প্রিমিয়ার লিগেই রুবেলের বিশ্বকাপ ভাবনা

0

ক্রীড়া ডেস্ক :

ক্তিগত জীবনে বিতর্কের কারণে জেলমামলায় জেরবার ছিলেন রুবেল হোসেন তারপরও বিসিবির প্রত্যক্ষ হস্তক্ষেপে ২০১৫ বিশ্বকাপে খেলেছিলেন তিনি প্রতিদানটাও দিয়েছেন হাতেনাতে বিশ্বকাপে লক্ষ্যভেদী ইয়র্ককারে স্টুয়ার্ট ব্রড, অ্যান্ডারসনকে বোল্ড করে বাংলাদেশকে কোয়ার্টার ফাইনালে তোলার নায়ক ডানহাতি এই পেসার

কয়েক মাস পরই ইংল্যান্ডের মাটিতে আবার শুরু হতে যাচ্ছে ওয়ানডে বিশ্বকাপ। যেখানে বাংলাদেশের পেস আক্রমণে বড় ভরসা অভিজ্ঞ এই পেসার। আসন্ন ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগে বিশ্বকাপের জন্য আত্মবিশ্বাস সঞ্চয়ের টার্গেট করছেন রুবেল। ওয়ানডে ফরম্যাটের লিগেই বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হবে। লিগে সেরা বোলারদের তালিকায় থাকতে চান ডানহাতি এই বোলার।

প্রিমিয়ার লিগে রুবেল খেলবেন আবাহনীর হয়ে। গতকাল বিসিবি একাডেমি মাঠে অনুশীলন শেষে প্রিমিয়ার লিগে নিজের টার্গেট নিয়ে তিনি বলেছেন, ‘প্রিমিয়ার লিগে আমার লক্ষ্য থাকবে খুব ভালো বোলিং করা। কয়েকজন উইকেটটেকারের ভেতর আমিও থাকতে চাই। লক্ষ্য থাকবে ম্যাচ বাই ম্যাচ ভালো বোলিং করা।’

বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখেই প্রিমিয়ার লিগে খেলবেন রুবেল। এখানে ভালো করার আত্মবিশ্বাস নিয়ে বিশ্বকাপে যেতে চান তিনি। ২৯ বছর বয়সী এই পেসার গতকাল বলেছেন, ‘প্রিমিয়ার লিগ আমাদের দেশের একটি লোকাল লিগ। এখানে অবশ্যই বিশ্বকাপের বিষয়টি কাজ করবে। ভালো খেললে অবশ্যই আত্মবিশ্বাসটা কাজ করবে। তারপর আপনি ধরেন যারা বিশ্বকাপ দলে যাবে তারা অনেক সুযোগ পাবে। ম্যাচ থাকবে, অনুশীলনের সুযোগ থাকবে।’

বিপিএলে ভালো করার পর আবাহনীর হয়ে প্রিমিয়ার লিগ মাতানোর আশা রুবেলের। আবাহনীর দলটা জাতীয় দলের ক্রিকেটারে ঠাসা। ভারসাম্যপূর্ণ দল নিয়ে ভালো কিছুর আশাই করছেন ডানহাতি এই পেসার।

বাংলাদেশের ওয়ানডে দলে গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হলেও নিউজিল্যান্ড সফরে দুই ম্যাচ সাইড বেঞ্চে বসেছিলেন রুবেল। দলের সবচেয়ে দ্রুতগতির পেসার হলেও কম্বিনেশনের কারণে সুযোগ পেয়েছেন শুধু শেষ ম্যাচে। নিয়েছিলেন এক উইকেট।

সিরিজ হারলে নিউজিল্যান্ড সফরে অনেক কিছু শেখার ছিল বলে মনে করেন রুবেল। গতকাল তিনি বলেছেন, ‘নিউজিল্যান্ডে তো আমরা সিরিজটা হেরে গেছি। অনেক কিছু শেখার আছে, ওই ধরনের কন্ডিশনে কিভাবে খেলতে হয়, বোলারদের কিভাবে বোলিং করতে হয়। আমার তো মনে হয় এই সিরিজ থেকে আমাদের বোলাররা বলেন, ব্যাটসম্যানরা বলেন অনেক কিছু শিখেছে।’

নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশের পেসাররা সুবিধা করতে পারেননি। তবে ওই কন্ডিশনে বোলারদের জন্য খুব ভালো অনুশীলন হয়েছে। তাই ওয়ানডে সিরিজটা হারলেও বোলারদের জন্য ভালো অভিজ্ঞতা হয়েছে।

রুবেল বলেন, ‘আমাদের বোলারদের জন্য খুবই ভালো দেশের বাইরে এধরনের সিরিজ। ইংল্যান্ডে আমাদের বিশ্বকাপ। আবহাওয়া বলেন, উইকেট বলেন নিউজিল্যান্ড একদমই কাছাকাছি। আমার মনে হয় খুব ভালো হয়েছে। এ ধরনের কন্ডিশনে কিভাবে বোলিং করতে হবে, কিভাবে আবহাওয়ার সঙ্গে খাপ খাওয়াতে হবে, ব্যাটসম্যানদের কিভাবে ব্যাটিং করতে হবে; অনেক কিছুই শেখার আছে।’

নিউজিল্যান্ডে স্পোর্টিং উইকেটেই ওয়ানডে খেলেছে বাংলাদেশ। ব্যাটিং সহায়ক এসব উইকেটে হাই স্কোরিং ম্যাচই হয়। বিশ্বকাপেও উইকেট একইরকম হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। বিশ্বকাপের আগে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। সেটিই হবে ট্রফি জয়ের মঞ্চে যাওয়ার আগে নিজেদের দেখে নেওয়ার শেষ সুযোগ।

নিলা চাকমা/এসএমএইচ/  মঙ্গলবার, ৫ মার্চ ২০১৯, ২১ ফাল্গুন ১৪২৫

Share.

About Author

Comments are closed.