বঙ্গবন্ধু বাঙালি জাতিসত্তার শিকড়কে মৃত্তিকামুখী করেছেন

0

চট্টগ্রাম ব্যুরো:

প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সমাজবিজ্ঞানী প্রফেসর ড. অনুপম সেন বলেছেন, বাঙালির মাতৃভূমি বিদেশী আগ্রাসনে বারবার পদানত হয়েছে। বাঙালিরা কখনো স্বাধীন ছিলো না। বাঙালির তিন হাজার বছরের ইতিহাসে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহ্বানে সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে প্রথম স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হয়। তিনি আরো বলেন, বাঙালির মুক্তি সংগ্রাম কোন বিচ্ছিন্নতাবাদী লড়াই ছিলো না। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা, শোষণ ও লুণ্ঠনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী আন্দোলনের উপর সশস্ত্র আঘাতের বিরুদ্ধে সশস্ত্র প্রতিঘাত ছিলো। গতকাল বিকেলে চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধুর ৪৩তম শাহাদাৎবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম মহানগর শাখা আয়োজিত এক আলোচনা সভায় একথা বলেন।
অনুষ্টানে মুখ্য আলোচক বীর মুক্তিযোদ্ধা, চলচ্চিত্র নায়ক এবং বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আকবর হোসেন পাঠান ফারুক বলেছেন, আমরা ৭১’ সালে মুক্তিযুদ্ধে এক সাথে ১৬ জন গেরিলা, অপারেশন চালিয়েছি। এর মধ্যে আমরা দু’জন বেঁচে আছি। এই মাটিতেই শুয়ে আছেন লক্ষ লক্ষ মুক্তিসেনা। এদের পবিত্র রক্তধারা কখনো বিফলে যায়নি। যারা এই রক্তের সাথে বেইমানী করেছে তারা ধ্বংস হয়ে যাবে। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যার মূল বেনিফিসিয়ারী জিয়া ও খালেদা। সভাপতির ভাষণে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি মিসেস হাসিনা মহিউদ্দিন বলেছেন, বাঙালি এখন আত্মনির্ভরশীল ও আত্মমর্যাদাশীল জাতি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এদেশকে সকলের জন্য নিরাপদ বাসযোগ্য করেছেন। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তাঁর নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করে বাঙালির স্বাধীন জাতিসত্তাকে নিরাপদ রাখতে হবে। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মো: সেলিমের সঞ্চালনায় উক্ত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, মমতাজ খান, এস.এম. সাঈদ সুমন, দেওয়ান মাকসুদ, মোতালেব চৌধুরী, হেলাল উদ্দিন, আনজুমান আরা, মো: ওসমান গণি, বোরহানুল হাসান চৌধুরী সালেহীন, বিলকিস কলিম উল্লাহ, মামুনুর রশিদ, হাসিনা আক্তার টুনু, সুমন সেন, আয়শা আলম, জেনিফার, শবনম ফেরদৌসী, শাহিন ফেরদৌসী, শারমিন আক্তার শিল্পী প্রমুখ।

সাব্বির// এসএমএইচ//৩১শে আগস্ট, ২০১৮ ইং ১৬ই ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Share.

About Author

Comments are closed.