গাছে বেঁধে গৃহবধূকে নির্যাতন !

0

বিডিজার্নাল গাইবান্ধা প্রতিনিধি :

যৌতুকের টাকা না পেয়ে আতিয়া বেগম (২৫) নামে এক গৃহবধূকে গাছে বেঁধে নির্যাতন করেছেন তার পাষণ্ড স্বামী ফারুক হোসেন। শনিবার গাইবান্ধা সদর উপজেলার মধ্য ফলিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আতিয়া বেগমের বাবা আতিকুল্লাহ সরকার জানান,  ১০ বছর আগে একই গ্রামের মোজা মিস্ত্রির ছেলে ফারুক হোসেনের সঙ্গে তার মেয়ের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় এক লাখ টাকা যৌতুক দেওয়ার কথা ছিল। এর মধ্যে ৮০ হাজার টাকা পরিশোধ করা হয়েছে। অবশিষ্ট ২০ হাজার টাকা পরবর্তীতে দেওয়ার কথা ছিল।

এই পাওনা টাকা নিয়ে মাঝে মধ্যে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হতো। এরই জের ধরে ২০১৩ সালে ফারুক স্ত্রী ও তার দুই সন্তানকে রেখে কাজের কথা বলে চলে যান। এরপর আর স্ত্রী সন্তানের খোঁজ-খবর নেননি।

উলিয়া গ্রামের বাসিন্দা আফজাল হোসেন জানান,  শ্বশুর বাড়িতে বোঝা হয়ে দুটি শিশু সন্তান নিয়ে খেয়ে না খেয়ে ছিলেন আতিয়া বেগম। নিরুপায় হয়ে তিনি জীবিকার তাগিদে প্রতিবেশীর বাড়িতে কাজ করতেন। গত বছর আতিয়া তার বাবার বাড়িতে এসে আশ্রয় নেন।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য বাচ্চু মিয়া জানান,  ঈদের দুইদিন পর শনিবার সকালে ফারুক বাড়িতে আসেন। এ খবর শুনে আতিয়া বেগম সন্তানদের নিয়ে বাবার বাড়ি থেকে শনিবার বিকেলে ফারুকের বাড়িতে আসেন। এ সময় তাকে দেখে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে স্বামী ফারুকসহ শ্বশুর বাড়ির লোকজন।

এক পর্যায়ে স্বামী ফারুক হোসেন, দেবর সঞ্জু, সুমন, আব্দুর রশিদসহ বাড়ির লোকজন তাকে বাড়ির পাশে  গাছের সঙ্গে বেঁধে বেধড়ক মারপিট করে। খবর পেয়ে তিনি তাকে উদ্ধার করেন।

তবে ফারুক হোসেন ঘটনার সত্যতা অস্বীকার করেছেন।

গাইবান্ধা সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মেহেদী হাসান জানান, এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিডিজার্নাল৩৬৫ডটকম// আরডি/ এসএমএইচ // ১০ জুলাই ২০১৬

Share.

About Author

Comments are closed.