আইলা দূর্গত জনপদে চেয়ারম্যান ভবতোষের ছাদ কৃষি

0

বিজয় মন্ডল:

বঙ্গোপসাগর উপকূলবর্তী সুন্দরবনের কোল ঘেষা বাংলাদেশের সর্ব দক্ষিণের আইলা দূর্গত লবনাক্ততা প্রবন জনপদ সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়ন। ২০০৯ সালের ২৫শে মে প্রলয়ংকরী ঘূর্ণীঝড় আইলা আঘাত হানার পর লবণাক্ততার প্রভাব বেড়ে যাওয়ায় এ জনপদের কৃষি ব্যবস্থা দারূন সংকটের মধ্যে পড়ে। সংকট কাটিয়ে উঠতে এখনো সংগ্রাম করে চলেছেন এলাকার প্রতিটি কৃষক। সম্প্রতি এ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ভবতোষ কুমার মন্ডল তার কৃষি চিন্তাকে কাজে লাগিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের ছাদে  বৃক্ষ রোপন করে, ছাদ কৃষিতে দারূন সফলতা পেয়েছেন। 

একজন চেয়ারম্যানের নিজস্ব শ্রম, পরিকল্পনা ও অর্থ বিনিয়োগের মাধ্যমে ছাদ কৃষির সফলতা ইতোমধ্যে ব্যতিক্রমী উদ্দোগ হিসেবে দৃষ্টান্ত স্থপন করেছে।

বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে দেখা গেলো দু-বিঘা জমি নিয়ে বুডি়গোয়ালীনি ইউনিয়ন পরিষদ পাকা প্রাচীরে ঘেরা- এরমধ্যে ইউনিয়ন পরিষদের ভবন টি দাড়িয়ে আছে। যার ছাদের উপরে দুই শতাধিক ড্রাম দিয়ে সাজানো আছে সবুজ বাগান। যার মধ্য আছে বিভিন্ন প্রকার ফলজ, বনজ, উষধী  গাছের সোমারহ যেমন আম, কাঠাল, পেপে, জামবুরা, চায়নিজ লেবু, আতা, করম চা, বেল, ডায়া, লোটকোন, পেয়ারা, বেদানা, ডালিম, আ­পেল, আমড়া, জামরুল, কলা,­ কামরাঙ্গা, ছবেদা, আঙ্গুর প্রভৃতি। এছাড়াও ছাদে আরো রয়েছে কয়েকশত ছোট টবে বিভিন্ন প্রজাতীর ফুল গাছ সহ অন্যান্য উদ্ভীদ। পরিষদে প্রবেশ পথ থেকে শুরু করে মূল ভবনের পেছন দিকে পড়ে থাকা সল্প ভূমিও তিনি বাদ রাখেননি বৃক্ষ রোপন করতে। এককথায় বলা চলে পরিষদের চারি পাশ ঘিরে রয়েছে সুর্দশন সবুজ পটভূমি। 

তার চাষকৃত ঔষধী বৃক্ষ গুলোর মধ্যে রয়েছে তেজ পাতা, তুলসি, পাথার কুচি, হাতিসুর, লবঙ্গ,  এবং লজ্জাপতি সেখানকার অন্যতম আকর্ষণ হিসেবে দেখা গেলো জাতীয় পতাকার আঙ্গিকে সবজি বাগান। সে খানে আছে লাল শাক, পালন শাক, ওলকপি, আলু, ধনি, গাজর প্রভৃতি। এই সু বিশাল পট ভূমি তৈরি করেছেন তার নিজস্ব অর্থায়নে। সবচেয়ে আকর্ষণীয় বিষয় হলো তার চাষকৃত সকল বৃক্ষের পুষ্টি, গুনগত খাদ্যের যোগানের জন্য তিনি তৈরি করেছেন জৈব সার তৈরির প্লান্ট। বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়ন পরিষদকে এই রকম জৈব চেহারায় রূপান্তর করেছেন চেয়ারম্যান ভবতোষ কুমার মন্ডল। তিনি নিজেই নিয়মিত ভাবে তার ছাদকৃষির পরিচর্যা করে থাকেন। ইতোমধ্যে তার একান্ত প্রচেষ্টার ফলে ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরটি দর্শনাীয় স্থান হিসাবে পরিচিতি পেয়েছে। এখানে বিভন্ন এলাকা থেকে প্রতিদিন দর্শনাথীরা আসছেন।

চেয়ারম্যান ভবতোষ কুমার মন্ডলের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়নকে একটি অরগার্নিক/জৈব ও উন্নত ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তোলাই তার স্বপ্ন। পরিশেষে বলা যায় বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান একজন ইনোভেটিভ তরুন এবং চিন্তাশীল ব্যাক্তিত্ব। মানষিকতা থাকলে এ ধরনের উদ্ভাবনী কার্যক্রম সম্ভব। বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের ছাদ কৃষির সফলতা আইলা দূর্গত এলাকায় এনেছে নতুনত্ব। এখন এলাকার অনেক বাড়ির ছাদে এরকম বাগান তৈরি হচ্ছে।

 কাওছার আক্তার মুক্তা// এসএমএইচ// রোববার ৩১ ডিসেম্বর ২০১৭ ১৭ পৌষ ১৪২৪

Share.

About Author

Comments are closed.