সংসদে গিয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানাবেন এমপি জাহিদ

0

 নিজস্ব  প্রতিবেদক:

দলের শীর্ষ নেতাদের হুঁশিয়ারি উপেক্ষা করে একাদশ জাতীয় সংসদে বিএনপির প্রথম সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিয়েছেন ঠাকুরগাঁও-৩ আসন থেকে নির্বাচিত জাহিদুর রহমান জাহিদ। তিনি বলেছেন, সংসদে গিয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানাবেন, নেতাকর্মীদের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানাবেন। তবে শপথ নেওয়ায় বিএনপি বহিষ্কার করলেও তিনি দলের সঙ্গেই আছেন বলে জানান এমপি জাহিদ।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় জাতীয় সংসদ ভবনে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী জাহিদুর রহমানকে শপথবাক্য পাঠ করান।

একাদশ সংসদ নির্বাচনে ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জন করে বিএনপি। তাই দলের সিদ্ধান্ত মোতাবেক এতদিন বিএনপির কেউই শপথ নেননি। অনেক গুঞ্জনের পর আজ হুট করেই শপথ নিলেন বিএনপির এ নেতা।

এরপরই গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়েছেন এমপি জাহিদুর রহমান জাহিদ। এ সময় শপথ নেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘হাজার হাজার লক্ষ লক্ষ নিরপরাধ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে আজকে যে মিথ্যা মামলা হয়েছে তা প্রত্যাহারের জন্য আমি সংসদে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আহ্বান জানাব যে,আপনি দেখেন এসব সমস্ত মামলার বাদী পুলিশ। তারা সব মিথ্যা মামলা দিয়েছে। আপনার লোক কোনো মামলা করেনি। কাজেই আপনার এটি দেখা দরকার। গণতন্ত্র রক্ষার স্বার্থে সেসব মামলা প্রত্যাহারের দাবি রাখব। সাথে সাথে আমার নেত্রীকে যেন গণতন্ত্র রক্ষার স্বার্থে মুক্তি দেন এ আহ্বান আমি জানাব। এটাই আমার প্রথম অঙ্গীকার।’

দল বহিষ্কার করলে কী করবেন-এমন প্রশ্নের উত্তরে জাহিদ বলেন, ‘আমার বিষয়ে দল যে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারে। সেটা জেনেশুনেই শপথ গ্রহণ করেছি। দল যদি মনে করে বহিষ্কার করবে- করতেই পরে। বিএনপি আমাকে বহিষ্কার করলেও আমি তো বিএনপি থেকে বহিষ্কার হব না। আমি আছি।’

তবে জাহিদুরের শপথ গ্রহণের পরেই বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘দলের সিদ্ধান্ত, দলের আদর্শ এবং নেত্রীকে জেলখানায় রেখে কেউ যদি শপথ নিয়ে থাকে বা ভবিষ্যতে নেয়, তারা জাতীয়তাবাদী দলের শক্তির সঙ্গে চলার যোগ্যতা রাখে না। তারা হলো গণদুশমন এবং জনগণই তাদের বিচার সময়মতো করবে।’

গত ৩০ ডিসেম্বর একাদশ সংসদ নির্বাচনে বিএনপির ভরাডুবির মধ্যেও ঠাকুরগাঁও-৩ আসন থেকে নির্বাচিত হয়ে চমক সৃষ্টি করেন ধানের শীষের প্রার্থী জাহিদুর রহমান জাহিদ। স্বতন্ত্র হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা আওয়ামী লীগ নেতা ইমদাদুল হককে তিনি হারিয়ে দেন চার হাজার ভোটের ব্যবধানে।

এ নির্বাচনে মাত্র ছয়টি আসন পায় বিএনপি। গণফোরামের দুটি মিলিয়ে ঐক্যফ্রন্ট পায় মোট আটটি আসন।

 

নিলা চাকমা/এসএমএইচ/,  বৃহস্পতিবার ২৫ এপ্রিল ২০১৯, ১২ বৈশাখ ১৪২৬

Share.

About Author

Comments are closed.