সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে

মহান বিজয় দিবস কাল

জার্নাল ডেস্ক

স্বাধীনতার ৪৯তম বার্ষিকী উদযাপন করতে যাচ্ছে জাতি। বাঙালি জাতির চির আরাধ্য এ দিনটি মুক্তিযুদ্ধের বীরত্ব  গাথা নিয়ে রচিত হয়েছে ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে।  ঐতিহাসিক বিজয়ের এ ক্ষণটি জাতি উদযাপন করতে যাচ্ছে মর্যাদা আবেগ আর হৃদয় নিঙরানো ভালবাসায়। আগামী কাল মহান বিজয় দিবস ১৬ ডিসেম্বর। বিশ্বের মানচিত্রে স্থান করে নেয়া  ছোট্ট দেশটি আজ পৃথিবীর কাছে পরম বিস্ময়ের নাম।বীরের জাতি হিসেবে স্বীকৃতিপ্রাপ্ত এ দেশটি এখন আর তলাবিহীন ঝুড়ি নয়। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে স্বাধীন এ দেশটি তাঁরই সুযোগ্য কন্যার হাত ধরে এগিয়ে চলা অফুরান সম্ভাবনার দেশ। অর্থনৈতিক মুক্তির স্বাদ এনে দিয়েছেন  শেখ হাসিনা। তারই নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন আর স্বল্পোন্নত কোন রাষ্ট্র নয়। স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে উন্নয়নশীল দেশের তালিকায় স্থান করে নিতে যাচ্ছে। বিজয় দিবসের এ শুভলগ্নে পদ্মাসেতুর উপর স্প্যান বসানোর কাজ সমাপ্ত হওয়ার খবর এসেছে।বাংলাদেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ্ ৪১ বিলিয়ন ডলার বা ৪ হাজার ১০০ কোটি ডলার যা বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ।

১৯৭১ সালের এদিনে বাঙালি জাতি পরাধীনতার শেকল ভেঙ্গে প্রথম স্বাধীনতার স্বাদ গ্রহণ করে। ২৪ বছরের নাগ পাশ ছিন্ন করে জাতির ভাগ্যাকাশে দেখা দেয় এক নতুন সূর্যোদয়। প্রভাত সূর্যের রক্তাভা ছড়িয়ে পড়ে বাংলাদেশের এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্তে। সমস্বরে একটি ধ্বনি যেন নতুন বার্তা ছড়িয়ে দেয় ‘জয়বাংলা’ বাংলার জয়, পূর্ব দিগন্তে সূর্য উঠেছে, রক্ত লাল, রক্ত লাল, রক্ত লাল।

কর্ম্সূচি :

যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস-২০২০ উদযাপনের লক্ষ্যে জাতীয় পর্যায়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে,। তবে কোভিড -১৯ প্রাদুর্ভাবের কারণে এ বছর বিজয় দিবস কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হবে না। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ১৬ ডিসেম্বর ঢাকায় প্রত্যুষে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসটির সূচনা। সূর্যোদয়ের সাথে সাথে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে। এরপর মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রীর নেতৃত্বে উপস্থিত বীরশ্রেষ্ঠ পরিবার, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও বীর মুক্তিযোদ্ধারা পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন।

দিনটি সরকারি ছুটির দিন।

 

সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি ভবনে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে এবং গুরুত্বপূর্ণ ভবন ও স্থাপনাসমূহ আলোকসজ্জায় সজ্জিত করা হবে। ঢাকা ও দেশের বিভিন্ন শহরের প্রধান সড়ক ও সড়কদ্বীপ সমূহ জাতীয় পতাকা ও অন্যান্য পতাকায় সজ্জিত করা হবে।

 

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী বাণী প্রদান করেছেন। দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে এদিন সংবাদপত্র সমূহ বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ করবে। এ উপলক্ষে ইলেকট্রনিক মিডিয়াসমূহ মাসব্যাপী মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালা প্রচার করবে। এছাড়াও বিজয় দিবস উপলক্ষে ভার্চুয়ালি ‘জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ ও ডিজিটাল প্রযুক্তির সর্বোত্তম ব্যবহারের মাধ্যমে জাতীয় সমৃদ্ধি অর্জন’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

বিডিজা৩৬৫.আহা

Check Also

টস জিতে ব্যাটিংয়ে আয়ারল্যান্ড

ক্রীড়া ডেস্ক সুপার টুয়েলভে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আজ মাঠে নেমেছে শ্রীলঙ্কা ও আয়ারল্যান্ড। প্রথম রাউন্ডের …

করোনায় একজনের মৃত্যু, শনাক্ত ১২৪

জার্নাল ডেস্ক দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ১২৪ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। মোট শনাক্ত রোগীর …