পৌর ভোট জোটগতভাবে নয়, দলীয়ভাবে হবে : হানিফ

0

বিডিজার্নাল  প্রতিনিধি  :

আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনসহ স্থানীয় সরকার নির্বাচন জোটগতভাবে নয়, দলীয়ভাবে করার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ। এ সময় তিনি আরো জানান, আওয়ামী লীগ স্থানীয় সরকার নির্বাচনে সংসদ সদস্যদের প্রচারণায় অংশ নেওয়ার দাবি নির্বাচন কমিশনকে জানাবে।

শনিবার দুপুরে কুষ্টিয়া মহাশ্মশান মন্দির প্রাঙ্গণে শুভ বিজয়া পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন হানিফ।

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ৩০ ডিসেম্বর দেশের ২৩৬টি পৌরসভায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। শুক্রবার শর্তসাপেক্ষে বিএনপি এ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার কথা জানিয়েছে। দলটি নির্বাচন ১৫ দিন পিছিয়ে দেওয়ার দাবি জানিয়েছে। একই দাবি জানিয়েছে সরকারের শরিক ওয়ার্কার্স পার্টিও।

এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ঘোষিত তফসিল অনুযায়ীই পৌর নির্বাচন হওয়ার কথা। তবে নির্বাচন পেছানো বা আগানোসহ নির্বাচন সংক্রান্ত যে কোনো বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে নির্বাচন কমিশন। কমিশন যেটা যৌক্তিক মনে করবে, সেটাই করবে। রাজনৈতিক দল হিসেবে এটা আমাদের ভাবনার বিষয় নয়।’

১৯ নভেম্বর পৌরসভার মেয়র পদে দলীয় মনোনয়নে নির্বাচনের বিধান রেখে অধ্যাদেশকে আইনে রূপ দিতে ‘স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) (সংশোধন) আইন, ২০১৫’ বিলটি জাতীয় সংসদে পাস হয়েছে। আইন অনুযায়ী মন্ত্রী ও সংসদ সদস্যরা নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না।

এ ব্যাপারে মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, ‘দলীয় নির্বাচনে নির্দলীয় আচরণ হতে পারে না। আমরা নির্বাচন কমিশনকে জানাব দলীয় নির্বাচন দলীয়ভাবেই করা হোক। সংসদ সদস্যদের স্থানীয় পর্যায়ের নেতাকর্মীদের কাছে দায় আছে, সেই দায়িত্ব পালনের সুযোগ দেওয়া হোক।’

রাজধানীর হোসেনী দালানের পর বগুড়ার শিয়া মসজিদে হামলার বিষয়ে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরুর থেকেই বাধাগ্রস্ত করতে জামায়াত-বিএনপি নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছে। এসব করেও তারা ব্যর্থ হয়েছে। এখন তারা গুপ্তহত্যা, হামলা চালাচ্ছে। এরই মধ্যে জড়িতদের শনাক্ত করা হয়েছে। কয়েকজনকে আটকও করা হয়েছে। এদের শাস্তির আওতায় আনার মধ্য দিয়ে এসব গুপ্তহত্যা বা হামলা বন্ধ হয়ে যাবে বলে আশা করেন তিনি।

এ সময় কুষ্টিয়ার কুমারখালী-খোকসা আসনের সংসদ সদস্য আবদুর রউফসহ দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

পরে কুষ্টিয়া জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দীর সভাপতিত্বে বিজয়া পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন মাহবুব-উল-আলম হানিফ। এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক সৈয়দ বেলাল হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু বক্কর সিদ্দিক, কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ বদরুদ্দোজা, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সদর উদ্দিন খান, সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী প্রমুখ।

বিডিজার্নাল৩৬৫ডটকম// পিবি/ এসএমএইচ// ২৮ নভেম্বর২০১৫

Share.

About Author

Leave A Reply