সর্বশেষ খবর

রাজধানীতে কড়া নিরাপত্তা

নিজস্ব প্রতিবেদক :

১৪ বছর ৪৮ দিন আগে ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীবিরোধী সমাবেশে নৃশংস গ্রেনেড হামলার ঘটনা ঘটেছিল। এই ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা মামলার রায় আজ। এ রায়কে কেন্দ্র করে রাজধানীতে কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

এদিন বিপুল সংখ্যক পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব মোতায়েন রয়েছে। রায়কে কেন্দ্র করে যাতে কোনো বিশৃঙ্খলা ও নাশকতার চেষ্টা চালাতে না পারে সেজন্য সতর্ক অবস্থানে রয়েছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

বুধবার সকাল ৬ টার দিকে রাজধানীর দয়াগঞ্জ মোড়ে বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্যকে দেখা যায়। একই সময় যাত্রাবাড়ী এলাকায় সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে দায়িত্ব পালন করতে মাঠে নেমেছেন ডেমরা জোনের সিনিয়র সহকারী কমিশনার ইফতেখারুজ্জামান ইফতি। তিনি বলেন, সব ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে মাঠে কাজ করছে পুলিশ।

সকাল সাড়ে ৬ টার দিকে মতিঝিল, দৈনিক বাংলা মোড়, পুরানা পল্টন, নয়া পল্টন, কাকরাইল কদম ফোয়ারা, মৎস ভবন, শাহবাগ এলাকায় দেখা যায়, মোড়ে মোড়ে বিপুল সংখ্যক পুলিশ দায়িত্ব পালন করছে। সেই সাথে রায়ট কার, এপিসি কারসহ জলকামানের গাড়ি প্রস্তুত রাখা হয়েছে। একই সাথে র‌্যাবের টহল গাড়ি চোখে পড়ার মতো দেখা গেছে। কেউ যাতে নূন্যতম বিশৃঙ্খলা করতে না পারে সেজন্য এতো আয়োজন বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

রাজধানীর উত্তরায় সকাল ৭টার দিকে দেখা যায়, বিপুল সংখ্যক র‌্যাব ও পুলিশ সদস্যদের নিয়ে উত্তরা এলাকায় নিরাপত্তা বলয় তৈরি করা হয়েছে। একই সাথে পুলিশের জল কামানসহ বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট ও র‌্যাবের ডগ স্কোয়াড মোতায়েন রয়েছে।

সকাল ৮টার দিকে রাজধানীর চাঁনখার পুল থেকে পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগার পর্যন্ত আশেপাশের এলাকায় প্রায় ৫০০ পুলিশ মোতায়েন থাকতে দেখা গেছে। একই সাথে গোয়েন্দা পুলিশ সদস্যদের পোশাকে এবং সাদা পোশাকে থাকতে দেখা গেছে। জলকামান, রায়ট কার ও এপিসি কারসহ বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটকেও প্রস্তুত থাকতে দেখা গেছে। ডিএমপির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বিশেষভাবে দেখা গেছে। পুলিশের পক্ষ থেকে এই এলাকায় লোকজনকে দল বেঁধে যাতায়াত করতে নিষেধ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার আবদুল বাতেন বলেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ের আগে ও পরে রাজধানীতে ডিবির ডগ স্কোয়াড, বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট, সোয়াত সদস্যরা বিশেষ নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবে। বিশেষ নজরদারিও বাড়ানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ঢাকা মহানগর পুলিশের গণমাধ্যম শাখার উপ কমিশনার মাসুদুর রহমান বলেন, একদিন আগে থেকেই বিশেষ জজ আদালতের আশেপাশের এলাকায় বিশেষ নজরদারি করা ও তল্লাশি বাড়ানো হয়েছে। রায়ের জন্য আদালত প্রস্তুত রয়েছে একই সাথে আইন শৃঙ্খলার যাতে কোনো বিঘ্ন না ঘটে সেজন্য প্রস্তুত থাকবে পুলিশ। এর বাইরে আদালত এলাকায় যান চলাচল সীমিত করা হয়েছে।

একই সাথে র‌্যাবের গণমাধ্যম শাখার সহকারী পরিচালক সিনিয়র এএসপি মিজানুর রহমান বলেন, আদালত এলাকার বাইরেও পুরো রাজধানী ও ঢাকার বাইরে নিরাপত্তা রক্ষার্থে র‌্যাব সদস্যরা প্রস্তুত রয়েছে।

এছাড়া সব ধরনের নাশকতা এড়াতে রাজধানীর মহাখালী, ফার্মগেট, শ্যামলী, গাবতলী ও মিরপুর এলাকায় চোখে পড়ার মতো পুলিশ ও র‌্যাব সদস্য দায়িত্ব পালন করছে।

মিরপুর বিভাগের পুলিশের উপ কমিশনার মাসুদ আহমেদ বলেন, রায় ঘিরে রাজধানীতে বিশৃঙ্খলার কোন খবর পুলিশের কাছে নেই। এরপরও সব ধরণের ঝুঁকি এড়াতেই ঢাকা শহরে পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

সাব্বির// এসএমএইচ//১০ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং ২৫শে আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Check Also

বিপদ জয় করে বিজয়ের দেশে ফিরে আসা

জার্নাল ডেস্ক : জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশ নেওয়া বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর জাহাজ ‘বিজয়’  সাক্ষাৎ বিপদ …

‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি’

জার্নাল ডেস্ক ‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি ‘।    এভাবেই নিজের হতাশার কথা  জানিয়েছেন বসনিয়ায় আটকে …