‘মন্ত্রিসভা ছোট করা দরকার কি না, সেটা দেখা যাবে’

0

নিজস্ব প্রতিবেদক:

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকালীন মন্ত্রিসভা ছোট করার দরকার আছে কি না, সেটা দেখা যাবে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার গণভবনে সদ্য সমাপ্ত সৌদি আরব সফর নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আমাদের নতুন সময়ের সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম খানের এক প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন তিনি।

নির্বাচনকালীন ছোট মন্ত্রিসভা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ২০১৪ সালের নির্বাচনের সময় আগে আমি বিএনপিকে বলেছিলাম আসুন আমরা সব দল নিয়ে একটি বড় মন্ত্রিসভা করি। সেখানে আপনারা আপনাদের পছন্দমত মন্ত্রণালয় নিবেন। সেটা কিন্তু হয়নি। এখন এটা দরকার আছে কি না সেটা দেখা যাবে।

নির্বাচনকালীন সরকারের আকার ছোট করা হলে উন্নয়ন প্রকল্পের বাস্তবায়ন বাধাগ্রস্ত হতে পারে দাবি করে প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, মন্ত্রণালয় থেকে কাটছাট করলে তো অনেক সমস্যা হতে পারে। আপনারা জানেন অনেকগুলো প্রজেক্ট আছে। দু’তিন মাসের মধ্যে অনেকগুলো কাজ আমাদের করতে হবে। আমি দুই তিন মাসের মধ্যে কাজগুলো শেষ করতে চাই। মন্ত্রিসভা ছোটো করলে সে ক্ষেত্রে কোনো রকম বাধা হবে কি না সে বিষয়টি রয়ে গেছে। আমি রাষ্ট্রপতির সঙ্গে কথাও বলেছি।

এর আগে, নাঈমুল ইসলাম খান প্রধানমন্ত্রীকে প্রশ্ন করে বলেন, নির্বাচনের বেশি বাকি নেই। এখন যে বড় পরিসরের মন্ত্রিসভা কাজ করছে সেটি আর কতদিন কাজ করবে। কিংবা ছোটো মন্ত্রিসভা কবে গঠিত হবে?

প্রধানমন্ত্রী এ সময় বলেন, কাকে যে ছোটো করবো সেটাতো খুঁজে পাচ্ছি না। বড় থাকলে অসুবিধা আছে- প্রশ্ন রাখেন তিনি। এ সময় নাঈমুল ইসলাম খান বলেন, আইনে তো নাই।

শেখ হাসিনা আরো বলেন, পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ যেখানে সংসদীয় গণতন্ত্র রয়েছে তাদের দেশে তো নির্বাচনের সময় মন্ত্রিসভার পরিবর্তন করে না। আমি তাদের জিজ্ঞেস করেছি। তারা বলেছে, এর কোনো প্রয়োজনীয়তা নেই। তারা এভাবেই নির্বাচন করেন। তারপরও অপজিশন ডিমাণ্ড করলে করবো। না করলে যেভাবে আছে সেভাবেই থাকবে।

তবে এর আগে সরকারের পক্ষ থেকে নির্বাচনকালীন মন্ত্রিসভার আকার নিয়ে বিভিন্ন সময় কথা বলা হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বরাত দিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরসহ বিভিন্ন মন্ত্রীরা নির্বাচনকালীন সরকার ছোটো হবে মর্মে বক্তব্য দেন।

সাব্বির// এসএমএইচ//২২শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং ৭ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Share.

About Author

Comments are closed.