ছবি নিয়ে সাইবার ক্রাইম আইনে মামলা করলেন মাহি

0

বিডিজার্নাল বিনোদন প্রতিনিধি :

শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে ‘টক অব দ্য কান্ট্রি’-তে পরিণত হয় ফেসবুকে প্রকাশিত সদ্য বিবাহিত অভিনেত্রী মাহিয়া মাহির কয়েকটি ছবি। ফেসবুকে অনেকেই দাবি করেন যে, এগুলো ছিল মাহির কথিত প্রথম বিয়ের ছবি। যথারীতি ছবিগুলো অনলাইনে ভাইরাল হয়ে যায়। অবশেষে শনিবার দেশের একটি জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকার কাছে ছবিগুলোকে ফেক বলে দাবি করে নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করলেন মাহি।

মাহি বলেন, ফেসবুকে যে ছবিগুলো প্রকাশিত হয়েছে, সেগুলো ভিত্তিহীন এবং উদ্দেশ্য প্রণোদিত। মূলত এগুলো ছিল আমার একটি শ্যুটিংকালীন ছবির দৃশ্য। আর শাওন ওই সময় মজা করে আমার সঙ্গে এসব ছবি ক্যামেরাবন্দি করে। কিন্তু মানুষ ভুল বুঝে আমার সম্পর্কে নানা মন্তব্য ছুঁড়ছেন। তাদেরকে আশ্বস্ত করতে চাই ছবিগুলো সম্পূর্ণ ফেক। এছাড়া এ বিষয় নিয়ে নতুন করে ঘাটাঘাটি করতে চাই না।
তবে সাইবার ক্রাইম আইনে ইতোমধ্যে মামলা করেছেন জানিয়ে মাহি বলেন, আইসিটি অ্যাক্ট অনুযায়ী মামলার প্রাথমিক কাজ সম্পন্ন করেছি। যারা ফেসবুকে এসব ছবি ছড়িয়েছেন এবং আমার বিরুদ্ধে নেতিবাচক খবর প্রকাশ করেছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবো।
এর আগে শুক্রবার সন্ধ্যার পর থেকেই মাহির কয়েকটি ছবি ভাইরাল হয়ে ওঠে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। যেখানে দেখা যাচ্ছে কনের বেশে মাহির কয়েকটি ছবি। সঙ্গে রয়েছেন মাহির বহুল আলোচিত এবং কথিত স্বামী সেই ‘দাঁত বাকা কালো ছেলে’। এমনকি এসব ছবিকে ঘিরে কয়েকটি অনলাইন নিউজ পোর্টালে খবরও প্রকাশিত হয়েছে।

আর ফেসবুকে নানা রকম গুঞ্জন ও মুখরোচক মন্তব্যতো চলছেই। ছবিগুলোতে দেখা যাচ্ছে, বধূ বেশে বসে আছেন মাহি। আর পাশেই সেই শাওন। কেউ কেউ বলছেন, গত বছরের শেষের দিকে ময়মনসিংহে তাদের বিয়ে হয়েছিল। সেই শাওনকে ঘিরে ফের একটি বিতর্ক চলতি বছরের প্রথমদিকে বেগবান হয়। কিন্তু মাহির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছিল, শাওন নিতান্তই তার বন্ধু। এছাড়া ছবির পোস্ট দিয়ে মাহি লিখেছিলেন, ‘ দাঁতগুলো কিন্তু বাকা আছে’।
এদিকে বিভ্রান্তি কাটাতে এই গুজবের বিষয়ে সঠিক পদক্ষেপ নেওয়ার প্রত্যাশা করেন মাহির ভক্তরা।

বিডিজার্নাল৩৬৫ডটকম// আরডি/ এসএমএইচ // ২৮ মে ২০১৬

Share.

About Author

Comments are closed.