বিএনপিকে ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে শেষ করা যাবে না: ফখরুল

0

বিডি জার্নাল প্রতিবেদক:

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বিএনপিকে নিঃশেষ করে দিতেই খালেদা জিয়াকে কারাগারে নেওয়া হয়েছে।

আজ শুক্রবার দুপুরে সুপ্রিম কোর্ট বার মিলনায়তনে শত নাগরিক কমিটির আয়োজিত ‘খালেদা জিয়া : তৃতীয় বিশ্বের কণ্ঠস্বর’ নামে  বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন ফখরুল ইসলাম।

বিএনপিকে ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে শেষ করা যাবে না উল্লেখ করে মহাসচিব বলেন, ‘বিএনপি ও খালেদা জিয়ার রাজনীতি হচ্ছে এ দেশের মানুষের রাজনীতি। তাই বিএনপির রাজনীতিকে নিঃশেষ করা যাবে না। এটা নিয়ে নেতাকর্মীদের হতাশার কিছু নেই।’

‘খালেদা জিয়া অত্যন্ত অসুস্থ। তিনি চেয়ারে ঠিকমতো বসতে পারেন না। হাঁটাচলাও করতে পারেন না। তবুও তাঁর মনোবল অটুট আছে,’ যোগ করেন ফখরুল। তিনি আরো বলেন, ফলে নেতাকর্মীদের হতাশ না হয়ে মনোবল ধরে রাখার আহ্বান জানান ফখরুল।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত ও রাজনৈতিক জীবন নিয়ে ‘খালেদা জিয়া তৃতীয় বিশ্বের কণ্ঠস্বর’ শীর্ষক বইটি লিখেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দীন আহমদ ও কবি আবদুল হাই শিকদার। ৮৬০ পৃষ্ঠার এই বইটিতে খালেদা জিয়ার রাজনীতির সুদীর্ঘ পথপরিক্রমা ও নানা চড়াই-উতরাই সংগ্রাম ও দূরদর্শিতার গল্প উঠে এসেছে।

 

প্রকাশনা উৎসবে মোড়ক উন্মোচন করেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এ ছাড়া অনুষ্ঠানে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়া বইটির লেখক অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দীন আহমদ ও কবি আবদুল হাই শিকদারও উপস্থিত ছিলেন।

খালেদা জিয়াকে নিয়ে লেখা বইটির মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে দুই হাজার টাকা। তবে অনুষ্ঠানস্থলে এক হাজার টাকায় বইটি বিক্রি হয়।

এর আগে খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক জীবন ও নানা ঘটনাপ্রবাহ নিয়ে ‘বেগম খালেদা জিয়া : হার লাইফ, হার স্টোরি’ শীর্ষক বই লেখেন বিশিষ্ট সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ। ৭১৮ পৃষ্ঠার ওই বইতে গৃহবধূ থেকে প্রধানমন্ত্রী, স্বৈরাচারবিরোধী সংগ্রাম, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের মেয়াদে কারাবাসসহ সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের স্ত্রীর জীবনের নানা ঘটনার অজানা কথা উঠে আসে।

নিলা চাকমা/এসএমএইচ/,  শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ৬ বৈশাখ ১৪২৬

Share.

About Author

Comments are closed.