রেলওয়ের ১৭০ একর জায়গায় অবৈধ স্থাপনা

জার্নাল প্রতিবেদকঃ
রেলের সম্পদ অবৈধ দখলের নামে হরিলুট বন্ধ করার দাবিতে বাংলাদেশ রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের বিভাগীয় ভূ সম্পত্তি কর্মকর্তাকে স্মারকলিপি দিয়েছে যাত্রী সাধারণের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ।
রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) নগরের পাহাড়তলী বিভাগীয় ভূ সম্পত্তি কর্মকর্তার দফতরে এ স্মারকলিপি দেন সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক মো. সামসুদ্দিন চৌধুরী।
স্মারকলিপিতে বলা হয়, রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের আওতাধীন চট্টগ্রাম, ফেনী, নোয়াখালী, চাঁদপুর ,কুমিল্লা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া গঙ্গাসাগর এলাকায় রেলওয়ে স্টেশন এবং রেল লাইনসহ অপারেশনাল কাজে ব্যবহারের ৪৩৯৬ একর জায়গায় ও কোনো ধরনের লিজ না দেওয়া ১৬৯ দশমিক ৮২ একর জায়গায় বিভিন্ন অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করা হয়েছে।
চট্টগ্রামে রেলকে ঘিরে মাফিয়া চক্র এসব জায়গায় অবৈধ স্থাপনা তৈরি করে কোটি কোটি টাকা হরিলুট চালাচ্ছে। কিছু কিছু জায়গায় রেল লাইনের ওপর বাজার বসানো হয়েছে। এসব কাজে জড়িত রেলের কিছু স্টেশন মাস্টার, ভূ সম্পত্তি বিভাগের কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারী।
এ বিষয়ে সামসুদ্দিন চৌধুরী বলেন, বর্তমান সরকার রেলপথে যাত্রী সাধারণকে নিরাপদ নির্বিঘ্ন সেবা দিতে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। কিছু ঘুষখোর দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের কারণে সরকারের সব অর্জন ম্লান হচ্ছে। সম্প্রতি যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের একটি টিম নিয়ে চট্টগ্রাম থেকে ঘুমধুম পর্যন্ত রেললাইনের প্রকল্পের কাজ পরিদর্শনে গেলে আমরা দেখতে পাই নগরের ষোলশহর, জানআলী হাট, পটিয়া দোহাজারী রেলওয়ে স্টেশন, রেললাইনসহ অপারেশনাল কাজে ব্যবহারের জায়গাগুলো এখনও অবৈধ দখলদারদের হাতে।
এসব স্টেশনের মাস্টারদের ছত্রছায়ায় রেললাইনের ওপর বাজার, রেললাইনের পাশঘেঁষে অবৈধ বস্তি, দোকান নির্মাণ করা হয়েছে। এসব অবৈধ স্থাপনা থেকে মাসে লাখ লাখ টাকাও চাঁদাবাজি হয়ে থাকে। অথচ দীর্ঘদিন ধরে এমন অপকর্ম চললেও রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ এই বিষয়ে উদাসীন।
বিডিজা৩৬৫/এনআর

Check Also

বিপদ জয় করে বিজয়ের দেশে ফিরে আসা

জার্নাল ডেস্ক : জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশ নেওয়া বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর জাহাজ ‘বিজয়’  সাক্ষাৎ বিপদ …

‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি’

জার্নাল ডেস্ক ‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি ‘।    এভাবেই নিজের হতাশার কথা  জানিয়েছেন বসনিয়ায় আটকে …