বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

0

নিজস্ব প্রতিবেদক:

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৯তম জন্মবার্ষিকীতে গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়ায় তার সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার (১৭ মার্চ) সকাল ১০টা ২০ মিনিটের দিকে সমাধিতে এ ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করেন তারা।

প্রথমে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে ফুল দেন। সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের পর কিছু সময় নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী। এ সময় বিউগলে বাজানো করুণ সুর। এরপর সুরা ফাতেহা পাঠ ও বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর আরেক মেয়ে শেখ রেহানা, উপস্থিত মন্ত্রিপরিষদের সদস্য ও আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারাও মোনাজাতে অংশ নেন।

এ সময় বঙ্গবন্ধু, বঙ্গবন্ধুর পরিবারের নিহত সদস্য, স্বাধীনতা যুদ্ধে নিহত ৩০ লাখ শহীদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।

এরপর বঙ্গবন্ধুর সমাধি কমপ্লেক্সের বঙ্গবন্ধু ভবনে রক্ষিত মন্তব্য বইয়ে মন্তব্য লেখেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পরে প্রধানমন্ত্রী দলের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি হিসেবে আবারো সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এ সময় প্রধানমন্ত্রীর ছোট বোন শেখ রেহানা, জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার  ফজলে রাব্বী মিঞা, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, তোফায়েল আহমেদ, আমির হোসেন আমু, লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান, কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ, সংসদ সদস্য আবুল হাসনাত আব্দুল্লাহ, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম, শেখ হেলাল উদ্দিন, শেখ সালাহ উদ্দিন জুয়েলসহ দলীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে সকাল নয়টা ৫০ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী হেলিকপ্টারে করে বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধ কমপ্লেক্সে নামেন। এর কিছুক্ষণ পর রাষ্ট্র্রপতি পৌঁছান। সকাল সোয়া ১০টার দিকে তিন বাহিনীর একটি চৌকস দল রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীকে গার্ড অব অনার দেয়।

এদিকে জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু সমাধি কমপ্লেক্স প্রাঙ্গণে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
এছাড়া তিনি জাতীয় গ্রন্থ কেন্দ্র ও জেলা প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মসূচিতেও অংশ নেবেন।

প্রধানমন্ত্রীর সফর সূচি অনুযায়ী, টুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধু সমাধি সৌধ কমপ্লেক্সে গোপালগঞ্জ জেলা ব্র্যান্ডিং এর লোগোর রেপ্লিকা উপহার হিসেবে গ্রহণ, বঙ্গবন্ধুকে লেখা চিঠি গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন, সেলাই মেশিন বিতরণ ও সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরস্কার প্রদান, বইমেলা উদ্বোধন ও বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের আঁকা বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ শীর্ষক চিত্র প্রদর্শনী পরিদর্শন করবেন প্রধানমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে ‘আমার কথা শোন’ শীর্ষক ভিডিও প্রদর্শন ও বঙ্গবন্ধুকে লেখা শ্রেষ্ঠ চিঠি পাঠ এবং কাব্যনৃত্যগীতি আলেখ্যানুষ্ঠান করা হবে।

আর শ্রদ্ধা জানানো শেষে সকাল ১১টার দিকে ঢাকার উদ্দেশে টঙ্গীপাড়া ত্যাগ করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

এদিকে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনের কর্মসূচি হিসেবে সোমবার (১৮ মার্চ) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বাংলাদেশ আওয়াম লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

নিলা চাকমা/এসএমএইচ/ /  রোববার, ১৭ মার্চ ২০১৯, ০৩ চৈত্র ১৪২৫

Share.

About Author

Comments are closed.