সম্রাটের গ্রেপ্তারে সিনেমাপাড়ায় আতঙ্ক

0

বিনোদন প্রতিবেদক

ক্যাসিনোকাণ্ডে যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট ও তার সহযোগী আরমানকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব। রোববার সকালে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের আলকরা ইউনিয়নের কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রাম থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

তাদের আটক হওয়ার খবরে দেশজুড়ে স্বস্তির বাতাস বইছে। কিন্তু সম্রাট আরমানের গ্রেপ্তারে আতঙ্ক বিরাজ করছে চলচ্চিত্র পাড়ায়। শোনা যাচ্ছে চলচ্চিত্রের বহু মানুষের সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে সম্রাটের।

মূলত খালেদের পরামর্শ ও আগ্রহেই পরবর্তী সময়ে সিনেমার দিকে অধিক মনোযোগী হন সম্রাট। তার ক্যাশিয়ার হিসেবে পরিচিত আরমানের মাধ্যমে বেনামে সিনেমায় টাকা লগ্নি করতেন তিনি। সেই সুবাদে চলচ্চিত্রের মানুষদের সঙ্গে তার সম্পর্ক গড়ে ওঠে। অনেক নামিদামি নায়ক-পরিচালক তার সঙ্গে সম্পর্ক বজায় রাখতেন সিনেমার টাকার জন্য। দু-একজন প্রথম সারির নায়িকার সঙ্গেও বেশ ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল তার, এমন গুঞ্জন ছড়িয়েছে বহুবার।

নানাজনের আবদার রক্ষার্থে মাঝে মধ্যে বাইকে চড়া শতাধিক কর্মী নিয়ে এফডিসিতে শোডাউন করতেন সম্রাট। কারো কোনো দরকার হলেই ছুটে যেতেন সম্রাটের দরবারে। চলচ্চিত্রের নানা বিচার-সালিশেও প্রভাব ছিল তার। চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট বেশকিছু শীর্ষস্থানীয় সমিতির ক্ষমতায় কে বসবে না বসবে সেগুলোও নিজের অফিসে বসে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করতেন সম্রাট। চলচ্চিত্রের অনেক নেতাকর্মীকে দেখা গেছে সম্রাটের অফিসে গিয়ে ফুল দিতে। অনেকটা যেন এফডিসিরও অঘোষিত সম্রাট হয়ে উঠেছিলেন তিনি।

খালেদের পর এবার সেই সম্রাট ও তার অন্যতম সহযোগী আরমান গ্রেপ্তার হওয়ায় আতঙ্কিত চলচ্চিত্রপাড়ার অনেকেই। সেই সঙ্গে বিপদে পড়েছেন সেই সব প্রযোজক, যারা সম্রাট-আরমানের টাকায় নিজেদের প্রযোজক হিসেবে বাঁচিয়ে রেখেছিলেন।

সোমবার, ০৭ অক্টোবর ২০১৯, ২২ আশ্বিন ১৪২৬

Share.

About Author

Comments are closed.