ডেঙ্গুর বিরুদ্ধে অ্যাকশন শুরু: কাদের

0

অনলাইন ডেস্ক

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আমরা ভাষণে বিশ্বাস করি না। আমরা অনেক শত্রুকে পরাজিত করেছি, ডেঙ্গুকেও পরাজিত করবো। ডেঙ্গুর বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের অ্যাকশন শুরু হয়ে গেল।

বুধবার দুপুরে রাজধানীর ধানমণ্ডি লেকে দেশব্যাপী ‘পরিষ্কার রাখি চারপাশের পরিবেশ, পরিছন্ন সমাজ- ডেঙ্গুমুক্ত বাংলাদেশ’ স্লোগানে তিন দিনব্যাপী এডিস মশা নিধন কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

কাদের বলেন,মশা মানুষের চেয়ে শক্তিশালী এমন কিছু নয় যে আমরা এর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ করতে পারব না, বিজয়ী হতে পারবো না, ইনশাআল্লাহ, আমরা ডেঙ্গুর বিরুদ্ধেও বিজয়ী হবো।

তিনি বলেন, ডেঙ্গু মোকাবেলায় এডিস মশা নিয়ন্ত্রণকে আমরা কঠিন চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি। আমরা এটা নিয়ন্ত্রণে আনবোই। দেশের সকল সিটি করপোরেশন, জেলা-উপজেলা, ইউনিয়ন, ওয়ার্ড পর্যায়ে তিনদিনের এ কর্মসূচি চলবে। আজকে বৃষ্টিমুখর পরিবেশের ভেতরেও আমাদের দলের সকল নেতারা এখানে সমবেত হয়েছেন।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, মশক নিধন কর্মসূচি পালনে আমরা এখানে অংশ নিচ্ছি। আমাদের নেতাকর্মীরা ঢাকা সিটির প্রত্যেক ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে এ কর্মসূচিতে অংশ নিচ্ছে। এ কর্মসূচির মূল প্রতিপাদ্য হচ্ছে সচেতনতামূলক কর্মসূচি। আপনারা আপনাদের বাসস্থান, আশপাশের জায়গা পরিষ্কার করুন।

কাদের বলেন, আমরা চিকিৎসকদের আহ্বান জানাচ্ছি, এটার জন্য নাম মাত্র ১শ টাকা নিয়ে আপনারা চিকিৎসা করবেন। সব মানুষের পক্ষে ৫০০ টাকা ১০০০ টাকা দিয়ে এ রোগের জন্য রক্ত পরীক্ষা করা সম্ভব নয়। তাই আমি ডাক্তারদের আহবান জানাবো মানবতার স্বার্থে নামমাত্র পয়সায় কিংবা বিনা পয়সায় চিকিৎসা সেবা দিন।

সারা বাংলাদেশের বিএমএ ও স্বাচিপকে রক্ত পরীক্ষার বিষয়টি বিনা পয়সায় করার অনুরোধ জানানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

এক প্রশ্নের জবাবে সাংবাদিকদের উদ্দশে ওবায়দুল কাদের বলেন, এ কর্মকাণ্ড নিয়ে প্রশ্ন না করে আসুন আমরা একযোগে কাজ করি। এটা অ্যাকশন প্রোগ্রাম, একটি কঠিন চ্যালেঞ্জ, এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সকলেরই দায়িত্ব আছে।

দেশে ডেঙ্গুর ভয়াবহতার মধ্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকের মালয়েশিয়া সফর প্রসঙ্গে মেতুমন্ত্রী বলেন, কে দেশে, কে বিদেশে তা বিষয় নয়। ডেঙ্গু মোকাবেলায় কাজ হচ্ছে কি না তাই দেখার বিষয়। ডেঙ্গু প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টিই আসল কাজ।

কর্মসূচি উদ্বোধনের সময় আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলির সদস্য মতিয়া চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, বাহাউদ্দিন নাসিম, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, এনামুল হক শামীম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সবুর, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দি, তথ্য গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসেন, বন ও পরিবেশ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মারুফা আক্তার পপি, আনোয়ার হোসেনসহ ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের নেতাসহ কাউন্সিলরা উপস্থিত ছিলেন।

সাব্বির=৩১শে জুলাই, ২০১৯ ইং ১৬ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Share.

About Author

Comments are closed.