১২ ঘণ্টার শ্বাসরুদ্ধকর অভিযানে নিহত ২৮ : সংবাদ সম্মেলনে আইএসপিআর

0

বিডিজার্নাল প্রতিনিধি :

শুক্রবার রাত ৯টার দিকে একদল বন্দুকধারী রাজধানীর কূটনীতিকপাড়ার হলি আর্টিজান বেকারির ক্যাফেতে অস্ত্র ও বিস্ফোরকসহ ঢুকে বিদেশিসহ কয়েকজনকে জিম্মি করেন। তাদের মোকাবেলায় গিয়ে নিহত হন দুই পুলিশ কর্মকর্তা। এরপর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে সামরিক বাহিনী এই জিম্মিদের উদ্ধারে কমান্ডো অভিযানে নামে শনিবার সকালে। ১২ ঘণ্টার শ্বাসরুদ্ধকর অভিযানে নিহতের সংখ্যা ২৮।  এদেরমধ্যে ২০ জনকে রাতে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়।  রাতে দুইজন পুলিশ অফিসার নিহত হন। আর সকালে অভিযানে ৬ সন্ত্রাসী নিহত হয়।  শনিবার দুপুর দেড়টায় এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ তথ্য জানান ব্রিগ্রেডিয়ার জেনারেল নাঈম আশরাম।        সকাল ৭ টা ৩০ মিনিট: রাতভর গুলশানের হোলি আর্টিজান রেস্টুরেন্ট সংলগ্ন এলাকা ঘিরে রাখার পর যৌথ সেনা, নৌ, পুলিশ, র‍্যাব এবং বিজিবির সমন্বয়ে যৌথ কমান্ডো দল গুলশানে অভিযানের চূড়ান্ত প্রস্তুতি নেয়। ৭ টা ৪৫ মিনিট: কমান্ডো বাহিনী অভিযান শুরু করে। অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত দলের সদস্যরা রেস্টুরেন্টের ভেতরে প্রবেশ করে। এমময় গোলাগুলির শব্দ শোনা যায়। ৮ টা ১৫ মিনিট: রেস্টুরেন্ট থেকে প্রথম দফায় নারী ও শিশুসহ ৬ জনকে উদ্ধার করা হয়। একজনকে অ্যাম্বুলেন্সে নিয়ে যাওয়া হয়। ৮ টা ৫৫ মিনিট: ভবনের নিয়ন্ত্রণ নেয় অভিযানকারীরা। গোয়েন্দা দল ভবনের ভেতর বিস্ফোরকের জন্য তল্লাশি শুরু করে। কিছুক্ষন পরই আলামত সংগ্রহের কাজ শুরু করে গোয়েন্দারা। ৯ টা ১৫ মিনিট: অভিযান শেষ। কমান্ডো অভিযানের মধ্য দিয়ে ঢাকার গুলশানের একটি রেস্টুরেন্টে প্রায় ১২ ঘণ্টার রক্তাক্ত জিম্মি সংকটের অবসান হয়। বিডিজার্নাল৩৬৫ডটকম// আরডি/ এসএমএইচ //  ২ জুলাই ২০১৬

Share.

About Author

Comments are closed.