্রুপের মৃদুল সর্দ্দার ও আনোয়ারুল আজিম। পরবর্তীতে পটিয়ার কেলিশহর এলাকায় অবস্থান করেন। পটিয়ার শ্রীমাই ব্রীজ, পটিয়া মাদ্রাসা এলাকায় দ্বিতীয় দফায় সম্মুখযুদ্ধে কমান্ডার আবু ছৈয়দ ও খায়ের আহমদ প্রথম সারিতে নেতৃত্ব দেন। ৯ ডিসেম্বর পাক বাহিনী পটিয়া ত্যাগ করলে আবু ছৈয়দ গ্রæপ পুনরায় পটিয়ায় ফিরেন। ১৩ ডিসেম্বর পটিয়া থানা দখলের নিদের্শ পেয়ে ৩ টি গ্রুপ বিভক্ত হয়ে থানা দখল করে নেন। এসময় আবু ছৈয়দের নেতৃত্বে খায়ের আহমদ গ্রæপসহ মুক্তিযুদ্ধের পতাকা উত্তোলন করেন। এভাবে ১৩ ডিসেম্বর পটিয়ায় হানাদার মুক্ত হয়। মুক্তিযোদ্ধা খায়ের আহমদ জানিয়েছেন, আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছি। কিন্তু ভুয়া মুক্তিযোদ্ধারা স্বাধীনতার ক্ষতি করে যাচ্ছেন। দিন দিন এসব ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা বাড়ছে। তাদের কারনে স্বাধীনতাকলঙ্কিত হচ্ছে। স্বাধীনতা বিরোধী চক্র যাতে মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে না পারে সেজন্য বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি দাবি জানাচ্ছি।

বিডিজা৩৬৫/উপজেলা প্রতিনিধি /শা আ

Check Also

৯২ বার পেছাল সাগর-রুনি হত্যার তদন্ত প্রতিবেদন

জার্নাল ডেস্ক সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের তারিখ ৯২ বারের মতো পেছানো …

অর্থ আত্মসাতের মামলা: জ্যাকুলিনের জামিন

বিনোদন ডেস্ক সুকেশ চন্দ্রশেখরের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতার কারণে অর্থ আত্মসাতের মামলার অভিযোগ পত্রে নাম উঠেছিল বলিউড …