তথ্যপ্রমাণের ভিত্তিতেই তুরিনকে অপসারণ : আইনমন্ত্রী

0

জার্নাল প্রতিবেদক :

আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়কমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, পর্যাপ্ত তথ্যপ্রমাণের ভিত্তিতেই আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটরের পদ থেকে ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজকে অপসারণ করা হয়েছে। তুরিনের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ ছিল, তা যথেষ্ঠ সময় ধরে অনুসন্ধান ও তদন্ত করে প্রমাণিত হওয়ার পরই এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

আইনমন্ত্রী আজ সোমবার বিকেলে সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। এ সময় তিনি তুরিন আফরোজের বিভিন্ন অভিযোগের বিষয়ে সাংবাদিকেদর প্রশ্নের জবাব দেন। 

শৃঙ্খলা ও পেশাগত আচরণ ভঙ্গ এবং গুরুতর অসদাচরণের দায়ে ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর পদ থেকে অপসারণ করে আজ সোমবার আইন মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন জারি করে।

অপসারণের বিষয়ে আইনমন্ত্রী বলেন, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এ ট্রাইব্যুনালকে সব বিতর্কের ঊর্ধ্বে রাখতেই আমরা এ ব্যবস্থা নিয়েছি।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে আনিসুল হক বলেন, একটি মামলায় আসামিদের সঙ্গে যোগসাজসের অভিযোগ ছিল তুরিন আফরোজের বিরুদ্ধে। এর একটি অডিও টেপও রয়েছে। এ মামলার বিষয়ে তুরিন আফরোজ আসামিকে বলেছিলেন, ‘এ মামলার কোনো ম্যারিট নেই। অথচ পরে দেখা গেছে এ মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন হয়েছে।’

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘এ মামলার আগের সব মামলায় তুরিন আফরোজ সঠিকভাবেই তাঁর ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করেছেন। আমরা ওই সময় তাঁর দায়িত্ব পালনের বিষয়ে সন্তুষ্ট ছিলাম।’

২০১৩ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়। একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলার আসামি জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থার (এনএসআই) সাবেক মহাপরিচালক ওয়াহিদুল হকের সঙ্গে গোপনে স্পর্শকাতর তথ্য সরবরাহ করার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাঁকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

বিডিজার্নাল/এসএ

Share.

About Author

Comments are closed.