স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও দুই মেয়রের পদত্যাগ চায় বিএনপি

0

নিজস্ব প্রতিবেদক

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতার অভিযোগ তুলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও ঢাকার দুই মেয়রের পদত্যাগ দাবি করেছে বিএনপি। সোমবার দলের চেয়ারপারসনের গুলশানস্থ রাজনৈতিক কার্যালয়ে স্থায়ী কমিটির বৈঠকের পর মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এই দাবির কথা জানান। এসময় লন্ডন থেকে স্কাইপে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান যুক্ত ছিলেন।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ডেঙ্গু সারা দেশে মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। আমরা হতাশা ও ক্ষোভের সঙ্গে লক্ষ্য করছি যে, সরকার এই ডেঙ্গু সঙ্কটকে লেজে গোবরে করে ফেলেছে। অর্থাৎ একদিকে সিটি করপোরেশনের মেয়ররা তাদের কথা বলছেন, যার সাথে বাস্তবতার কোনো মিল নেই। কখনো তারা এটাকে গুজব বলে উড়িয়ে দিচ্ছে, কখনো তারা বলছে যে, তারা যথাসাধ্য চেষ্টা করছে যে তারা পেরে উঠছে না, এটা সরকারের দায়িত্ব।

তিনি বলেন, আমরা দাবি করতে চাই, দুই মেয়র যারা শুধু কথাই বলছেন, কাজ করছেন না। তারা সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছেন মশা নিধন করতে, দায়-দায়িত্ব নিয়ে দুই সিটি মেয়রকে পদত্যাগ করতে হবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী যিনি পরবর্তী বিষয়গুলো মনিটরিং করতে ব্যর্থ হয়েছেন, কার্য্করী ব্যবস্থা নিতে পারেননি তারও পদত্যাগ দাবি করছি।

মির্জা ফখরুল বলেন, সিটি করপোরেশন সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে ডেঙ্গু মশা নিধনে। আইসিডিডিআর’বি পূর্ব সর্তকবার্তা দিয়েছিলো যে ঔষধগুলো ব্যবহার করছে সেটা কার্য্করী নয়, সেসব ঔষধ বাদ দিয়ে নতুন কার্যকর ঔষধ আনতে বলেছিলো। দুই সিটি করপোরেশন সেটাকে গুরুত্ব না দিয়ে ইতোমধ্যে তারা ৫০ কোটি টাকার ঔষধ ব্যবহার করেছে।

তিনি বলেন, ঢাকা শহরের হাসপাতালগুলোতে কোনো বেড খালি নেই। চিকিৎসক, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীসহ অনেকে মারা গেছেন। আমাদের দলের ভাইস চেয়ারম্যান শাহজাহান ওমরও ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন।

ডেঙ্গুর বিষয়ে জনগনকে সচেতন হতে সারাদেশে লিফলেট বিতরণের সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানান বিএনপি মহাসচিব। বিএনপিসহ সকল অঙ্গসংগঠন এই লিফলেট বিতরণে কাজ করবে বলেও জানান তিনি।

বৈঠকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এদিকে স্থায়ী কমিটির বৈঠকের আগে বিকেলে গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত দলের ভাইস চেয়ারম্যান শাহজাহান ওমর, যুব দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকুর ছেলে সারফাত ওয়াসিউদ্দিন ও হৃদরোগে আক্রান্ত ভাইস চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীকে দেখতে যান বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মহাসচিব তাদের পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলেন এবং চিকিৎসকদের কাছ থেকে তাদের স্বাস্থ্যের খোঁজ-খবর নেন।

এ সময়ে দলের সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, সহ প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলিম ও দলের ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকার ছেলে প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন, চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান উপস্থিত ছিলেন।

সাব্বির=৩০শে জুলাই, ২০১৯ ইং ১৫ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Share.

About Author

Comments are closed.