লোহাগাড়ায় টংকাবতী খালের অব্যাহত ভাঙ্গনে বসতঘর বিলিন

মনির আহমদ আজাদ, লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম):

লোহাগাড়ার উপজেলার টঙ্গাবতী খালের দু’পাড়ে সহস্রাধিক পরিবারের বসবাস রয়েছে। উপজেলার আমিরাবাদ, কলাউজান ও চরম্বা ইউনিয়নের ওপর দিয়ে খালটির গতিপথ। সম্প্রতি ভারী বর্ষণে পাহাড়ী ঢলে ভাঙ্গনের কবলে পড়েছে তিন ইউনিয়নের বহু বাড়িঘর ও রাস্তাাঘাট। ইতোমধ্যে অনেক বাড়ীঘর বিলীন হয়ে গেছে। খালের অব্যাহত ভাঙনে অনেকেই পরিবার-পরিজন নিয়ে অন্যজনের বাড়ীতে আশ্রয় নিয়েছেন এবং ভাসমান ঘর তৈরী করে তারা অতি কষ্টে দিনাতিপাত করছেন। খালের পাড়ের লোকজনের কষ্টের সীমা নাই। এ ব্যাপারে চরম্বা ইউপি সদস্য মুহাম্মদ এনামুল হক জানান, গত বছরেও ভারী বর্ষণে খালে পানির তীব্র স্রোতে প্রায় ১৬টি বসতঘর বিলীন হয়ে গেছে। চলতি বর্ষায় ভারী বর্ষণে বহু ঘরবাড়ী বিলীন হয়ে গেছে। আরও অর্ধশত বাড়িঘর খালের গর্ভে বিলীন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সরেজমিন পরিদর্শনে দেখা গেছে, টংকাবতী খাল সংলগ্ন চরম্বার রাজঘাটা এবং কলাউজানের আদারচর সংযোগ সড়ক খালের ভাঙনে বিলীন হয়ে গেছে। সড়কের অবশিষ্ট অংশেও বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। রাস্তা চলাচলে ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় অভিভাবকরা কোমলমতী শিক্ষার্থীদেরকে স্কুলে পাঠাতে পারেন না। বর্তমানে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। গৃহহারা পরিবারের আবদুল মোমেন, কহিনুর আকতার, এলাস খাতুন ও রাজিয়া খাতুন কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, ও বাজি আরার বাড়ীঘর হালর ভাঙনে লই গিঅই, আঁরা এহন ঘর ছাড়া। চরম্বা ইউপি চেয়ারম্যান মাস্টার শফিকুর রহমান জানান, চরম্বা রাজঘাটা মাঝের পাড়া এলাকার টংকাবতী খালের তীব্র স্রোতের কারণে অনেক বাড়িঘর বিলীন হয়ে গেছে এবং রাস্তাঘাট ভাঙনে জনদুর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে। তাই এলাকার সর্বস্তরের জনসাধারণ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জরুরী ভিত্তিতে হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সাব্বির// এসএমএইচ//১৮ই জুলাই, ২০১৮ ইং ৩রা শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Check Also

বিপদ জয় করে বিজয়ের দেশে ফিরে আসা

জার্নাল ডেস্ক : জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশ নেওয়া বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর জাহাজ ‘বিজয়’  সাক্ষাৎ বিপদ …

‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি’

জার্নাল ডেস্ক ‘টাকা দিয়ে বিপদ কিনেছি ‘।    এভাবেই নিজের হতাশার কথা  জানিয়েছেন বসনিয়ায় আটকে …